default-image

পুলিশের গুলিতে ওয়াল্টার ওয়ালেস জুনিয়র নামের এক কৃষ্ণাঙ্গ যুবক নিহতের প্রতিবাদে সহিংসতা ও লুটতরাজের জের ধরে পেনসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যের বাংলাদেশি অধ্যুষিত ফিলাডেলফিয়া নগরীতে কারফিউ জারি করা হয়েছে।

২৬ অক্টোবর পুলিশের গুলিতে ওয়াল্টার ওয়ালেস নামের এক কৃষ্ণাঙ্গ যুবক নিহত হওয়ার পর নগরীতে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের জন্য স্থানীয় সময় বুধবার রাত নয়টা থকে বৃহস্পতিবার সকাল ছয়টা পর্যন্ত নগরীতে কারফিউ জারি করা হয়।

পুলিশের গুলিতে ওয়াল্টার ওয়ালেস জুনিয়র নিহত হওয়ার প্রতিবাদে ২৭ অক্টোবর বাংলাদেশি অধ্যুষিত মার্কেট স্ট্রিট ও চেসনাট স্ট্রিটসহ ফিলাডেলফিয়া সিটির বাণিজ্যিক কেন্দ্রগুলোতে হামলা, ভাঙচুর ও লুটতরাজের ঘটনা ঘটেছে। ওই দিন বিকেলে ন্যাশনাল গার্ড মোতায়েন করা হয়।

বিজ্ঞাপন
default-image

বিক্ষোভের সুযোগে নগরীতে লুটপাট চালানো হয়েছে। ইলেকট্রনিক ও জুয়েলারি স্টোর লুটপাট বেশি হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, দুদিনের বিক্ষোভে তারা ২৯১টি লুটপাটের রিপোর্ট গ্রহণ করেছে। ২৭ অক্টোবর রাতে ভাঙচুর ও লুটপাটের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে ৮১ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ ছাড়া বিক্ষোভে ১৫ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছে। পুলিশের ২৩ জন সদস্য আহত হয়ে চিকিৎসা নেওয়ার কথাও জানানো হয়েছে।

ফিলাডেলফিয়া সিটির বাসিন্দাদের পুলিশের পক্ষ থেকে ঘরে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। ভাঙচুর এড়াতে দোকানে তালা দেওয়ার পাশাপাশি শক্ত কিছু দিয়ে ভেতর থেকে প্রতিরোধ ব্যবস্থা রাখার পরামর্শও দেওয়া হয়েছে।

ওয়াল্টার ওয়ালেস নিহত হওয়ার বিষয়ে পুলিশ জানিয়েছে, ওয়াল্টার ওয়ালেস হাতে ধারালো ছুরি নিয়ে আক্রমণের চেষ্টায় ছিলেন। টহল পুলিশ তাঁকে বারবার অনুরোধ করা সত্ত্বেও তিনি ছুরি মাটিতে ফেলে দেননি। এ অবস্থায় আত্মরক্ষার্থে পুলিশ গুলি করতে বাধ্য হয়েছে।

default-image

নিহত ওয়াল্টার ওয়ালেসের স্বজনেরা জানিয়েছেন, ওয়াল্টার ওয়ালেস মানসিক রোগী ছিলেন। তাঁর চিকিৎসাও চলছিল। তিনি দুর্বৃত্ত নন।

নিহত ওয়াল্টারের বাবা অভিযোগ করেছেন, তাঁর ছেলেকে পরপর ১০ বার গুলি করা হয়েছে হত্যার উদ্দেশ্যে। এই গুলিবর্ষণের দৃশ্য একজন পথচারী ধারণ করে তা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার পরই প্রতিবাদ শুরু হয় ফিলাডেলফিয়া সিটিসহ আশপাশে।

পুলিশ কমিশনার ডেনিয়েল আউট ল বলেন, হত্যার জন্য দায়ী ব্যক্তি অবশ্যই শাস্তি পাবেন। তাই বলে হত্যার প্রতিবাদ জানাতে ভাঙচুর ও লুটপাট করতে হবে কেন?

ফিলাডেলফিয়া ডিস্ট্রিক্ট অ্যাটর্নি ল্যারি ক্র্যাসনার বলেছেন, গুলির ঘটনার তদন্ত চলছে। অবশ্যই দায়ী ব্যক্তি চিহ্নিত ও আইন অনুযায়ী শাস্তির সম্মুখীন হবেন। লুটপাটের মতো জঘন্য কাজে জড়িতরাও শাস্তি পাবেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0