বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নতুন তথ্য জরিপ ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশনে জমা দেওয়া হয়েছে। তবে সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল (সিডিসি) জনসন অ্যান্ড জনসনের বুস্টার ডোজ এখনো অনুমোদন করেনি। মহামারি নিয়ন্ত্রণে বুস্টার ডোজের কার্যকারিতা প্রমাণের জন্য জনসনের ওপর চাপ রয়েছে। প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন মহামারি মোকাবিলায় দেশজুড়ে টিকার বুস্টার ডোজের কার্যকারিতা খতিয়ে দেখার জন্য স্বাস্থ্যসেবীদের ওপর চাপ দিচ্ছেন।

জনসন অ্যান্ড জনসন জানিয়েছে, তাদের এক ডোজের টিকা কোভিড-১৯ এর ক্ষেত্রে ছয় মাত্রার অ্যান্টিবডি গড়ে তোলে। প্রথম টিকা দেওয়ার ছয় মাস পর অ্যান্টিবডি ১২ মাত্রায় পৌঁছায়। জনসনের টিকা গ্রহণকারীদের ওপর পরিচালিত গবেষণা জরিপের এ তথ্য স্বাস্থ্যসেবীদের উৎসাহিত করেছে। কোভিড-১৯ সংক্রমণে দীর্ঘস্থায়ী কার্যকারিতা দেখা গেছে জনসনের টিকার ক্ষেত্রে।

জনসনের বুস্টার ডোজের ক্ষেত্রে প্রথম ডোজের মতোই মৃদু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। এখন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে ফাইজারের বুস্টার ডোজ নিয়ে বিস্তারিত গবেষণা জরিপ মার্কিন স্বাস্থ্য বিভাগের কাছে রয়েছে।

১৭ সেপ্টেম্বর মার্কিন ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন ফাইজার কোম্পানির বুস্টার ডোজ ৬৫ বছরের বেশি বয়স্ক এবং ঝুঁকিপূর্ণ ব্যক্তিদের প্রদানের বিষয়টি অনুমোদন করেছে। ব্যাপকভাবে বুস্টার ডোজ প্রদানের জন্য আরও বড় গবেষণা ও পরীক্ষা-নিরীক্ষার কথা জানিয়েছে এফডিএ।

জনসনের টিকা বিভিন্ন বয়সী মানুষের ক্ষেত্র ভিন্ন ভিন্ন ভাবে কার্যকর বলে প্রমাণ পাওয়া গেছে। কোম্পানিটি জানিয়েছে, ৬০ বছরের নিচের লোকজনের বেলায় কোভিড-১৯ সংক্রমণ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি ঠেকাতে তাদের টিকা ৮৬ শতাংশ কার্যকর বলে প্রমাণ পাওয়া গেছে। ৬০ বছরের বেশি বয়সের লোকজনের ক্ষেত্রে এই হার ৭৮ শতাংশ বলে তথ্য জরিপের ফলাফলে দেখা গেছে।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন