তোপের মুখে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী পম্পেও

বিজ্ঞাপন
default-image

রিপাবলিকান দলের কনভেনশনে বক্তব্য দেওয়া নিয়ে তোপের মুখে পড়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। এ ঘটনায় দেশের শীর্ষ এই কূটনীতিকের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করা হয়েছে। রিপাবলিকান দলের কনভেনশনের দ্বিতীয় দিনে মাইক পম্পেওর রেকর্ড করা বক্তব্য সম্প্রচার করা হয়।

প্রতিনিধি পরিষদে টেক্সাস থেকে নির্বাচিত ডেমোক্রেট জ্যাকুইন ক্যাস্ট্রো এ নিয়ে তদন্ত করার ঘোষণা দিয়েছেন। তিনি এ নিয়ে বিস্তারিত তথ্য চেয়ে ডেপুটি সেক্রেটারি অব স্টেট স্টিফেন বেইগানের কাছে চিঠি দিয়েছেন। জ্যাকুইন ক্যাস্ট্রো কংগ্রেসের বিদেশ বিষয়ক প্যানেল সাব-কমিটির চেয়ারম্যান।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও কূটনৈতিক সফরে থাকা অবস্থায় রিপাবলিকান দলের কনভেনশনের জন্য বক্তব্য রেকর্ড করেছেন। ডেমোক্রেট দল থেকে অভিযোগ করা হয়েছে, জেরুসালেমে পম্পেও সরকারি সফরে থাকা অবস্থায় বক্তব্য রেকর্ড করেছেন। তিনি কোনো বিশেষ দলের রাজনৈতিক মঞ্চের জন্য বক্তব্য দিতে পারেন না। এমন কাজ মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের নীতিমালা ও প্রথার বিরুদ্ধে। জেরুসালেমের মতো পবিত্র নগরী থেকে রিপাবলিকান দলের কনভেনশনের জন্য এমন বক্তব্য রেকর্ড করায় ডেমোক্রেট দলের তোপের মুখে পড়েছেন মাইক পম্পেও।

জ্যাকুলিন ক্যাস্ট্রো বলেছেন, পম্পেও দেশের প্রেসিডেন্ট কর্তৃক মনোনীত শীর্ষ ডিপ্লোম্যাট হিসেবে নিয়মের লঙ্ঘন করেছেন। মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নীতিমালায় বলা আছে, বিদেশ ভ্রমণের সময় নির্বাচন নিয়ে কোনো দলের পক্ষে এমন কোনো কার্যক্রম তিনি করতে পারেন না।

পম্পেও দেশের প্রেসিডেন্ট কর্তৃক মনোনীত শীর্ষ ডিপ্লোম্যাট হিসেবে নিয়মের লঙ্ঘন করেছেন। মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নীতিমালায় বলা আছে, বিদেশ ভ্রমণের সময় নির্বাচন নিয়ে কোনো দলের পক্ষে এমন কোনো কার্যক্রম তিনি করতে পারেন না।
জ্যাকুলিন ক্যাস্ট্রো
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

কংগ্রেসের বিদেশ বিষয়ক কমিটির ২০১৯ সালের একটি স্মারকে বলা হয়েছে, সিনেটে নিশ্চিত হওয়া ও প্রেসিডেন্ট কর্তৃক নিয়োগ পাওয়া কোনো ব্যক্তি কোনো রাজনৈতিক দলের কনভেনশন বা কনভেনশন সংক্রান্ত কোনো কার্যক্রমে যোগ দিতে পারবেন না।

জ্যাকুলিন ক্যাস্ট্রো পররাষ্ট্র দপ্তরে দেওয়া চিঠিতে ২৫ আগস্ট দ্বিতীয় আরেকটি স্মারকের উল্লেখ করেছেন। যে স্মারকে বলা হয়েছে, একজন ক্ষমতায় থাকা পররাষ্ট্রমন্ত্রী করদাতা নাগরিকদের কোনো কার্যক্রমের সময় রাজনৈতিক দলের কনভেনশনে যোগদান করাটাও গ্রহণযোগ্য নয়। পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগের পর মাইক পম্পেওর কাছে এমন স্মারক পাঠানো হয়েছে। তিনি এ স্মারকে স্বাক্ষরও করেছেন।

সিনেটে নিশ্চিত হওয়া ও প্রেসিডেন্ট কর্তৃক নিয়োগ পাওয়া কোনো ব্যক্তি কোনো রাজনৈতিক দলের কনভেনশন বা কনভেনশন সংক্রান্ত কোনো কার্যক্রমে যোগ দিতে পারবেন না
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জ্যাকুলিন ক্যাস্ট্রো পররাষ্ট্র দপ্তরকে ১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে বিষয়টির জবাব দেওয়ার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন। এ সম্পর্কে আর কোনো নথিপত্র থাকলে তা কমিটির কাছে উপস্থাপন করার জন্য ১০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সময় দেওয়া হয়েছে। মাইক পম্পেওর এমন বক্তব্যে ইসরায়েল সরকারের কেউ কোনো প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন কিনা, তাও ডেমোক্রেট দলের আইনপ্রণেতারা পররাষ্ট্র দপ্তরের কাছে জানতে চেয়েছেন।

রিপাবলিকান শিবির থেকে জানানো হয়েছে, মাইক পম্পেওর বক্তব্য দেওয়ার ঘটনায় তাঁর ব্যক্তিগত আইনজীবী, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আইনজীবী এবং দলের আইনজীবীদের ছাড়পত্র দেওয়া আছে।

মাইক পম্পেওর বক্তব্যে ইসরায়েল সরকারের কেউ কোনো প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন কিনা, তাও ডেমোক্রেট দলের আইনপ্রণেতারা পররাষ্ট্র দপ্তরের কাছে জানতে চেয়েছেন
বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন