default-image

যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াইওমিং অঙ্গরাজ্যে ব্যবসা বৃদ্ধির জন্য অভিনব প্রচার শুরু করেছে একটি নির্মাণ প্রতিষ্ঠান। ভবনের ছাদ স্থাপন বা প্রতিস্থাপন করলেই উইগিন্স কনস্ট্রাকশন এলএলসি নামের এ প্রতিষ্ঠানটি গ্রাহকদের বিনা মূল্যে একটি করে এআর-১৫ রাইফেল দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে।

ওয়াইওমিং রাজ্যে আগ্নেয়াস্ত্র সংগ্রহ সবচেয়ে সহজ। রাইফেল, শটগান বা হ্যান্ডগান কেনার জন্য এ রাজ্যে কোনো অনুমতির প্রয়োজন হয় না।

প্রভাবশালী মার্কিন দৈনিক ইউএস টুডে জানিয়েছে, ১২ এপ্রিল থেকে উইগিন্স কন্সট্রাকশন নামের নির্মাণ প্রতিষ্ঠানটি এই বিজ্ঞাপন প্রচার শুরু করেছে। বিজ্ঞাপন অনুযায়ী, রাজ্যের যেকোনো বাড়ির মালিক নতুন ছাদ স্থাপন বা প্রতিস্থাপন করলে তাঁদের উপহার হিসেবে একটি এআর-১৫ রাইফেল দেওয়া হবে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নির্মাণ প্রতিষ্ঠানটির মালিক জোস উইগিন্সকে ব্যবসা বৃদ্ধির এই পরামর্শ দিয়েছেন কোম্পানির মার্কেটিং অ্যান্ড কাস্টমার রিলেশনস পরিচালক ম্যাট টমাস। ম্যাট টমাসের পরামর্শ, গ্রাহকদের ধন্যবাদ দেওয়ার পরিবর্তে উপহার দেওয়া লাভজনক। পরে তা কার্যকর করা হয়। এমন বিজ্ঞাপনে ফেডারেল আইনের লঙ্ঘন হয়েছে কিনা, তা নিয়ে আইনি পরামর্শও গ্রহণ করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

বিজ্ঞাপন
default-image

ছাদ স্থাপন বা প্রতিস্থাপনের জন্য ওয়াইওমিং রাজ্যের লোকজনকে প্রমাণ করতে হবে তাঁদের বয়স ২১ বছরের ঊর্ধ্বে। গ্রাহকের নামে কোনো দণ্ডযোগ্য অপরাধের রেকর্ড নেই এমন প্রমাণ দেওয়ার পাশাপাশি আগ্নেয়াস্ত্রটির ব্যবহারে রাজ্য ও ফেডারেল আইন মেনে চলার জন্য একটি হলফনামায় স্বাক্ষর করতে হবে। উইগিন্স কন্সট্রাকশন উপহার দেওয়া আগ্নেয়াস্ত্রটির সিরিয়াল নম্বর নথিভুক্ত রাখবে এবং উপহার হিসেবে প্রাপকের নামে মালিকানা পরিবর্তন করে দেবে।

আগ্নেয়াস্ত্র উপহার দেওয়ার এ কর্মসূচি চলতি বছরের শেষ পর্যন্ত চলবে বলে জানানো হয়েছে। কোম্পানিটি জানিয়েছে, তারা বিজ্ঞাপন প্রচারের পর রাজ্যের লোকজনের কাছ থেকে ব্যাপক সাড়া পেয়েছে। কোম্পানির ফেসবুক পেজে আগ্নেয়াস্ত্র-বিরোধী লোকজনের ব্যাপক সমালোচনায় পড়েছে উইগিন্স কন্সট্রাকশন। এর মধ্যে তাদের প্রাণনাশের হুমকিও দেওয়া হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে। এসব হুমকির জন্য আগ্নেয়াস্ত্র-বিরোধী লোকজনকে দায়ী করেছে কোম্পানিটি।

কাস্টমার রিলেশনস পরিচালক ম্যাট টমাস বলেছেন, কোনো গ্রাহক ইচ্ছা করলে এআর-১৫ রাইফেলের পরিবর্তে ৮০০ ডলার গ্রহণ করে তাঁদের সেবামূলক কর্মসূচিতে দান করে দিতে পারেন। এ ছাড়া উইগিন্স কন্সট্রাকশনের মনোনীত একটি গর্ভপাত-বিরোধী স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনকেও এ ৮০০ ডলারের অনুদান দেওয়া যাবে।

যুক্তরাষ্ট্রে আগ্নেয়াস্ত্র-বিরোধী আন্দোলন এখন তীব্র। সংবিধানের দ্বিতীয় সংশোধনীতে যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের আগ্নেয়াস্ত্র রাখার অধিকার দেওয়া হয়েছে। সাম্প্রতিক সময়ে একের পর এক বন্দুক সহিংসতায় লোকজনের মৃত্যুতে আবারও আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার তাগিদ শুরু হয়েছে

যুক্তরাষ্ট্রের প্রান্তিক রাজ্য ওয়াইওমিং রাজ্যে ব্যাপক গৃহায়ণ শুরু হয়েছে। গত বছর উইগিন্স কন্সট্রাকশন ব্যাপক কাজ করেছে। আগামী দেড় বছরের জন্য তাদের বুকিং এর মধ্যেই শেষ হয়ে গেছে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রে আগ্নেয়াস্ত্র-বিরোধী আন্দোলন এখন তীব্র। সংবিধানের দ্বিতীয় সংশোধনীতে যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের আগ্নেয়াস্ত্র রাখার অধিকার দেওয়া হয়েছে। সাম্প্রতিক সময়ে একের পর এক বন্দুক সহিংসতায় লোকজনের মৃত্যুতে আবারও আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার তাগিদ শুরু হয়েছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন যুক্তরাষ্ট্রের আগ্নেয়াস্ত্র সমস্যাকে জাতির জন্য বিব্রতকর বলে উল্লেখ করেছেন। বেশ কিছু নির্বাহী আদেশ জারি করে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণের প্রয়াস নিয়েছেন প্রেসিডেন্ট বাইডেন। যদিও জাতীয়ভাবে আইন প্রণয়ন ছাড়া যুক্তরাষ্ট্রে আগ্নেয়াস্ত্র সমস্যা সামাল দেওয়ার কোনো সুযোগ নেই।

আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণ করা নিয়ে প্রতিনিধি পরিষদে প্রস্তাব গ্রহণ করা হলেও এ নিয়ে মার্কিন সিনেট নীরব ভূমিকা পালন করছে। রিপাবলিকান দলসহ রক্ষণশীল লোকজন জীবনের বিনিময়েও সাংবিধানিক অধিকার রক্ষায় কোনো ছাড় দিতে রাজি নয়। প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন কংগ্রেসের যৌথ অধিবেশনে দেওয়া প্রথম বক্তৃতায় আবারও আইনপ্রণেতাদের এ নিয়ে উদ্যোগী হওয়ার আহ্বান জানাবেন বলে মার্কিন সংবাদমাধ্যমে বলা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন