default-image

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে যুক্তরাষ্ট্রে বেকারত্ব সমস্যা প্রকট আকার করেছিল। তবে ধীরে ধীরে সেই সমস্যা কাটিয়ে উঠার চেষ্টা করছে জো বাইডেন সরকার। নতুন নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টির পাশাপাশি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কর্মী নিয়োগ দেওয়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। করোনাভাইরাসের ফলে যেসব কর্মী কাজ হারিয়ে বেকার হয়ে পড়েছিলেন, তাদের আবার কাজে যোগদানে উৎসাহী করতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান নানা অভিনব উদ্যোগ নিচ্ছে।

অর্থনৈতিক ও সামাজিক—সব ক্ষেত্রেই করোনা মহামারির প্রভাব পড়েছে। কর্মসংস্থানের ওপর এর প্রভাব বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। যুক্তরাষ্ট্রে করোনা মহামারি শুরুর সঙ্গে সঙ্গে অনেক রেস্তোরাঁ, কফি দোকান, শপিং সেন্টার বন্ধ হওয়ার ফলে অনেকেই বেকার হয়ে পড়েন। অনেক প্রতিষ্ঠান দেউলিয়া হয়ে যাওয়ার ফলেও অনেকে কাজ হারান।

করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কায় অনেকেই কাজ করতে অপারগতা প্রকাশ করেন। এতে বেকারত্বের হার আরও বাড়ে। পরে করোনা পরিস্থিতি কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসার পর রেস্তোরাঁসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠান খুলতে শুরু করলেও অনেক কর্মীকে ছাঁটাই করে দেওয়া হয়। এতে করে বেকারত্ব সমস্যা আরও বাড়তে থাকে। শ্রম পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিএলএস) তথ্যমতে, ২০২১ সালের মার্চ মাসে যুক্তরাষ্ট্রে বেকারত্বের হার ছিল ৬ শতাংশ।

বিজ্ঞাপন

অর্থনৈতিক চাকা সচল রাখা ও কাজ হারিয়ে বেকার হয়ে পড়া এসব নাগরিকদের আর্থিক সহযোগিতা দেওয়ার লক্ষ্যে মার্কিন সরকার এ পর্যন্ত নানা পদক্ষেপ নিয়েছে। তিন বার নাগরিক প্রণোদনা দেওয়াসহ নাগরিকদের বেকার ভাতা প্রদান ও করোনাভাইরাসের জন্য প্রথম দিকে সপ্তাহে ৬০০ ডলার ও পরবর্তীতে অঙ্গরাজ্য ভেদে ৩০০ থেকে ৪০০ ডলার করে দেওয়া হচ্ছে।

এসব নানাবিধ সুযোগ-সুবিধা পাওয়ার ফলে অনেকে কাজ না করেও বেশ ভালোভাবে জীবনযাপন করতে পারছে। এমনকি কাজ করে যে পরিমাণ অর্থ উপার্জন করা যেত, কাজ না করেও এসব সুযোগ-সুবিধা থেকে অনেকে আরও বেশি অর্থ সহায়তা পাচ্ছেন। সাপ্তাহিক বেকার ভাতা অব্যাহতভাবে পাওয়ার আশায় অনেকে কাজে ফিরে যেতে অনাগ্রহ প্রকাশ করছে। আবার অনেকে বেকার ভাতা পাওয়ার জন্য এমন সব জায়গায় কাজ করছে, যেখানে নগদ অর্থের মাধ্যমে বেতন দেওয়া হয়। এতে বেকার ভাতা চালু থাকার পাশাপাশি বাড়তি উপার্জন করার সুযোগও থাকে।

মানুষকে কাজে ফিরে যেতে উৎসাহিত করতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান নানাভাবে নাগদিকদের উদ্বুদ্ধ করছে। বিখ্যাত ফাস্ট ফুড প্রতিষ্ঠান ম্যাকডোনাল্ড’স ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের কয়েকটি শাখায় কর্মী নিয়োগে এক অভিনব পন্থার ঘোষণা দিয়েছে। চাকরির জন্য যে কেউ সাক্ষাৎকার দিতে গেলেই ৫০ ডলার করে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে এই প্রতিষ্ঠান। তাদের বিশ্বাস, এ পদ্ধতি অনেককে চাকরির সাক্ষাৎকারে অংশ নিতে ও কাজে ফিরতে উদ্বুদ্ধ করবে।

করোনা মহামারি শুরুর পর থেকে নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের বাফেলো শহরে অনেক বাংলাদেশি বসবাস শুরু করছেন। বাংলাদেশি অধ্যুষিত এই শহরের সবচেয়ে বড় শপিং সেন্টারেও (ওয়ালডেন গ্যালারিয়া) কর্মী নিয়োগের জন্য বেশ জোরেশোরে প্রচারণা চালানো শুরু করেছে। কর্মী নিয়োগের জন্য শপিং সেন্টারের ভেতর জব ফেয়ারের আয়োজন করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন