default-image

ফাইজারের তৈরি করোনাভাইরাসের (কোভিড ১৯) টিকা প্রয়োগ করার অন্তত ছয় মাস পর্যন্ত শরীরে করোনার বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়তে সক্ষম বলে ঘোষণা দিয়েছে মার্কিন ওষুধ প্রস্তুতকারী এই প্রতিষ্ঠান।

মার্কিন বহুজাতিক ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান ফাইজারের সঙ্গে এই টিকা তৈরিতে কাজ করছে জার্মান প্রতিষ্ঠান ‘বায়োএনটেক’।

গত সপ্তাহে ফাইজার ও বায়োটেক জানিয়েছে, ৪৪ হাজার মানুষের ওপর প্রয়োগ করা টিকার ফলাফল বিশ্লেষণ করে নিশ্চিত হওয়া গেছে যে, করোনার সংক্রমণ প্রতিরোধে শরীরে ছয় মাস পরেও ফাইজারের কার্যকর প্রতিরোধ রাখতে সক্ষম।

সর্বশেষ তথ্য বিশ্লেষণে দেখা গেছে, ফাইজারের টিকা উপসর্গময় সংক্রমণের ক্ষেত্রে ৯১ শতাংশ কার্যকর।

ফাইজার জানিয়েছে, তাঁদের টিকায় এখন পর্যন্ত কোনো গুরুতর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি এবং এই টিকা করোনার ভিন্ন ধরন বিশেষ করে দক্ষিণ আফ্রিকার ধরনের ক্ষেত্রেও কার্যকর বলে প্রমাণ পাওয়া গেছে।

যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র ফাইজারের টিকা সর্বপ্রথম জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন দেয়। করোনায় সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর দেশ যুক্তরাষ্ট্রে ফাইজার, মর্ডানা ও জনসনের টিকা দেওয়া হচ্ছে। আগামী ১ মের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের সব প্রাপ্ত বয়স্ক লোকজনের জন্য টিকা সরবরাহ নিশ্চিত করার ঘোষণা দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ইতিমধ্যে করোনার টিকা দেওয়ার ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে রেকর্ড হয়েছে। ২ এপ্রিল একদিনে দেশে ৪০ লাখ ৮০ হাজার মানুষকে টিকা দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া গত সপ্তাহেও প্রতিদিন গড়ে ৩০ লাখের বেশি টিকা দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন