default-image

মার্কিন সিনেটে সংখ্যালঘু রিপাবলিকান পার্টির নেতা মিচ ম্যাককনেলকে ‘নির্বোধ সন্তান’ বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

পলিটিকো’র এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ১০ এপ্রিল বিকেলে সাউথ ফ্লোরিডার মার-এ-লাগো রিসোর্টে আয়োজিত রিপাবলিকান ন্যাশনাল কমিটির দাতাদের সম্মেলনের আগে দেওয়া এক বক্তব্যে মিচ ম্যাককনেলকে নিয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্প এই মন্তব্য করেন।

টানা ৫০ মিনিট দেওয়া বক্তব্যে ট্রাম্প বলেন, গত ফেব্রুয়ারিতে অভিশংসন বিচারের সময় তাঁকে রক্ষা করতে ম্যাককনেল যথাসাধ্য চেষ্টা করেননি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বক্তব্যে দেওয়ার একপর্যায়ে ম্যাককনেলকে ‘দুশ্চরিত্রা নারীর নির্বোধ সন্তান’ বলে উপহাস করেন ট্রাম্প। ওই সময় উপস্থিত ছিলেন এমন তিনজন রিপাবলিকান নেতা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। শুধু তাই নয়, ম্যাককনেলের স্ত্রী সাবেক পরিবহনমন্ত্রী এলেইন চাওয়ের কঠোর সমালোচনা করেন। গত ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটল হিলে দাঙ্গার ঘটনার পর মন্ত্রিসভার পদ থেকে পদত্যাগ করেন এলেইন চাও। এ কারণে বক্তব্যে তাঁরও সমালোচনা করেন ট্রাম্প।

এ বিষয়ে ম্যাককনেলের মুখপাত্রের কাছে মন্তব্য জানতে চাওয়া হলে, তাৎক্ষণিকভাবে তিনি কিছু বলেননি।

বিজ্ঞাপন

৬ জানুয়ারির ঘটনায় অভিশংসন আদালতে রায় ঘোষণার পর সিনেটে রিপাবলিকান পার্টির নেতা মিচ ম্যাককনেল বলেছিলেন, সিনেটে সংখ্যাগরিষ্ঠ মতামতের সিদ্ধান্তের মাধ্যমে ৬ জানুয়ারি বা তার আগে ঘটে যাওয়া সব ঘটনা ম্রিয়মাণ হয়ে যায় না। সাবেক প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প সাংবিধানিক দায়িত্ব পালনকে অগ্রাধিকার দিতে ব্যর্থ হয়েছেন। সিনেটররা এই সিদ্ধান্তের মাধ্যমে সাংবিধানিক দায়িত্বকে অগ্রাধিকার দিয়েছেন।

সে সময় ট্রাম্পের কঠোর সমালোচনাও করেছেন মিচ ম্যাককনেল। তিনি বলেছিলেন, নীতিগত ও বাস্তবসম্মতভাবে ট্রাম্প এ ঘটনার জন্য দায়ী।

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটল হিলে হামলার ঘটনায় দোষারোপ করলেও মিচ ম্যাককনেল ভোট দিয়েছিলেন ট্রাম্পের অভিশংসনের বিপক্ষে। তারপরও সাবেক প্রেসিডেন্টের সমালোচনা করায় ম্যাককনেলকে নিয়ে আক্রমণাত্মক মন্তব্য করেছিলেন ট্রাম্প। সে সময় তিনি ম্যাককনেলকে ‘একগুঁয়ে, জঘন্য ও গোমড়ামুখো রাজনীতিক’ বলে উল্লেখ করেছিলেন।

সম্মেলনে দেওয়া বক্তব্যে ট্রাম্প সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের কর্মকাণ্ড নিয়েও হতাশা ব্যক্ত করেছেন। নির্বাচনের সার্টিফিকেশন বন্ধে জোরালো পদক্ষেপ না নেওয়ায় পেন্সের বিরুদ্ধে এই হতাশা ব্যক্ত করেন তিনি।

এ ছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ অ্যান্টনি ফাউসিরও কঠোর সমালোচনা করেন সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন