default-image

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম প্রেসিডেন্ট হতে যাচ্ছেন, যিনি ক্ষমতা গ্রহণের ১০০ দিনের মধ্যে ১০ লাখ নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে যাচ্ছেন।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ডোনাল্ড ট্রাম্পই প্রথম প্রেসিডেন্ট ছিলেন যিনি ক্ষমতা গ্রহণের সময় থেকে ক্ষমতা ছেড়ে যাওয়া পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি বেকারত্ব রেখে গেছেন। ক্ষমতা গ্রহণের সময়ের চেয়ে ৩০ লাখের বেশি লোককে কর্মহীন রেখে গত ২০ জানুয়ারি ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমতা থেকে বিদায় নিয়েছিলেন।

গত বছরের মার্চ মাস থেকে কোভিড-১৯ সংক্রমণ শুরু হলে যুক্তরাষ্ট্রের শ্রমবাজার বিপর্যস্ত হয়ে ওঠে। ২০২০ সালের মার্চ মাসে কর্মহীনতার হার ছিল সাড়ে ৩ শতাংশ। পরে সেই হার দ্রুত ১৪ দশমিক ৮ শতাংশে পৌঁছায়। যুক্তরাষ্ট্রের কর্মজীবীদের মধ্যে তীব্র বেকারত্ব অর্থনৈতিক পরিস্থিতিকে নাজুক করে তোলে। একের পর এক নাগরিক প্রণোদনা দিয়ে পরিস্থিতি সামাল দিতে হয়ে।

ক্ষমতা গ্রহণ করেই প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন তৃতীয় দফা নাগরিক প্রণোদনা ঘোষণা করেন। ক্ষুদ্র ব্যবসা এবং কর্মজীবীদের জন্য উদার প্রণোদনা ঘোষণার ফলে ধীরে ধীরে চাঞ্চল্য ফিরে আসছে অর্থনীতিতে। বেকারত্বের হারও কমে আসছে।

বিজ্ঞাপন
ক্ষমতা গ্রহণের ১০০ দিনের মধ্যেই জো বাইডেন ১০ লাখ নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে পারবেন। তাঁর অবকাঠামো উন্নয়ন প্রতিকল্পনা ও জ্বালানি পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হলে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে বেকারত্বের হার দ্রুতই সর্বনিম্ন পর্যায়ে পৌঁছাবে
জেন সাকি, হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি

গত মার্চ মাসে যুক্তরাষ্ট্রের শ্রম বাজারে ৯ লাখ ১৬ হাজার নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি হয়েছে। প্রতি সপ্তাহেই কমসংখ্যক বেকার ভাতার আবেদন জমা পড়ছে। যদিও ২০২০ সালের মার্চের অবস্থায় ফিরে যাওয়ার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের শ্রম বাজারে ৮০ লাখ নতুন কর্মসংস্থানের প্রয়োজন।

হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি জেন সাকি বলেছেন, ক্ষমতা গ্রহণের ১০০ দিনের মধ্যেই জো বাইডেন ১০ লাখ নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে পারবেন। তাঁর অবকাঠামো উন্নয়ন প্রতিকল্পনা ও জ্বালানি পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হলে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে বেকারত্বের হার দ্রুতই সর্বনিম্ন পর্যায়ে পৌঁছাবে।

ওয়াশিংটন এক্সামিনার পত্রিকাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জেন সাকি বলেছেন, প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের অর্থনৈতিক পরিকল্পনার সমালোচকেরা আগের প্রশাসনের লোকজন। যাদের তত্ত্বাবধানে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি বেকারত্বের সৃষ্টি হয়েছিল।

ওয়াশিংটন এক্সামিনারের এ সংক্রান্ত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত বছরের মাঝামাঝি সময়ে বেকারত্বের হার চরম পর্যায়ে পৌঁছেছিল। অবশ্য সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমতা ছাড়ার আগেই অর্থনীতিতে ১২ লাখ নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে তিনি সক্ষম হয়েছিলেন।

নানা কারণে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে ডোনাল্ড ট্রাম্প আলোচিত হবেন। করোনা মহামারিকে দায়ী করা হলেও ক্ষমতা গ্রহণের সময় থেকে ক্ষমতা ত্যাগের সময়ে সবচেয়ে বেশি বেকারত্বের রেকর্ড নিয়েও আলোচনা হবে।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন