বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

যুক্তরাষ্ট্রে গত ৩ নভেম্বরের নির্বাচনের আগে দেওয়া বক্তৃতায় ট্রাম্প বলেছিলেন, পরিস্থিতি অনুযায়ী প্রাউড বয়েজকে প্রস্তুত থাকতে তিনি নির্দেশ দেবেন। নির্বাচনে জালিয়াতি হবে বলে আগেই বলে রেখেছিলেন তিনি। এই নির্বাচনের ফল মেনে নেবেন না বলে তিনি আগে থেকেই বলছিলেন।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিবেশী কানাডাই প্রথম দেশ, যারা প্রাউড বয়েজকে আনুষ্ঠানিকভাবে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে চিহ্নিত করল।

কানাডার জননিরাপত্তাবিষয়ক মন্ত্রী বিল ব্লেয়ার বলেছেন, কানাডা সরকার নিজেরাই প্রাউড বয়েজ সম্পর্কে তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করেছে। অনলাইন তথ্যসহ সহিংসতা-উগ্রবাদ নিয়ে প্রাউড বয়েজের কার্যক্রম সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য নেওয়া হয়েছে বলে জানান বিল ব্লেয়ার।

সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে চিহ্নিত করায় সংগঠনটির কোনো সম্পদ পাওয়া গেলে তা কানাডা বাজেয়াপ্ত করতে পারবে। অবশ্য এই সংগঠনের সদস্য হলেই কেউ অপরাধী হিসেবে বিবেচিত হবেন না। তবে তাঁদের নজরদারিতে থাকতে হবে। সন্ত্রাসী সংগঠনের সঙ্গে অর্থ লেনদেনের প্রমাণ পাওয়া গেলে তা অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে।

কানাডা সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, প্রাউড বয়েজ নিজেদের আদর্শে বিশ্বাসী নয়, এমন লোকদের বিরুদ্ধে সহিংসতাকে প্রকাশ্যে উৎসাহিত করেছে। তারা নিজেরা সহিংস কার্যক্রমে যোগ দিয়েছে।

‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’ নামের নাগরিক আন্দোলনের প্রতিপক্ষ হিসেবে প্রাউড বয়েজ বিভিন্ন সময় যুক্তরাষ্ট্রে সভা-সমাবেশ করেছে। তারা আক্রমণ করেছে বলেও কানাডা সরকারের বক্তব্যে বলা হয়েছে।

কানাডার জননিরাপত্তামন্ত্রী বিল ব্লেয়ার বলেছেন, প্রাউড বয়েজের মতো অন্তত ১৩টি সংগঠনকে তাঁরা চিহ্নিত করেছেন। তার মধ্যে তিনটির সঙ্গে জঙ্গিগোষ্ঠী আল-কায়দার যোগাযোগের তথ্য পাওয়া গেছে। চারটির সঙ্গে আইএসের যোগাযোগে তথ্য পাওয়া গেছে। আর একটির সঙ্গে কাশ্মীরি জঙ্গিদের সম্পৃক্ততার তথ্য রয়েছে।

কানাডার জননিরাপত্তামন্ত্রী বিল ব্লেয়ার বলেছেন, কানাডা ধর্মবিশ্বাস, মতাদর্শ ও রাজনৈতিক কারণে কোনো সহিংসতাকে কখনো বরদাশত করবে না।

২০১৬ সালে কানাডায় শ্বেতাঙ্গ উগ্রবাদী গ্যাভিন ম্যাকিনেস প্রাউড বয়েজ নামের গ্রুপটি প্রতিষ্ঠাতা করেন। ২০১৮ সালের দিকে প্রাউড বয়েজ আমেরিকায় তাদের তৎপরতা শুরু করতে সক্ষম হয়। নিউইয়র্কের মেট্রোপলিটন রিপাবলিকান ক্লাবের সভায় ২০১৮ সালে গ্যাভিন ম্যাকিনেসকে বক্তৃতা পর্যন্ত করতে দেখা যায়। যুক্তরাষ্ট্রের ক্ষমতায় থাকা ট্রাম্প একপর্যায়ে প্রাউড বয়েজের আদর্শের প্রতিভূ হয়ে ওঠেন।

যুক্তরাষ্ট্রে গত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের সময় ট্রাম্পের প্রচারণা সভাগুলোয় প্রাউড বয়েজের সরব উপস্থিতি লক্ষ করা যায়। নির্বাচনের সময় মিশিগান, জর্জিয়া, অ্যারিজোনাসহ বেশ কয়েকটি রাজ্যে এই সংগঠনের লোকজন সশস্ত্র মহড়া দিয়ে ভীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করে। গত ৬ জানুয়ারির আগে ওয়াশিংটন ডিসিতে সংগঠনটি কয়েক দফায় মহড়া দেয়। আর ৬ জানুয়ারি তারা ওয়াশিংটন ডিসি ও ক্যাপিটল হিল ঘিরে রক্তক্ষয়ী সহিংসতায় মেতে ওঠে।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন