default-image

নিউইয়র্কে বসবাসরত বাংলাদেশি নারী শাহানা হানিফ সিটি কাউন্সিল নির্বাচনে প্রার্থিতা ঘোষণা করেছেন। ব্রুকলিনের নির্বাচনী এলাকা

ডিস্ট্রিক্ট-৩৯ থেকে তিনি নির্বাচন করবেন। এর আগে কুইন্স থেকে মেরি জোবাইদা স্টেট অ্যাসেম্বলিউইম্যান পদে নির্বাচনী লড়াইয়ে প্রার্থিতা ঘোষণা করেন। আগামী বছরের নির্বাচনে এদের যেকোনো একজন নির্বাচিত হলে নগর বা অঙ্গরাজ্য আইনসভায় কোনো বাংলাদেশি নারীর প্রথম অভিষেক হতে পারে।

নাগরিক সংগঠক হিসেবে দীর্ঘদিন থেকে সক্রিয় শাহানা হানিফ সিটি কাউন্সিল নির্বাচনে নিজের প্রার্থিতা ঘোষণা করে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘নিউইয়র্ক নগরীর নেতৃত্বে বাংলাদেশি নারীদের একজন হিসেবে অভিষিক্ত হতে চাই।’ নিউইয়র্কে কর্মঠ বাংলাদেশি অভিবাসীদের কথা উল্লেখ করে নিজের বাবাকেও স্মরণ করলেন শাহানা হানিফ। জানালেন, জাহাজে করে অজানা এ নগরীতে এসে ব্রুকলিনের ক্রাউন হাইটসে বাস করতে শুরু করেছিলেন তাঁর বাবা।

ব্রুকলিন কমিউনিটি বোর্ড ও নানা নাগরিক কাজে নিজের সম্পৃক্ততায় নিউইয়র্কের মুসলমান নারী অ্যাকটিভিস্টদের মধ্যে শাহানা হানিফ এরই মধ্যে পরিচিত হয়ে উঠেছেন। নির্বাচনে এ পরিচিতিকে তিনি কতটা কাজে লাগাতে পারেন তা-ই এখন দেখার বিষয়। এর আগে নগর আইনসভায় কোনো মুসলমান নারী সদস্য হননি। আমেরিকার চলমান সময়ে একজন মুসলিম নারী হিসেবে নির্বাচনে তাঁকে প্রতিকূলতা পেরোতে হবে।

বিষয়টি ভালোভাবেই জানেন শাহানা হানিফ। এ নিয়ে নিজের সতর্ক অবস্থানের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমি আমার পরিচয় ধারণ করেই এগিয়ে যেতে চাই। সত্য ও ন্যায়ের পথে ক্রমাগত সংগ্রামই আমাকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। যারা নিজেদের বঞ্চিত মনে করে, তাদের নিয়েই এগিয়ে যাব।’

এ লড়াইয়ে নিজের সাহস ও আত্মবিশ্বাসকেই প্রধান শক্তি বলে মনে করেন শাহানা হানিফ। ব্রুকলিনে নিজের কমিউনিটির মানুষদের সহযোগিতাতেই নিজেকে গড়ে তুলেছেন বলে জানালেন। আত্মবিশ্বাসী এই নারীর কণ্ঠে নির্বাচনী লড়াইয়ে নিজের জয়ের ব্যাপারে আশাবাদই শোনা গেল।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন