default-image

যুক্তরাষ্ট্রে করোনা প্রতিরোধে উচ্চ মান সম্পন্ন স্যানিটাইজার তৈরি করে প্রযুক্তি ও প্রকৌশল বিভাগে অবদানের জন্য বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মার্কিন বিজ্ঞানী মাহমুদ হুসাইন দ্য সোসাইটি অব এশিয়ান সায়েন্টিস্টস অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ার্স কর্তৃক সম্মানিত হয়েছেন।

মিশিগান অঙ্গরাজ্যে বসবাসরত মাহমুদ বিখ্যাত কেমিক্যাল কোম্পানি বিএএসএফের একজন বিজ্ঞানী। তাঁর নেতৃত্বে তৈরি হ্যান্ডক্ল্যাসপ নামের স্যানিটাইজার কানাডাসহ যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন রাজ্যের হাসপাতালে ব্যবহারের অনুমতি পেয়েছে। এ কারণে দ্য সোসাইটি অব এশিয়ান সায়েন্টিস্টস অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ার্স তাঁকে সম্মাননা জানিয়েছে।

বিজ্ঞাপন
২০১৭ সালে বিএএসএফে সিনিয়র সায়েন্টিস্ট হিসেবে যোগ দেন মাহমুদ হোসাইন। একজন তরুণ গবেষক হিসেবে ইতিমধ্যে তাঁর ১০টি পেটেন্টসহ প্রায় ৩০টি বৈজ্ঞানিক প্রবন্ধ বিশ্বের শীর্ষ আন্তর্জাতিক জার্নালে প্রকাশ হয়

করোনা মহামারি শুরুর সময় যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স করোনা টাস্কফোর্স গঠন করে বিএএসএফ কেমিক্যাল ল্যাবরেটরির কাছে সহায়তা চান। এর প্রেক্ষিতে বিএএসএফের অ্যাম্পিফিলিক সিস্টেমস রিসার্চের এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট বেনেডিক্ট রাথারের পরামর্শে মাত্র চার দিনেই মাহমুদ হোসাইন ও তাঁর টিম হ্যান্ডক্ল্যাসপ নামে উচ্চ মান সম্পন্ন স্যানিটাইজার তৈরি করে। এফডিএ অনুমোদিত এই স্যানিটাইজারটি পরে কানাডাসহ যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন রাজ্যের হাসপাতালে ব্যবহারের অনুমতি দেওয়া হয়।

মাহমুদ হোসাইন ২০১১ সালে ইউনিভার্সিটি অব পেনসিলভানিয়া থেকে অরগানিক কেমিস্ট্রিতে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন এবং হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কেমিক্যাল বায়োলজিতে পোস্ট ডক ফেলো হিসেবে প্রায় তিন বছর ধরে গবেষণা করেন।

২০১৭ সালে বিএএসএফে সিনিয়র সায়েন্টিস্ট হিসেবে যোগ দেন মাহমুদ হোসাইন। একজন তরুণ গবেষক হিসেবে ইতিমধ্যে তাঁর ১০টি পেটেন্টসহ প্রায় ৩০টি বৈজ্ঞানিক প্রবন্ধ বিশ্বের শীর্ষ আন্তর্জাতিক জার্নালে প্রকাশ হয়।

মুহাম্মদ মুশাররফ হুসাইন ও মাহমুদা মুশাররফের একমাত্র ছেলে মাহমুদ হুসাইন।

মন্তব্য পড়ুন 0