default-image

ক্যাপিটল হিলে গত ৬ জানুয়ারি ভয়াবহ হামলা চলাকালে উগ্রবাদীদের থামানোর জন্য সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে অনুরোধ করেছিলেন হাউসের রিপাবলিকান নেতা কেভিন ম্যাকার্থি। কিন্তু ট্রাম্প তা না শুনে উল্টো তাঁর ওপর ক্ষেপে গিয়েছিলেন।

সিএনএন-এর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ক্যাপিটল হিলে হামলা চলাকালে ট্রাম্পের সঙ্গে কেভিনের ফোনে এসব কথা হয়েছে। সম্প্রতি এই ফোন রেকর্ড প্রকাশিত হয়েছে।

ট্রাম্পকে ফোনে কেভিন বলেছিলেন, হামলাকারীরা আপনার অনুগত সমর্থক। তাঁদের আপনি থামান। এর জবাবে ক্ষেপে গিয়ে ট্রাম্প বলেছিলেন, ‘কেভিন, আমার ধারণা এসব মানুষ (হামলাকারী) নির্বাচন নিয়ে তোমার চেয়েও অনেক বেশি ভাবে।’

প্রতিবেদনে বলা হয়, এ সময় তাঁরা দুজন ফোনে চিৎকার করে কথা বলেছিলেন।

এই ফোনকলের সঙ্গে সম্পৃক্ত নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন রিপাবলিকান আইনপ্রণেতা বলেন, কেভিন ম্যাকার্থি ফোনে ট্রাম্পকে বলেছিলেন, হামলাকারীরা তাঁর অফিসেও ভাঙচুর করছে। এ নিয়ে আপনি কি চিন্তা করছেন, কি বলছেন?

বিজ্ঞাপন

কংগ্রেসের রিপাবলিকান আইনপ্রণেতারা বলছেন, ফোনের এই কথোপকথন বলছে, হামলাকারীদের থামানোর কোনো ইচ্ছাই ছিল না ট্রাম্পের। যদিও আইনপ্রণেতারা তাঁদের থামাতে তাঁকে অনুরোধ করেছিলেন। আবার অনেকে বলছেন, প্রেসিডেন্ট হিসেবে হামলাকারীদের থামানো ট্রাম্পের দায়িত্বও ছিল।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কংগ্রেসের একজন রিপাবলিকান সদস্য বলেছেন, গত ১৩ জানুয়ারি কেভিন ম্যাকার্থি বলেছিলেন, এর দায় প্রেসিডেন্টকেই নিতে হবে।

এদিকে ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটল হিলে হামলার ঘটনায় কংগ্রেসে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিশংসনের বিচারকাজ চলছে। সিনেটে স্থানীয় সময় ১২ ফেব্রুয়ারি দুপুরে চতুর্থ দিনের মতো আদালত শুরু হয়। আগের দুই দিনে ডেমোক্রেটিক পার্টির পক্ষ থেকে ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলা হয়। ১২ ফেব্রুয়ারি ট্রাম্পের পক্ষে যুক্তি তুলে ধরেন তাঁর আইনজীবীরা। ট্রাম্প নিজে অভিশংসন আদালতে উপস্থিত হয়ে মামলা মোকাবিলা করবেন না বলে আগেই জানিয়েছেন। তাঁকে আদালতে আনুষ্ঠানিকভাবে তলবও করা হয়নি।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন