default-image

ক্যাপিটল হিল হামলায় উসকানির প্রেক্ষাপটে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ক্ষমতা থেকে অপসারণে যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধানের ২৫তম সংশোধনী প্রয়োগের পক্ষে প্রস্তাব প্রতিনিধি পরিষদে পাস হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার স্থানীয় সময় রাতে এ প্রস্তাব পাস হয়।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনের প্রতিবেদনে বলা হয়, এর আগে সংবিধানের ২৫তম সংশোধনী প্রয়োগের মাধ্যমে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ক্ষমতা থেকে অপসারণে উদ্যোগ গ্রহণের জন্য ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সকে আহ্বান জানানো হলেও তিনি এতে অস্বীকৃতি জানান। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পেন্স স্পষ্ট করে দেন যে, এ ধরনের কোনো পরিকল্পনা তাঁর নেই। এর কয়েক ঘণ্টা পর প্রস্তাবটি প্রতিনিধি পরিষদে উঠলে, তা পাস হয়।

মার্কিন সংবিধানের ২৫তম সংশোধনী প্রয়োগে মাইক পেন্সের অস্বীকৃতির প্রেক্ষাপটে আগে থেকেই প্রস্তুতি নিয়ে রাখা ডেমোক্র্যাটরা এখন অভিশংসন প্রস্তাব নিয়ে জোর কাজ করছেন। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে দ্বিতীয়বারের মতো অভিশংসনের লক্ষ্যে এরই মধ্যে প্রস্তাব প্রস্তুত। আজ বুধবার এই প্রস্তাবের ওপর প্রতিনিধি পরিষদে ভোট হওয়ার কথা রয়েছে।

সিএনএন জানায়, প্রতিনিধি পরিষদে ২৫তম সংশোধনী প্রয়োগের মাধ্যমে ট্রাম্পকে ক্ষমতা থেকে অপসারণের প্রস্তাবটি উত্থাপন করেন মেরিল্যান্ডের ডেমোক্রেটিক প্রতিনিধি জেমি রাসকিন। প্রস্তাবে মাইক পেন্সকে দ্রুততার সঙ্গে ২৫তম সংশোধনীর অনুচ্ছেদ ৪-এর প্রদত্ত ক্ষমতার প্রয়োগ করে মন্ত্রিসভা ও নির্বাহী বিভাগের কর্মকর্তাদের জাতির জন্য জরুরি হয়ে পড়া এই ঘোষণা দেওয়ার আহ্বান জানানোর অনুরোধ করা হয়েছে যে, প্রেসিডেন্ট তাঁর কার্যালয়ের দায়িত্ব সফলভাবে চালিয়ে নেওয়ার অযোগ্য। একই সঙ্গে ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব ও ক্ষমতা গ্রহণের জন্যও পেন্সকে আহ্বান জানানো হয়েছে প্রস্তাবে।

বিজ্ঞাপন

এই প্রস্তাব প্রতিনিধি পরিষদে ওঠার আগেই মাইক পেন্স প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসিকে পাঠানো এক চিঠিতে এই পদক্ষেপ থেকে সরে আসার আহ্বান জানান। ওই চিঠিতে পেন্স লেখেন, ‘প্রেসিডেন্টের মেয়াদের আর মাত্র আট দিন বাকি থাকতে আপনি ও আপনার ডেমোক্রেটিক ককাস মন্ত্রিসভা ও আমার কাছে ২৫তম সংশোধনী প্রয়োগের দাবি করছেন। এ ধরনের কোনো পদক্ষেপ জাতির বৃহত্তর স্বার্থে কিংবা সংবিধানের ধারাবাহিকতা রক্ষায় ভালো কিছু হবে বলে আমি বিশ্বাস করি না।’

এ অবস্থায় ট্রাম্পকে দ্বিতীয়বার অভিশংসনের পথে দ্রুত এগোচ্ছে ডেমোক্র্যাটরা। গতকাল মঙ্গলবার ন্যান্সি পেলোসি সিনেটে অভিশংসন শুনানি চলার সময় এই পক্ষের প্রতিনিধিত্বের জন্য সম্ভাব্য অভিশংসন ব্যবস্থাপক হিসেবে ডেমোক্র্যাট আইনপ্রণেতাদের নাম ঘোষণা করেছেন। এর মধ্যে প্রধান ব্যবস্থাপক হিসেবে রয়েছেন জেমি রাসকিন। এ ছাড়া রয়েছেন কলোরাডোর প্রতিনিধি ডায়ানা ডিগেট, রোড আইল্যান্ডের প্রতিনিধি ডেভিড সিসিলিন, ক্যালিফোর্নিয়ার এরিক সলওয়েল, টেক্সাসের জোয়াকিন ক্যাস্ট্রো, ক্যালিফোর্নিয়ার টেড লিউ, ইউএস ভার্জিন আইল্যান্ডের স্টেসি প্লাসকেট, কলোরাডোর জো নেগুজ ও পেনসিলভানিয়ার মেডেলিন ডিন।

তবে এবারের এই অভিশংসন প্রস্তাবের পক্ষে ডেমোক্র্যাটরা রিপাবলিকান আইনপ্রণেতাদের একটি অংশকেও পাশে পাবেন। একটি সূত্রের বরাত দিয়ে সিএনএন জানিয়েছে, প্রতিনিধি পরিষদের রিপাবলিকান সদস্য লিজ চেনি গত সোমবার নিজের সহকর্মীদের এক কনফারেন্স কলের মাধ্যমে বুধবারের অভিশংসন ভোটে ‘সচেতনভাবে ভোট’ দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। নভেম্বরের নির্বাচন ঘিরে ডোনাল্ড ট্রাম্পের ভুয়া তথ্য ছড়ানো ও নির্বাচনের ফল উল্টে দেওয়ার নানা চেষ্টার ঘোর বিরোধী হিসেবে সোজাসাপ্টা কথা বলা এই আইনপ্রণেতা আগেই অভিশংসনের পক্ষে ভোট দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

মন্তব্য করুন