default-image

যুক্তরাষ্ট্রের অ্যারিজোনা অঙ্গরাজ্যে স্ত্রী সৈয়দা সোহেলী আক্তার চায়নাকে (৪৩) গুলি করে হত্যার পর আবুল আহসান হাবিব (৫২) নামের একজন প্রবাসী বাংলাদেশি আত্মহত্যা করেছেন।

২৭ সেপ্টেম্বর সকালে রাজ্যের ফিনিক্স সিটির লাভিন এলাকার নিজ বাসায় এই ঘটনা ঘটে। আবুল আহসান হাবিবের বাড়ি বাংলাদেশের মাগুরায়। স্বামী-স্ত্রীর দাম্পত্য কলহের কারণেই এই ঘটনা ঘটেছে বলে স্থানীয় প্রবাসীরা ধারণা করছেন।

ফিনিক্স পুলিশ জানিয়েছে, গুলিতে স্বামী-স্ত্রী নিহত হওয়ার কারণ উদ্‌ঘাটনে তদন্ত চলছে।

ফিনিক্স সিটিতে বসবাসরত ফোবানার প্রধান নির্বাচন কমিশনার মাহবুব রেজা ২৭ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় বলেন, হাবিব-সোহেলী দম্পতি পারিবারিক ভিসায় যুক্তরাষ্ট্রে এসেছিলেন। দুই ছেলেসহ ২০০৮ সালে তাঁরা অ্যারিজোনায় বাস করতে শুরু করেন।

বিজ্ঞাপন
সোহেলী আক্তার বিউটি পারলারের ব্যবসা করতেন। আর স্বামী আবুল আহসান হাবিব একটি রেস্টুরেন্টে কাজ করতেন। করোনার কারণে সব বন্ধ হয়ে যাওয়ায় দুজনেই বেকার হয়ে পড়েন

জানা গেছে, সোহেলী আক্তার বিউটি পারলারের ব্যবসা করতেন। আর স্বামী আবুল আহসান হাবিব একটি রেস্টুরেন্টে কাজ করতেন। করোনার কারণে সব বন্ধ হয়ে যাওয়ায় দুজনেই বেকার হয়ে পড়েন।

ফিনিক্স পুলিশের মুখপাত্র সার্জেন্ট টমি থমসন বলেন, সকাল ৯টা ৫১ মিনিটের দিকে ৯১১-এর অপারেটর যখন সোহেলীর সঙ্গে কথা বলছিলেন, সে সময়েই তাঁরা দুটি গুলির শব্দ শুনেছেন। এরপর দ্রুত ওই বাসায় যায় পুলিশ। বন্দুকটি লাশের পাশে পড়ে ছিল।

পুলিশের ধারণা, সকালে হাবিব বাসার বাইরে যান। এর পাঁচ মিনিটের মধ্যেই বাসায় ফিরে সোহেলীকে গুলি করে হত্যার পরই আত্মহত্যা করেন হাবিব। বিষয়টি আরও তদন্ত করছে পুলিশ।

মন্তব্য পড়ুন 0