default-image

ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন আজ ৩ নভেম্বর দিন শুরু করেছেন গির্জায় প্রার্থনার মধ্য দিয়ে। আর প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নিজের বিজয় নিয়ে আশাবাদ প্রকাশের মধ্য দিয়ে দিন শুরু করেছেন।

আজ মঙ্গলবার সকালের উষ্ণ আবহাওয়ায় ডেলাওয়্যার অঙ্গরাজ্যের উইলমিংটন শহরে নিজের বাড়ির পাশের গির্জায় হেঁটে যান জো বাইডেন। এ সময় তাঁর স্ত্রী জিল বাইডেন ও দুই নাতনি সঙ্গে ছিলেন। সকাল সাড়ে ৭টার গির্জায় প্রার্থনা শেষে নিকটবর্তী কবরস্থানে যান বাইডেন। সেখানে তাঁর অকালপ্রয়াত ছেলে বেও বাইডেন, তাঁর প্রথম স্ত্রী ও এক মেয়ে সমাহিত আছেন। কবরস্থানে সংক্ষিপ্ত প্রার্থনা শেষে বাইডেন তাঁর দুই নাতনি ফিনেগান ও নাটালিকে নিয়ে পেনসিলভানিয়ায় নিজের জন্মশহর স্ক্র্যানটন পৌঁছান।

স্ক্র্যানটনে পৌঁছার পর ‘ওয়েলকাম হোম’ বলে বাইডেন সাংবাদিকদের বলেন, তাঁর দুই নাতনি এর আগে কখনো এ শহরে আসেননি। এ সময় স্থানীয় শ্রমিক ইউনিয়ন ‘লোকাল ৪৪৫’ তাঁকে স্বাগত জানায়। বাইডেন সেখানে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে যুক্তরাষ্ট্রে পরিবর্তনের জন্য সবাইকে ভোটকেন্দ্রে উপস্থিত হওয়ার আহ্বান জানান।

জো বাইডেন তাঁর নাতনিদের নিয়ে পরে সেই বাড়িতে যান, যেখানে তাঁর শৈশব কেটেছে। অ্যানি ক্যারেন নামের এক নারী ঘরটিতে এখন বসবাস করেন। বাইডেন তাঁর অনুমতি নয়ে নাতনিদের নিজের শৈশবের বাড়ির রান্নাঘর দেখিয়ে আনেন। এ সময় সমর্থকদের লাইন ধরে তাঁর সমর্থনে স্লোগান দিতে দেখা যায়। এর মধ্যে একজন ট্রাম্প সমর্থকও স্লোগান দিয়ে ওঠেন—‘ফোর মোর ইয়ার’ বলে।

আজ দিনের কিছু সময় পেনসিলভানিয়ার এ এলাকায় থাকছেন জো বাইডেন। তাঁর স্ত্রী জিল বাইডেন আগেই ফিলাডেলফিয়া এলাকায় পৌঁছেছেন। দিনের শেষভাগে জো বাইডেনেরও সেখানে যাওয়ার কথা রয়েছে।

বিজ্ঞাপন
default-image

এদিকে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আজ সকাল শুরু করেন ফক্স নিউজের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলার মাধ্যমে। তিনি বলেন, বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ লোককে তিনি ফোন করে কথা বলেছেন। জো বাইডেনের প্রচার প্রায় বন্ধ হয়ে গেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, তাঁরা হেরে যাওয়ার আতঙ্কে ভুগছেন।

নিজের নির্বাচনের ব্যাপারে চরম আশাবাদ ব্যক্ত করে ট্রাম্প বলেন, নির্বাচনের দিন সকালে তিনি খুব ভালো বোধ করছেন। তাঁর প্রচার সভাগুলোতে যে পরিমাণ জনসমাবেশ হয়েছে, আগে তা কখনো হয়নি। এর ফলাফল দ্রুতই দেখা যাবে। ২০১৬ সালের নির্বাচনে নিজের পাওয়া ৩০৬ ইলেকটোরাল ভোট এবারে তিনি অতিক্রম করবেন বলেও উল্লেখ করেন ট্রাম্প।

আগে নয়, নির্বাচনে জয়ের পরই নিজেকে বিজয়ী ঘোষণা করবেন বলে মন্তব্য করেছেন ট্রাম্প। তিনি বলেন, এ নিয়ে খেলার কোনো কারণ নেই। তাঁর বিজয়ের শক্ত কারণ রয়েছে এবং তিনিই জয়ী হবেন।

প্রচারের শেষ দুই দিনে ১০টি সভায় বক্তব্য রেখেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। আজ মঙ্গলবার ভোররাতেও তিনি মিশিগানে প্রচার সভা করেছেন।

আজ দুপুর পর্যন্ত কোথাও বড় ধরনের কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। মিশিগান, পেনসিলভানিয়া, উইসকনসিন, জর্জিয়া , অ্যারিজোনা, ওহাইওসহ ব্যাটলগ্রাউন্ড অঙ্গরাজ্যগুলোতে উত্তেজনা রয়েছে। দিনের মধ্যভাগে ভোটকেন্দ্রে দীর্ঘ লাইন পড়েছে বলেও জানা যাচ্ছে।

ট্রাম্প হোয়াইট হাউসে থাকবেন সন্ধ্যার পর থেকে। সেখানে চার-পাঁচ শ লোককে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। হোয়াইট হাউস থেকেই তিনি তাঁর বিজয় বার্তা দিতে চান। আর জো বাইডেন সন্ধ্যার পর থাকবেন নিজ শহরে। করোনা মহামারির কারণে সেখানেও সীমিত লোকজনের উপস্থিতি থাকবে বলে তাঁর প্রচার শিবির থেকে জানানো হয়েছে।

ডেমোক্র্যাট সমর্থকেরা আশা করছেন জো বাইডেন ডেলাওয়্যার অঙ্গরাজ্যের নিজ বাড়ি থেকেই ‘ট্রাম্পের আমেরিকার অবসান ঘটেছে’ বলে ঘোষণা দিতে চান। যদিও আগাম ভোটের গণনা নিয়ে সংশয় যাচ্ছে না। প্রায় সব সংবাদমাধ্যমে বলা হচ্ছে, নির্বাচনের নিশ্চিত ফলাফল পেতে সপ্তাহ পর্যন্ত লাগতে পারে। এ নিয়ে আইনি লড়াই হতে পারে। চূড়ান্ত ফল পেতে আদালতের দরজায় কড়া নাড়ার প্রয়োজন পড়তে পারে বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করা হচ্ছে।

মন্তব্য পড়ুন 0