default-image

বাংলাদেশ থেকে কানাডায় অভিবাসী হয়ে যাঁরা এসেছেন তাঁদের অনেকেই শিল্প, সংস্কৃতি চর্চায় নিবেদিত প্রাণ। দেশটিতে নানা মাধ্যমে তুলে ধরছেন নিজস্ব সংস্কৃতি। তবে মূলধারার শিল্প ভূবনে পেশাদার শিল্পী হিসেবে মানিয়ে নিতে চাইলেও বাস্তবতা অনেক সময় বাধা হয়ে দাঁড়ায়। প্রবল ইচ্ছাশক্তি ও শিল্পের প্রতি ভালোবাসার জোরে কেউ কেউ সফল হন। এমনই একটি আশা জাগানিয়া বার্তা নিয়ে এলেন বাংলাদেশি-কানাডিয়ান রিয়াজ মাহমুদ। তিনি এ বছর সম্মানজনক টরন্টো আর্টস কাউন্সিলের মেন্টরশিপ প্রোগ্রামে মনোনীত হয়েছেন।

চলতি বছর শিল্পাঙ্গনের বিভিন্ন শাখায় মোট ২৬ জন টরন্টো আর্টস কাউন্সিলের মেন্টরশিপ প্রোগ্রামের জন্য উত্তীর্ণ হয়েছেন। এর মধ্যে আছেন বাংলাদেশি নাট্যকর্মী রিয়াজ মাহমুদ। টরন্টো আর্টস কাউন্সিল কানাডার অন্টারিও প্রদেশের টরন্টোয় নতুন আগত অভিনয় শিল্পী, নৃত্যশিল্পী, সংগীত শিল্পী ও চিত্রশিল্পীদের জন্য মেন্টরশীপ প্রোগ্রামের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় অর্থ, তথ্য ও প্রশিক্ষণ দিয়ে কানাডার মূলধারায় পেশাদার শিল্প চর্চার সুযোগ সৃষ্টি করতে উদ্যোগ নিয়ে থাকে।

গত চার বছর ধরে রিয়াজ মাহমুদ টরন্টোয় স্থায়ীভাবে বসবাস করছেন। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটক ও নাট্যতত্ত্বের সাবেক ছাত্র ও ঢাকার সময় নাট্যদলে দীর্ঘদিন তিনি থিয়েটার চর্চা করেছেন।

মূলধারার অভিনয়ে নিজেকে যুক্ত করার প্রচেষ্টা কেমন ছিল?-এমন প্রশ্নের জবাবে রিয়াজ প্রথম আলোকে বলেন, ২০১৬ সালে টরন্টোয় স্থায়ীভাবে চলে আসবার পর অভিনয় শিল্পকে পেশা হিসেবে নেওয়ার স্বপ্ন দেখা শুরু করি। টরন্টো বিশ্ববিদ্যালয়ের থিয়েটার অ্যান্ড পারফরমেন্স বিভাগের ডিজিটাল ড্রামাটার্জ ল্যাবে কাজ করার সুজোগ পাই। সেখান থেকে শুরু করে পরবর্তী তিন বছর টরন্টোর মূলধারার থিয়েটার অঙ্গনের সঙ্গে নেটওয়ার্কিং, থিয়েটারের ওয়ার্কশপ ও অডিশন এসবের মধ্যে সম্পৃক্ত থাকার চেষ্টা করেছি নিজের প্রয়োজনে।

রিয়াজ বলেন, ২০১৯ সালে তিনি পেশাদার নাট্যদল টরন্টো ল্যাবরেটরি থিয়েটার কোম্পানিতে অডিশন দিয়ে উত্তীর্ণ হন। প্রথমবারের মতো কানাডার মূলধারার থিয়েটারে পেশাদার অভিনেতা হিসেবে ‘ইন সানড্রি ল্যাংগুয়েজেস’ নাটকে অভিনয় করেন। সে বছরই রিয়াজ মাহমুদ টরন্টোর টেলিভিশন ও চলচ্চিত্র মাধ্যমেও প্রফেশনাল অভিনেতা হয়ে কাজ শুরু করেন। বর্তমানে তিনি দ্য অ্যালায়েন্স অব কানাডিয়ান সিনেমা, টেলিভিশন অ্যান্ড রেডিও আর্টিস্টসের (এসিআরটিএ) সহযোগী সদস্য হয়ে অফিশিয়ালি তালিকাভুক্ত পেশাদার শিল্পী হিসেবে কাজ করছেন। তিনি রায়ারসন বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিপ্লোমা মুভি 'আলফা'য় প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন। সিনেমাটি বর্তমানে পোস্ট প্রোডাকশনে রয়েছে। ২০২০ সালে তিনি কানাডার শত বছরের প্রাচীন থিয়েটার অ্যালামনাই থিয়েটার কোম্পানির ৩৫ বছরের প্রাচীন নাট্য উৎসব নিউ আইডিয়াস ফ্যাস্টিভ্যাল ২০২০-এর প্রযোজনা লিজার্ড সিজনের অন্যতম প্রধান চরিত্রের জন্য অভিনেতা হিসেবে চূড়ান্ত অডিশনে নির্বাচিত হন। ন্যাশনাল আর্ট সেন্টার অটোয়ার আয়োজনেও লিজার্ড সিজন নাটকটির অনলাইন লাইভ প্রদর্শনীতে অভিনয় করেছেন রিয়াজ। টরন্টোর হ্যাভেন থিয়েটার কোম্পানির স্টিচেস নাটকেও অন্যতম প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি।

রিয়াজ আরও বলেন, বাংলাদেশ থেকে আসা নাট্যকর্মী হিসেবে টরন্টোর মূলধারার থিয়েটারে অভিনয়, নেটওয়ার্কিং, নাট্য কর্মশালা এসব অভিজ্ঞতা ও বাংলাদেশের নাট্যচর্চার অভিজ্ঞতাকে বিবেচনায় রেখেছিলেন টরন্টো আর্টস কাউন্সিলের জুরি ও আর্টস কাউন্সিলের বোর্ড অব ডিরেক্টস। এ কারণে রিয়াজ মাহমুদ একজন বাংলাদেশি-কানাডিয়ান পেশাদার থিয়েটার অভিনেতা হিসেবে ২০২০-২০২১ সালের জন্য মেন্টরশিপ অ্যাওয়ার্ডে ভূষিত হয়েছেন। আগামী এক বছর টরন্টোর একজন অভিজ্ঞ মেন্টরের তত্ত্বাবধানে রিয়াজ নিবিড় প্রশিক্ষণ নেবেন। যার মধ্যে রয়েছে পেশাদার অভিনেতাদের অডিশন টেকনিক, শৈল্পিক ভাবে নিজের শিল্প চর্চাকে উপস্থাপন করার কৌশল, দ্বিতীয় ভাষা ইংরেজিকে অভিনয়ের জন্য ঠিকভাবে রপ্ত করার কৌশল, টরন্টোর ইনডি থিয়েটার চর্চা সম্পর্কে সুস্পষ্ট ধারণার মাধ্যমে মূলধারার থিয়েটারে নিজেকে পেশাদার অভিনয় শিল্পী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার প্রশিক্ষণ। প্রশিক্ষণের জন্য রিয়াজ মাহমুদকে মেন্টরিং করবেন টরন্টো আর্টস কাউন্সিলের মনোনীত নাট্য ব্যক্তিত্ব আর্ট বাবায়্যান্ট। আর্ট বাবায়্যান্ট টরন্টোর পেশাদার নাট্যদল টরন্টো ল্যাবরেটরি থিয়েটার কোম্পানির আর্টিস্টিক ডিরেক্টর।

প্রতি বছরের মতো আগামী বছরগুলোতেও টরন্টো আর্টস কাউন্সিলের মেন্টরশিপ প্রোগ্রামটি চলমান থাকবে। তবে তা শুধু অন্টারিও প্রদেশের টরন্টোয় গত সাত বছরের মধ্যে স্থায়ীভাবে বসবাসরত নতুন অভিবাসী ও প্রটেক্টেড পারসনের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। সাত বছরের বেশি দিন ধরে যারা বাস করছেন, তাঁরা আবেদনের জন্য বিবেচিত হবেন না। আবেদনকারীকে অবশ্যই নিজ নিজ ভুবনে পেশাদার শিল্পী হতে হবে। আবেদনকারীর কানাডায় আসার আগে স্বদেশে শিল্প চর্চার পূর্ব অভিজ্ঞতা ও টরন্টোর পেশাদার শিল্প ভূবনে কাজ করার অভিজ্ঞতার অডিও-ভিডিও, ফটো ও প্রিন্টেড ডকুমেন্টেশন আবেদনপত্রের সঙ্গে যুক্ত করতে হবে। টরন্টো আর্টস কাউন্সিলের ওয়েবসাইটে গিয়ে স্বাধীন পেশাদার শিল্পী হিসেবে রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে প্রোফাইল তৈরি করে নিতে হবে। টরন্টো আর্টস কাউন্সিলের বোর্ড অব ডিরেক্টরসের মনোনীত একটি জুরি বোর্ড আবেদনকারীর সব তথ্য প্রমাণ বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত নেবেন এবং টরন্টো আর্টস কাউন্সিলের পরিচালনা পর্ষদ তা চূড়ান্ত অনুমোদন দেবেন। এ প্রক্রিয়ার সমন্বয়ের সার্বিক দায়িত্বে রয়েছেন একজন গ্র্যান্ডস অফিসার। তিনি আবেদনের নিয়ম কানুন নিয়ে কয়েকটি তথ্যমূলক পর্বের আয়োজন করেন। সেশনে আবেদনের জন্য আগ্রহীদের প্রয়োজনীয় তথ্য ও সহযোগিতা দেওয়া হয়।

রিয়াজ বাংলাদেশে ২৬ বছরের থিয়েটার চর্চায় অভিনয় করেছেন বিভিন্ন মঞ্চ নাটকের পাঁচ শতাধিক প্রদর্শনীতে। এ ছাড়া অনুক্রোশ, জীবনঢুলি, হরিযুপিয়া, ঘুণ এবং আর্ন্তজাতিক খ্যাতিমান পরিচালক গৌতম ঘোষের 'শঙ্খচিল'সহ মোট পাঁচটি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন রিয়াজ।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন