বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মহামারিতে কাজ কর্ম বন্ধ হয়ে পড়া যুক্তরাষ্ট্রের লোকজন অর্থনৈতিক বিপর্যয়ের সময়ে পাওয়া অর্থ দিয়ে তাঁদের নিত্যদিনের ব্যয় সামাল দিয়েছেন। এখন আইআরএস তদন্ত করে দেখেছে, কয়েক লাখ মানুষের নামে প্রণোদনার অর্থ পাঠানো হয়েছে, যারা আইনের আওতায় এ অর্থ পাওয়ার যোগ্য নন।

গত সপ্তাহে আইআরএস এমন বহু চিঠি জনগণের ঠিকানায় ছাড়তে শুরু করেছে। চিঠিতে ভুল করে পাঠানো অর্থ ফেরত দিতে বলা হয়েছে। রাজস্ব বিভাগের অর্থ ফেরত দেওয়ার চিঠিতে উল্লেখ করা সময়ের মধ্যে ওই পরিশোধ করতে বলা হয়েছে।

চিঠিতে কর্মহীন ভাতার সঙ্গে দেওয়া সপ্তাহের ৬০০ ডলার এবং ৩০০ ডলার ফেরত দেওয়ার চিঠি পাচ্ছে লোকজন। নগদ প্রণোদনা হিসেবে ১২০০ ডলার এবং দম্পতিদের ক্ষেত্রে দেওয়া ২৪০০ ডলারও ফেরত দেওয়ার চিঠি পেয়েছেন অনেকেই।

মার্গারেট দিলেনই নামের একজন মার্কিন নাগরিক অভিযোগ করেছেন, তিনি ও তাঁর ৮০ বছর বয়সী বাবা প্রণোদনা হিসেবে প্রাপ্ত অর্থ ফেরত দেওয়ার চিঠি পেয়েছেন এক সপ্তাহের ব্যবধানে। এমন চিঠি পাওয়ার পর তাঁদের মাথায় হাত পড়েছে। আইআরএসের কাস্টমার সার্ভিসে ফোন করলেও প্রথমে কোনো সঠিক উত্তর না পেয়ে তিনি হতাশ হয়ে পড়েন। পরে কয়েক দফা যোগাযোগ করার পর আইআরএস জানিয়েছে, অডিটের সময়েই ভুল হয়েছে এবং বিভাগটির এ ভুলের কারণে তাঁকে অর্থ ফেরত দেওয়ার চিঠি দেয়া হয়েছে।

আইআরএস বলছে, অর্থ ফেরত দেওয়ার চিঠি পেলে যেন কেউ বিভাগে ফোন না করেন। অর্থ পরিশোধ করার পর আগামী বছরের করবিবরণীতে তা ধরা পড়লে আবার সংশোধন করে সমন্বয় করা হবে।

রাজস্ব বিভাগের এমন নির্দেশনা জনগণের জন্য জটিল হয়ে উঠেছে। অনেকের কাছেই ফেরত দেওয়ার মতো অর্থ অবশিষ্ট নেই। ভুল করে ফেরত দেওয়ার চিঠি আসলেও তা পরিশোধ করে পরের বছরের ট্যাক্স রিটার্নের সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করার জন্য তাদের বলা হচ্ছে।

নিউইয়র্কেও পুরোনো কম্পিউটার সিস্টেমের মাধ্যমে দেওয়া বেকার ভাতা অনেকের কাছে পৌঁছেছে। যদিও তাঁদের বেকার ভাতা পাওয়ার যোগ্যতা নেই। সাবেক গভর্নর অ্যান্ড্রু কুমো ক্ষমতায় থাকার সময়ে রাজ্যের শ্রম বিভাগের ত্রুটি ও দুর্বলতার কথা জানিয়েছিলেন। মহামারির সময়ে বেকার ভাতা গ্রহণকারীর সংখ্যা সামাল দিতে রাজ্য সরকারগুলোকে হিমশিম খেতে হয়েছে। এখন বেকার ভাতা গ্রহীতার সংখ্যা কমে এসেছে এবং অধিকাংশ কর্মহীনদের ভাতা গ্রহণের মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে গেছে। শ্রম বিভাগ এখন অডিট শুরু করেছে এবং যেসব ক্ষেত্রে পাওয়ার অযোগ্য লোকজনকে ভাতা দেওয়া হয়েছে, তা ফেরত চেয়ে চিঠিও আসতে শুরু করেছে।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন