default-image

নির্বাচনের ঠিক আগে আগে ব্যাটলগ্রাউন্ড হিসেবে পরিচিত তিন সুইং স্টেটে ডেমোক্রেটিক দলের মনোনীত প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ও সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রতি ভোটারদের সমর্থন বেড়েছে। মিশিগান, পেনসিলভানিয়া ও উইসকনসিনে জনসমর্থনে ট্রাম্পের সঙ্গে ব্যবধান বাড়িয়েছেন বাইডেন।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স ও ইপসস পরিচালিত সর্বশেষ জনমত জরিপে দেখা গেছে, এই তিন সুইং স্টেটে বাইডেনের প্রতি ভোটার সমর্থন বেড়েছে। গত ২৭ অক্টোবর থেকে ১ নভেম্বর পর্যন্ত পরিচালিত জরিপের তথ্য অনুযায়ী, ভোটার সমর্থন বিচারে বাইডেন ট্রাম্প থেকে মিশিগান ও উইসকনসিনে ১০ শতাংশ পয়েন্টের ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছেন। পেনসিলভানিয়ায় এ ব্যবধান ৭ শতাংশ পয়েন্ট।

রয়টার্স জানায়, গত সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি থেকে এই তিন অঙ্গরাজ্যে বার্তা সংস্থাটির পরিচালিত সব জরিপেই এগিয়ে রয়েছেন বাইডেন। গত দুই সপ্তাহে তিনটির প্রতিটিতেই তাঁর প্রতি সমর্থন ধারাবাহিকভাবে বেড়েছে।

রয়টার্স/ইপসস ছয়টি অঙ্গরাজ্যের সম্ভাব্য ভোটারদের মধ্যে জনমত জরিপ চালিয়েছে। এবারের নির্বাচনের ফল নির্ধারণী হিসেবে বিবেচিত এই ছয় অঙ্গরাজ্য হলো উইসকনসিন, পেনসিলভানিয়া, মিশিগান, নর্থ ক্যারোলাইনা, ফ্লোরিডা ও অ্যারিজোনা। এ অঙ্গরাজ্যগুলোর বেশ কয়েকটিতে বাইডেনের অবস্থান বেশ শক্ত। জরিপে প্রতিটি অঙ্গরাজ্যেই মার্জিন অব এরর ধরা হয়েছে ৪ শতাংশ পয়েন্ট করে।

মিশিগান

মিশিগানের সম্ভাব্য ভোটারদের একটি বড় অংশ বাইডেনকে সরাসরি সমর্থন জানাচ্ছেন। রয়টার্স/ইপসস পরিচালিত সর্বশেষ এ জরিপে অংশ নিয়েছেন ১ হাজার ৭ জন। অংশগ্রহণকারীদের ৫২ শতাংশ বাইডেনকে ভোট দেবেন বলে জানিয়েছেন। আর ট্রাম্পকে সমর্থন জানিয়েছেন ৪২ শতাংশ। আগের সপ্তাহে বাইডেন ট্রাম্প থেকে ৯ শতাংশ পয়েন্টে এগিয়ে ছিলেন, যা এখন ১০ শতাংশ পয়েন্ট। অংশগ্রহণকারীদের ৩৭ শতাংশই এরই মধ্যে ভোট দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন
জনমত জরিপে বাইডেন প্রতিদ্বন্দ্বী ট্রাম্পের চেয়ে এগিয়ে থাকলেও অর্থনীতি পুনরুদ্ধারে ভিন্ন কথা বলছেন ভোটাররা। এ ক্ষেত্রে তারা আস্থা রাখছে ট্রাম্পের ওপর

এই অঙ্গরাজ্যের সম্ভাব্য ভোটারদের মধ্যে ৫২ শতাংশ করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় বাইডেনের ওপর আস্থা রেখেছেন। ট্রাম্পের প্রতি এই আস্থার হার ৪০ শতাংশ। কিন্তু অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের ক্ষেত্রে ট্রাম্পের ওপর আস্থা রাখেন বেশিসংখ্যক মানুষ। জরিপে অংশ নেওয়া সম্ভাব্য ভোটারদের ৪৮ শতাংশই এ প্রশ্নে ট্রাম্পের ওপর আস্থা রেখেছেন। এ ক্ষেত্রে বাইডেনের ওপর আস্থা রেখেছেন ৪৪ শতাংশ সম্ভাব্য ভোটার।

উইসকনসিন

গুরুত্বপূর্ণ এই অঙ্গরাজ্যেও রয়টার্স/ইপসস ১ হাজার ৭ জন সম্ভাব্য ভোটারের ওপর জরিপ চালিয়েছে। জরিপের ফল বলছে, সম্ভাব্য ভোটারদের ৫৩ শতাংশ বাইডেনকে এবং ৪৩ শতাংশ ট্রাম্পকে ভোট দেবেন বলে জানিয়েছেন। এরই মধ্যে ভোট দিয়ে ফেলেছেন ৪১ শতাংশ। এই অঙ্গরাজ্যেও গত সপ্তাহে বাইডেন ট্রাম্প থেকে ৯ শতাংশ পয়েন্টে এগিয়ে ছিলেন, যা এখন ১০ শতাংশ পয়েন্ট। এখানেও করোনা মোকাবিলায় বাইডেনের ওপর আস্থা রাখা মানুষের সংখ্যা বেশি হলেও অর্থনীতির প্রশ্নে ট্রাম্পের দিকে ঝোঁকার প্রবণতা বেশি। জরিপে অংশ নেওয়া ভোটারদের ৫২ শতাংশ করোনা প্রশ্নে বাইডেনের ওপর আস্থা রাখছেন, যেখানে ট্রাম্পের ওপর আস্থার হার ৩৮ শতাংশ। তবে অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের প্রশ্নে বাইডেনের প্রতি আস্থার হার ৪৫ শতাংশ হলেও ট্রাম্পের ওপর আস্থা রাখছেন ৪৭ শতাংশ সম্ভাব্য ভোটার।

পেনসিলভানিয়া

এই অঙ্গরাজ্যে ১ হাজার ৬ জন সম্ভাব্য ভোটারের ওপর জরিপ চালিয়েছে রয়টার্স/ইপসস। এদের মধ্যে ৫১ শতাংশ বাইডেনকে এবং ৪৪ শতাংশ ট্রাম্পকে ভোট দেবেন বলে জানিয়েছেন। এদের মধ্যে ২৫ শতাংশ এরই মধ্যে ভোট দিয়েছেন। এখানেও বাইডেনের প্রতি ভোটার সমর্থন বেড়েছে। আগের সপ্তাহে বাইডেন ট্রাম্প থেকে ৫ শতাংশ পয়েন্টের ব্যবধানে এগিয়ে থাকলেও এখন তিনি ৭ শতাংশ পয়েন্টের ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছেন।

পেনসিলভানিয়াতেও ৫১ শতাংশ সম্ভাব্য ভোটার করোনা প্রশ্নে বাইডেনের ওপর আস্থা রাখছেন। এই প্রশ্নে ট্রাম্পের প্রতি আস্থার হার ৪০ শতাংশ। তবে অর্থনীতি প্রশ্নে এখানেও ট্রাম্প এগিয়ে। এ ক্ষেত্রে ট্রাম্পের ওপর আস্থা রাখছেন ৪৮ শতাংশ এবং বাইডেনের ওপর আস্থা রাখছেন ৪৬ শতাংশ সম্ভাব্য ভোটার।

ফ্লোরিডা

ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যে রয়টার্স/ইপসস সর্বশেষ জরিপটি চালিয়েছে গত ২১-২৭ অক্টোবর। এতে দেখা গেছে, দুই প্রার্থীর প্রতি ভোটার সমর্থন অনেক কাছাকাছি। অঙ্গরাজ্যটির ১ হাজার ৬ জন সম্ভাব্য ভোটারের মধ্যে পরিচালিত জরিপে দেখা গেছে, ৪৯ শতাংশের সমর্থন বাইডেনের দিকে। আর ট্রাম্পের প্রতি সমর্থন রয়েছে ৪৭ শতাংশের। এই অঙ্গরাজ্যে এর আগে পরিচালিত জরিপে দুজনের মধ্যে ব্যবধান ছিল ৪ শতাংশ পয়েন্টের, যা এখন ২ শতাংশ পয়েন্টে নেমে এসেছে।

ফ্লোরিডার জরিপে অংশ নেওয়া সম্ভাব্য ভোটারদের ৩২ শতাংশ জানিয়েছেন, তাঁরা এরই মধ্যে ভোট দিয়েছেন। এখানে করোনা মোকাবিলা ও অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের প্রশ্নে একই চিত্র দেখা গেছে। জরিপে অংশগ্রহণকারীদের ৪৮ শতাংশ করোনা মোকাবিলায় বাইডেনের ওপর আস্থা রেখেছেন। ট্রাম্পের ক্ষেত্রে এ আস্থার হার ৪২ শতাংশ। আর অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের প্রশ্নে ট্রাম্প ও বাইডেনের প্রতি আস্থার হার যথাক্রমে ৫২ ও ৪১ শতাংশ।

অ্যারিজোনা

অ্যারিজোনায় গত ২১-২৭ অক্টোবর ১ হাজার ৭ জন সম্ভাব্য ভোটারের মধ্যে সর্বশেষ জরিপ চালানো হয়। এতে দেখা গেছে, ট্রাম্প বাইডেনের প্রতি ভোটার সমর্থনের হার যথাক্রমে ৪৬ ও ৪৮ শতাংশ। অঙ্গরাজ্যটিতে ভোটার সমর্থনের দিক থেকে দুই প্রার্থী সমানে-সমান বলা যায়। অঙ্গরাজ্যটির ৩৭ শতাংশ ভোটার এরই মধ্যে ভোট দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় এখানেও জো বাইডেনের ওপর বেশিসংখ্যক ভোটার আস্থা রেখেছেন। জরিপে অংশগ্রহণকারীদের ৫০ শতাংশই এই প্রশ্নে বাইডেনের ওপর আস্থা রাখছেন। আর ট্রাম্পের ওপর একই প্রশ্নে আস্থা রাখছেন ৪২ শতাংশ ভোটার। অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের ক্ষেত্রে চিত্রটি ঠিক ভিন্ন। এই প্রশ্নে ট্রাম্প ও বাইডেনের ওপর আস্থার হার যথাক্রমে ৫০ ও ৪৪ শতাংশ।

নর্থ ক্যারোলাইনা

এই অঙ্গরাজ্যে গত ২১-২৭ অক্টোবর ১ হাজার ৬ জন সম্ভাব্য ভোটারের মধ্যে সর্বশেষ জরিপ চালায় রয়টার্স/ইপসস। এর মধ্যে বাইডেন ও ট্রাম্পকে ভোট দেবেন বলে জানিয়েছেন যথাক্রমে ৪৯ ও ৪৮ শতাংশ। অ্যারিজোনার মতো এখানেও দুজনের অবস্থান সমানে-সমান। অংশগ্রহণকারীদের ৩৫ শতাংশ এরই মধ্যে ভোট দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

নর্থ ক্যারোলাইনায় করোনা মোকাবিলা প্রশ্নে বাইডেন ও ট্রাম্পের প্রতি আস্থার হার যথাক্রমে ৪৮ ও ৪৪ শতাংশ। আর অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের প্রশ্নে চিত্রটি ঠিক বিপরীত। এই প্রশ্নে ট্রাম্প ও বাইডেনের ওপর আস্থা রাখা সম্ভাব্য ভোটারের হার যথাক্রমে ৫১ ও ৪৩ শতাংশ।

মন্তব্য পড়ুন 0