default-image

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোট গণনা বন্ধের দাবি জানিয়ে মামলা করেছে রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্বাচন শিবির। শুরুতে উইসকনসিন অঙ্গরাজ্যে ভোট পুনর্গণনার দাবি তুলেছিল ট্রাম্প শিবির। এরপর তিন অঙ্গরাজ্যে মামলাই করে বসে তারা।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হয়, ভোটগ্রহণ বন্ধের দাবিতে পেনসিলভানিয়া, মিশিগান ও জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যে মামলা করেছে ট্রাম্প শিবির। শুরুতে উইসকনসিনে ভোট পুনর্গণনার দাবি তুললেও সেখানে মামলা করেনি তারা।

ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচার শিবির প্রথমে মিশিগানে ভোট গণনা বন্ধের দাবি জানিয়ে বিবৃতি দেয়। প্রচার শিবিরের ব্যবস্থাপক বিল স্টেপিন এক বিবৃতিতে বলেন, মিশিগানের আইন অনুযায়ী ভোট গণনার নির্ধারিত জায়গায় ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচার শিবিরের কাউকে সেভাবে উপস্থিত থাকার সুযোগ দেওয়া হয়নি। সে কারণে তাদের পক্ষে ব্যালট পেপার খোলা ও ভোট গণনার প্রক্রিয়া পর্যবেক্ষণ সম্ভব হয়নি।  

বিজ্ঞাপন

এরপর পেনসিলভানিয়া ও জর্জিয়ায় মামলা করে বসে ট্রাম্প শিবির। যদিও আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলোর খবর অনুযায়ী ওপরের চার অঙ্গরাজ্যের মধ্যে মিশিগান ও উইসকনসিনে এরই মধ্যে ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেনের জয় নিশ্চিত হয়েছে। ২০১৬ সালে এই দুই রাজ্যেই জয় পেয়েছিলেন ট্রাম্প।

নিউইয়র্ক টাইমসের তথ্য বলছে, মিশিগানে ২৬ লাখ ৮৪ হাজার ২০০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছে বাইডেন। তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী ট্রাম্প পেয়েছেন ২৬ লাখ ১৭ হাজার ৬০ ভোট। এই জয়ে মিশিগানের ১৬টি ইলেকটোরাল কলেজ ভোট। আর উইসকনসিনে বাইডেন পেয়েছেন ১৬ লাখ ৩০ হাজার ৩৮৯ ভোট। আর ট্রাম্প পেয়েছেন ১৬ লাখ ৯ হাজার ৮৭৯ ভোট। এখানে ইলেকটোরাল কলেজ ভোট ১০টি।

গণমাধ্যমে পাওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী বাইডেনের ইলেকটোরাল কলেজ ভোটের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৫৩। আর ট্রাম্প এখন পর্যন্ত পেয়েছেন ২১৪ ভোট। মোট ৫৩৮ ইলেকটোরাল ভোটের মধ্যে প্রেসিডেন্ট হতে প্রয়োজন ২৭০ ভোট।

মন্তব্য পড়ুন 0