default-image

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে পেনসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যে ভোট স্বস্তির হয়নি বলে মন্তব্য করেছে নির্দলীয় নির্বাচক পর্যবেক্ষকেরা।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনের প্রতিবেদনে বলা হয়, পেনসিলভানিয়ায় ভোটারেরা ভোট দেওয়ার ক্ষেত্রে কিছু সমস্যার মুখে পড়েছেন। নির্বাচন পর্যবেক্ষণকারী প্রতিষ্ঠান ‘কমন কজ পেনসিলভানিয়া’-এর নির্বাহী পরিচালক সুজান আলমেইডা জানান, ভোট দেওয়ার ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য বাধা ছিল। বিপর্যয়কর না হলে অনেক স্থানেই ভোটারেরা অস্বস্তিতে ছিলেন। তারপরও মানুষ কেন্দ্রে এসে ভোট দিয়েছে।

নির্বাচন পর্যবেক্ষণকারী কয়েকটি দল সেন্টার ফর পপুলার ডেমোক্রেসির সিভিক অ্যাঙ্গেজমেন্ট অ্যান্ড পলিটিক্যাল ম্যানেজার সালেওয়া ওগুনমেফুন সিএনএনকে বলেন, সশস্ত্র পুলিশের উপস্থিতির কারণে অনেক স্থানেই ভোটারেরা আতঙ্ক বোধ করেছেন। ভোটারদের মতে, তারা এমনভাবে অস্ত্র বহন করছিল, যা অস্বস্তি জাগায়।

বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ে সুজান আলমেইডা বলেন, একটি নির্বাচন তখনই সফল হয়, যখন প্রতিটি ভোটার ভোট দিতে পারেন এবং ভোটকেন্দ্রের পরিবেশ তার জন্য ইতিবাচক থাকে। ৩ নভেম্বর তেমনটি দেখা যায়নি। তবে বড় কোনো বিপর্যয়ও হয়নি।’

এ ছাড়া ভাষাগত কিছু সমস্যাও ছিল। অঙ্গরাজ্যটির ইয়র্ক, লেহাই ও বার্কস কাউন্টিতে ভোটারদের সহায়তা করতে আসা স্বেচ্ছাসেবকদের বিরুদ্ধে ভোটারদের বিভ্রান্ত করার অভিযোগ উঠেছে।

তবে একই সঙ্গে এই নির্বাচন কিছু কারণে বিশেষ হয়ে উঠেছে। এত অল্প সময়ের ব্যবধানে ভোটার নিবন্ধনের সময়সীমা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া ও কার্যকর করাটা খুব কঠিন ছিল।

এ বিষয়ে পেনসিলভানিয়ার গভর্নর কার্যালয়সহ প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের সঙ্গে যোগাযোগ করেও কোনো সাড়া এখনো পায়নি সিএনএন।

মন্তব্য পড়ুন 0