default-image

আনুষ্ঠানিকভাবে বিজয়ী ঘোষিত না হলেও আমেরিকাজুড়ে জো বাইডেনকে নিয়ে উল্লাস চলছে। ডোনাল্ড ট্রাম্পের পরাজয় নিশ্চিত জেনেও ট্রাম্প–সমর্থকদের কাছে তাঁর প্রতি ভালোবাসার কোনো কমতি নেই। বড় বড় নগরীতে সপ্তাহান্তজুড়েই ডেমোক্র্যাট–সমর্থকদের উল্লাস–আনন্দ অব্যাহত রয়েছে।

ডেমোক্র্যাট–সমর্থক ছাড়াও অনেকেই ট্রাম্পের নানা বৈরী নীতি আর বাগাড়ম্বরে বিরক্ত হয়ে উঠেছিলেন। তাঁদের মধ্যে একধরনের স্বস্তি নেমে আসতে দেখা যাচ্ছে। প্রান্তিক আমেরিকার লোকজন নানা কারণে নিজেদের বঞ্চিত মনে করায় অনগ্রসর শ্বেতাঙ্গ জনগোষ্ঠী ব্যাপকভাবে ভোট দিয়েছে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে।

বিজ্ঞাপন

আমেরিকার সমাজের চরম বিভক্তির প্রকাশ ঘটেছে এবারের নির্বাচনের মধ্য দিয়ে। ট্রাম্প–সমর্থকেরা এখন তাঁদের নেতা হিসেবে ট্রাম্পকেই মনে করছেন। আশঙ্কা অনুযায়ী সহিংসতা শুরু না হলেও ট্রাম্প–সমর্থকেরা প্রতিটি এলাকায় নিজেদের অবস্থান জানান দিচ্ছেন। তাঁরা তাঁদের নেতা ট্রাম্পের মতোই বলছেন, ভোট নিয়ে কারচুপি হয়েছে।

নিউজার্সির ট্রাম্প–সমর্থক মিকিলিনি ট্রিওলা এ প্রতিবেদককে জানালেন, কারচুপি হয়েছে। তাঁর কাছে কোনো প্রমাণ না থাকলেও তিনি তা–ই মনে করেন এবং ট্রাম্পের প্রতি তাঁর আস্থা এখনো বিরাট বলে জানালেন।

জো বাইডেন রোববারের দিনটি কাটিয়েছেন ডেলোয়ার রাজ্যে উইলমিংগটনে নিজের বাড়িতে। প্রার্থনা করেছেন বাড়ির পাশের গির্জায়। এরপরই আমেরিকার ৪৬তম প্রেসিডেন্ট হতে যাওয়া জো বাইডেন তাঁর জীবনে বয়ে যাওয়া ক্ষত স্মরণ করে বাড়ির পাশের কবরস্থানে যান। সেখানে জো বাইডেন সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত প্রথম স্ত্রী ও তাঁর কন্যাকে স্মরণ করেন। একই কবরস্থানে শুয়ে আছেন জো বাইডেনের পুত্র বিউ বাইডেন। সেখানে এক শোকাবহ স্বামী, এক শোকাবহ পিতা কিছুক্ষণ নীরবে দাঁড়িয়ে প্রার্থনা করেন। মার্কিন সংবাদ মধ্যম জো বাইডেনের জীবনের এ পর্বটি উল্লেখ করছে চরম সহানুভূতির সঙ্গে।

এদিকে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের দাবির পাশেই আছেন ফার্স্ট লেডি মেনেলিয়া ট্রাম্প এবং তাঁর জামাতা জ্যারেড কুশনার। বার্তা সংস্থা সিএনএনের বরাত দিয়ে রোববার সকালেই ভিন্ন খবর বেরিয়েছিল। যে খবরে বলা হয়েছিল ফার্স্ট লেডি ও ট্রাম্প জামাতা দুজনই ট্রাম্পকে ফলাফল মেনে নেওয়ার জন্য বলছেন।

মেলেনিয়া ট্রাম্প রোববার বিকেলে এক টুইটবার্তায় বলেছেন, আমেরিকার জনগণ একটি সঠিক নির্বাচনের দাবিদার। প্রতিটি সঠিক ভোট গণনা করা উচিত এবং স্বচ্ছতার সঙ্গে আমেরিকার গণতন্ত্র সুরক্ষা করতে হবে বলে তিনি বলেন।

জামাতা জ্যারেড কুশনার ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ফলাফল মেনে নেওয়ার জন্য বলেছেন বলে প্রকাশিত সংবাদ অস্বীকার করেছেন ট্রাম্প প্রচারণা শিবিরের উপদেষ্টা জেসন মিলার। জেসন মিলার এক টুইটবার্তায় বলেছেন, কুশনার বিভিন্ন রাজ্যে ভোটের অনিয়ম হওয়ার কথা বলেছেন। এসবের প্রতিকারের জন্য সব আইনগত উদ্যোগ নেওয়ার কথা বলেছেন জ্যারেড কুশনার।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0