default-image

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, আসছে নির্বাচনে ডেমোক্রেটিক দলের প্রার্থীর কাছে হেরে গেলে তাঁকে হয়তো দেশ থেকে চলে যেতে হবে।

১৬ অক্টোবর জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যের ম্যাকোন শহরে আয়োজিত নির্বাচনী প্রচার সমাবেশে কৌতুক করে ট্রাম্প এ কথা বলেন।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, তিনি আশাবাদ ছড়িয়ে দিচ্ছেন। প্রত্যাশা আর অবারিত সুযোগ সৃষ্টি করার কাজ তিনি করে যাচ্ছেন।

ডেমোক্রেটিক দলের প্রার্থী জো বাইডেনের সভায় মাস্ক পরা ও সামাজিক ব্যবধান মেনে চলার বিষয় নিয়ে ট্রাম্প আবারও বিদ্রূপ করেন। এদিকে প্রচার সমাবেশে উপস্থিত তাঁর উচ্ছ্বসিত সমর্থকদের অনেকেরই মাস্ক ছিল না। সামাজিক ব্যবধান মেনে চলারও কোনো প্রয়াস ছিল না সমাবেশে।

বিজ্ঞাপন

সমাবেশে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, এসব নিয়ে কৌতুক করা ঠিক হচ্ছে না। আমেরিকার ইতিহাসের সবচেয়ে খারাপ প্রেসিডেন্ট প্রার্থীর সঙ্গে তিনি নির্বাচনে লড়ছেন। এ কারণেই তিনি বেশ চাপে আছেন।

উপস্থিত সমর্থকদের উদ্দেশে ট্রাম্প বলেন, ‘আমি নির্বাচনে হারলে কী হবে আপনারা ভাবতে পারেন? সারা জীবন আমি কী করব? আমেরিকার ইতিহাসের সবচেয়ে খারাপ প্রার্থীর কাছে হারার বিষয়টা বাকি জীবন আমি কীভাবে বয়ে বেড়াব? এ নিয়ে খুব ভালো বোধ করব না। জানি না, হয়তো আমাকে দেশটাই ছেড়ে যেতে হবে।’

গত মাসে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প নর্থ ক্যারোলাইনার এক সমাবেশে বলেছিলেন, বাইডেনের সঙ্গে হেরে গেলে কী করবেন, তা তিনি জানেন না। হয়তো কারও সঙ্গে আর কোনো দিন কথাই বলবেন না।

নর্থ ক্যারোলাইনায় ট্রাম্পের দেওয়া বক্তব্যের ভিডিও ক্লিপটি পরে ডেমোক্রেটিক দল তাদের নির্বাচনী বিজ্ঞাপনে কাজে লাগিয়েছে।

বিজ্ঞাপন
আমি নির্বাচনে হারলে কী হবে আপনারা ভাবতে পারেন? সারা জীবন আমি কী করব? আমেরিকার ইতিহাসের সবচেয়ে খারাপ প্রার্থীর কাছে হারার বিষয়টা বাকি জীবন আমি কীভাবে বয়ে বেড়াব? এ নিয়ে খুব ভালো বোধ করব না। জানি না, হয়তো আমাকে দেশটাই ছেড়ে যেতে হবে।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প

২০১৬ সালের নির্বাচনে জর্জিয়া রাজ্যে পাঁচ শতাংশের বেশি ভোট পেয়েছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। এবারে নির্বাচনের দুই সপ্তাহ আগে দেখা যাচ্ছে, এ রাজ্যে জনমত জরিপে গড়ে দুই শতাংশ জনপ্রিয়তায় এগিয়ে আছেন জো বাইডেন। রিপাবলিকান সমর্থকেরাও মনে করছেন, জর্জিয়ার মতো রিপাবলিকান চিহ্নিত রাজ্যে ট্রাম্পের জনপ্রিয়তা কমে যাওয়া ভালো কোনো লক্ষণ নয়।

মন্তব্য পড়ুন 0