ট্রাম্পের পোস্ট নিয়ে ফেসবুক-টুইটারের আপত্তি কেন?

বিজ্ঞাপন

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের একটি ভিডিও বার্তা সরিয়ে দিয়েছে সামাজিক যোগাযোগের জনপ্রিয় মাধ্যম ফেসবুক। টুইটারও জানিয়েছে, ওই বার্তাটি সরিয়ে ফেলতে হবে। ফেসবুক পোস্টটিতে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ফক্স নিউজকে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারের ভিডিও ক্লিপ রয়েছে। যেখানে ট্রাম্প কোভিড-১৯ সংক্রমণের মধ্যেও স্কুল খুলে দেওয়ার কথা বলছিলেন। অল্পবয়সীদের স্কুলে উপস্থিত হয়ে ক্লাস করার কথা উল্লেখ করে ট্রাম্প বলেছিলেন, অল্পবয়স্ক লোকজন প্রায় বা নিশ্চিতভাবেই কোভিড-১৯ ভাইরাসের প্রতিরোধী।

ফেসবুকের মুখপাত্র লিজ বাইউরজিওয়াইস এক বিবৃতিতে বলেছেন, ভিডিও বার্তাটিতে দাবি করা হয়েছে, একটি জনগোষ্ঠী কোভিড-১৯ ভাইরাস প্রতিরোধী। কোভিড-১৯ সম্পর্কে বার্তাটি ভুল তথ্য দেয় এবং এটি তাঁদের নীতিমালার লঙ্ঘন।

একই ভিডিও ক্লিপটি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প টুইটার অ্যাকাউন্টেও পোস্ট করেন। টুইটারের মুখপাত্র লিজ কেলি বলেছেন, এ বার্তাটি টুইটারের নিয়ম লঙ্ঘন করেছে। অন্য কোনো বার্তা টুইট আকারে প্রকাশের আগে এ ভিডিও বার্তাটি সরিয়ে ফেলতে হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের প্রচার মুখপাত্র কর্টনি পেরেলা বলেছেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প কেবল সত্য কথা বলছিলেন। অল্পবয়স্কদের জন্য করোনাভাইরাস কম সংক্রমণের, এ কথাটিই বলেছেন তিনি। সিলিকন ভ্যালির লোকজন আবারও প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিরুদ্ধে তাঁদের স্বভাবজাত বৈরী অবস্থান প্রকাশ করেছে। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলো সত্যের পক্ষে ওকালতি করার জন্য।

সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল থেকে কখনো বলা হয়নি অল্প বয়স্করা কোভিড-১৯ থেকে সম্পূর্ণ নিরাপদ।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন