করোনাভাইরাসের রেশ কাটতে না কাটতেই নিউইয়র্কসহ নানা নগরীতে আতশবাজি প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে। সন্ধ্যার পরপরই এসব আতশবাজির তাণ্ডব শুরু হয়। বিকট শব্দে ঘুমের ব্যাঘাত ঘটছে শিশুদের।

শুধু নিউইয়র্ক নয়, আমেরিকার বিভিন্ন স্থানেই অবৈধ আতশবাজি পোড়ানোর অভিযোগ বেড়েছে। বেড়ে চলেছে ৯১১-এ কলের সংখ্যা। নিউইয়র্কে এখন পর্যন্ত এক হাজারের বেশি এমন অভিযোগ জমা পড়েছে। আর বোস্টনে এসংখ্যা ছয় হাজার ছাড়িয়ে গেছে। বয়স্ক লোকেরা ভীষণ আতঙ্কে সময় অতিবাহিত করছেন। নিউইয়র্কের কুইন্সে অনেকের বাড়ির জানালায় আতশবাজির ফুলকি ঝরে পড়ার খবর পাওয়া গেছে।

ফোর্থ জুলাই আসার অনেক আগেই এসব আতশবাজি ফুটানো চালু হওয়ায় নগরবাসীর অনেকে বোমা ফাটার আতঙ্কে ভুগছেন। আতশবাজির দোকান মালিকেরা বিষয়টি স্বীকার করেছেন। এ ব্যাপারে নিউইয়র্কের মেয়র বিল ডি ব্লাজিওর দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে মেয়র স্পেশাল টাস্কফোর্স গঠনের পরামর্শ দিয়েছেন। ব্রুকলিন বরো প্রেসিডেন্ট এরিক অ্যাডাম মনে করেন, অবৈধ আতশবাজি বন্ধে জনসমর্থন গড়ে পুলিশি নজরদারি বাড়ানোর প্রয়োজন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0