default-image

আমেরিকার মিশিগান অঙ্গরাজ্যের ডেট্রয়েটে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে বন্ধ থাকা স্কুল খোলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ হয়েছে কিছুদিন আগে। কিন্তু এবার গ্রস পয়েন্টে দ্রুত স্কুল খুলে দেওয়ার দাবিতে বিক্ষোভ করেছেন অভিভাবকেরা। সম্প্রতি স্কুলটি আসন্ন শিক্ষাবর্ষে অনলাইনে শিক্ষা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। এর প্রতিবাদে ৯ আগস্ট মাইরে এলিমেন্টারি স্কুলের কাছে ক্যাডিয়াক্স রোড ও কারচেভাল অ্যাভিনিউয়ে নামেন অভিভাবকেরা।

বিক্ষোভ সমাবেশের অন্যতম আয়োজক ও গ্রস পয়েন্টে সাউথ হাইস্কুলের দুই শিক্ষার্থীর বাবা ট্রেসি স্কুপিয়েন বলেন, ‘আমরা শতভাগ স্কুল খুলে দেওয়ার কথা বলছি না। এটা যুক্তিসংগত নয়। আমরা জানতে চাই, এ ব্যাপারে সঠিক তথ্য তথ্য পেতে কোথায় যেতে হবে। একটা সময় আমাদের স্বাভাবিক জীবনযাপন শুরু করতে হবে।’

ডিস্ট্রিক্ট ওয়েবসাইট সূত্রে জানা গেছে, এই মুহূর্তে অভিভাবকেরা ওয়ানজিপি, শতভাগ রিমোট লার্নিং অপশন বা জিপিপিএসএস অপশন বেছে নিতে পারেন। একসময় নিরাপদ বলে মনে করলে শিক্ষার্থীরা মুখোমুখি শিক্ষার জন্য ক্লাসে ফিরে আসতে পারে। জিপিপিএসএসের সেমিস্টার আগামী ৮ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হওয়ার কথা।

জিপিপিএসএস সুপারিনটেনডেন্ট গ্যারি নিহাউস বলেছেন, ‘আমরা সবাই ব্যক্তিগত প্রশিক্ষণ এবং শেখার জন্য পুরো সময় পেতে চাই। আমরা গাইডলাইন এবং সুরক্ষা প্রোটোকল অনুসরণ করব। এটি সম্পূর্ণরূপে শিখতে বা ব্যক্তিগতভাবে শেখার জন্য একটি ভ্যাকসিনের প্রয়োজন, যা এই মুহূর্তে নেই। তাই আমরা বিশ্বাস করি, শিশুদের পক্ষে অনলাইন লার্নিং এখন সবচেয়ে ভালো।’

স্কুপিয়েন বলেন, তাঁরা স্কুল বোর্ডের কাছে পাঁচ শতাধিক অভিভাবকের স্বাক্ষরসহ শিক্ষার্থীদের মুখোমুখি ক্লাস করাতে একটি চিঠি দিয়েছেন।

কেটি টম্পকিনস নামের একজন অভিভাবক বলেন, ‘আমরা কিন্তু শিক্ষক নই। মা–বাবা এবং শিক্ষকের মধ্যে অনেক পার্থক্য। তাঁদের আলাদা আলাদা ভূমিকা। আমাদের জন্য শিক্ষকের মতো আচরণ করা খুবই কঠিন। আমি চাই না আমার সন্তান দিনে তিন ঘণ্টা স্ক্রিনের সামনে বসে থাকুক।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0