default-image

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, তিনি আশা করেন কোভিড-১৯ টিকা গ্রহণের সময় সবাই তাঁর কথা মনে করবে। তিনি প্রেসিডেন্ট না থাকলে পাঁচ বছরে কেন, সম্ভবত কখনই ‘সুন্দর’ টিকাটি পাওয়া সম্ভব হতো না।

১১ মার্চ প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন জনসন অ্যান্ড জনসনের কাছ থেকে এক কোটি টিকা সংগ্রহের পরিকল্পনার কথা ঘোষণা করেন। এরপরই সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এক লাইনে দেওয়া এক বিবৃতিতে এ কথা বলেন।

এক বছর আগে ১১ মার্চ মার্কিন কংগ্রেসে করোনাভাইরাস নিয়ে প্রথম আলোচনা শুরু হয়েছিল। দেশের শীর্ষ সংক্রমণ বিশেষজ্ঞ ডা. অ্যান্থনি ফাউসি কংগ্রেসে আশঙ্কার কথা বলেছিলেন। পরিস্থিতি নাজুক হওয়া নিয়ে তাঁর আশঙ্কা উড়িয়ে দিয়েছিলেন তখনকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

এক বছরে যুক্তরাষ্ট্রে ৫ লাখ ৩০ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এখনো করোনায় প্রতিদিন গড়ে ১ হাজার ৫০০ মানুষের মৃত্যু হচ্ছে। গত ডিসেম্বরে ভ্যাকসিন আসার পর ব্যাপক টিকা কার্যক্রম শুরু হয়েছে। বিশ্বের সবচেয়ে বেশি করোনায় মৃত্যুর দেশ যুক্তরাষ্ট্রের অধিকাংশ মানুষকে টিকা দেওয়ার মহাযজ্ঞ শুরু হয়েছে।

২০ জানুয়ারি প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেওয়ার পরই জো বাইডেন ব্যাপক টিকাদান কর্মসূচির মাধ্যমে করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণের কর্মসূচি ঘোষণা করেন। ডোনাল্ড ট্রাম্প বলে আসছেন, তাঁর গৃহীত পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হচ্ছে। ফলে কৃতিত্বটা তাঁকেই দিতে হবে।

স্বল্পতম সময়ে করোনার টিকা আবিষ্কারের ফলে শুরুতেই জনগণের মধ্যে এ নিয়ে নানা সংশয় ছিল। অধিকাংশ জনগোষ্ঠীকে টিকা দেওয়া না হলে ভাইরাস নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব নয় বলে স্বাস্থ্যসেবীদের মধ্যে উৎকণ্ঠা বিরাজ করছিল। করোনাভাইরাসকে কখনো গুরুত্বের সঙ্গে গ্রহণ না করার অভিযোগ উঠে সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে।

বিজ্ঞাপন
default-image

ট্রাম্প নিজেও সপরিবারে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। তাঁকে হাসপাতালেও যেতে হয়েছে। টিকা আসার পর ক্ষমতা গ্রহণের আগেই জো বাইডেন প্রকাশ্যে টিকা নেন। জীবিত সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্টরা সাবেক ফার্স্ট লেডিদের নিয়ে প্রকাশ্য টিকা গ্রহণের ঘোষণা দেন। শুরুতে সংশয় থাকলেও ব্যাপক প্রচারণার ফলে টিকা নেওয়ার বিষয়ে সাধারণ মানুষের দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন হয়। এখনো যুক্তরাষ্ট্রের ২৫ শতাংশ মানুষ বলছে, তারা টিকা নেবে না।

জীবিত সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্টদের মধ্যে জর্জ বুশ, বিল ক্লিনটন ও বারাক ওবামা প্রকাশ্যে টিকা নেওয়ার ভিডিওসহ একটি প্রচারণায় যোগ দিয়েছেন। প্রচারণায় সাবেক প্রেসিডেন্টরা মার্কিনদের টিকা গ্রহণের আহ্বান জানিয়েছেন। জীবিত সাবেক প্রেসিডেন্টদের মধ্যে সদ্যবিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এই প্রচারণায় নেই।

জীবিত অন্য প্রেসিডেন্ট ৯৬ বছর বয়সী জিমি কার্টার ক্যামেরার সামনে না এসেই বিজ্ঞাপনে বলেছেন, তিনি টিকা নিয়েছেন। বিজ্ঞাপনে তিনি চলমান মহামারির দ্রুত অবসান কামনা করেছেন। বিজ্ঞাপন চিত্রে একমাত্র মেলেনিয়া ট্রাম্প ছাড়া অন্য সব ফার্স্ট লেডি রোসেলিন কার্টার, মিশেল ওবামা, লরা বুশ ও হিলারি ক্লিনটনের টিকা দেওয়ার ছবি সংযুক্ত করা হয়েছে।

সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কবে টিকা নিয়েছেন, তাও শুরুতে জানানো হয়নি। ২০ জানুয়ারি ট্রাম্প ক্ষমতা থেকে চলে যাওয়ার পর জানা গেছে, মেলেনিয়া ট্রাম্পসহ জানুয়ারির শুরুতেই তিনি হোয়াইট হাউসে টিকা নিয়েছেন।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, সাবেক প্রেসিডেন্টদের পক্ষ থেকে প্রচারণায় ট্রাম্পকে যুক্ত করার উৎসাহ দেখানো হয়নি। ডোনাল্ড ট্রাম্প নিজেও এমন কাজে নিজেকে যুক্ত করার কোনো ইঙ্গিত দেননি। ট্রাম্প নিজে টিকা গ্রহণের কোনো ছবি প্রকাশ করেননি। তিনি ও মেলানিয়ার টিকা নেওয়ার ছবি প্রকাশিত হলে জনগণ ও তাঁর সমর্থকদের মধ্যে এ নিয়ে সচেতনতা আরও বৃদ্ধি পেত বলে মনে করা হচ্ছে।

করোনা নিয়ে নানা উল্টাপাল্টা কথা বলেছেন সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে যুদ্ধকালীন জরুরি অবস্থার মতো কাজ করে টিকা বাজারে নিয়ে আসতে ওষুধ কোম্পানিগুলোকে কাজের সুবিধা করে দিয়েছেন তিনি। এ নিয়ে পর্যাপ্ত তহবিল নিশ্চিত করেছেন। ইতিহাসের নজিরবিহীন দ্রুততায় কার্যকর টিকা বানাতে তিনি নিজের কৃতিত্ব দাবি করে আসছেন। ট্রাম্প সমর্থকেরা বলে আসছিলেন, ‘ওবামা কেয়ার’ নামে যুক্তরাষ্ট্রের সর্বজনীন স্বাস্থ্যসেবা আইনের মতো কোভিড-১৯ টিকার নাম ‘ট্রাম্প ভ্যাকসিন’ করা হোক।

৬ জানুয়ারি ট্রাম্পের উসকানিতে ক্যাপিটল হিলে হামলার ঘটনার পর তাঁর সমর্থকদের এমন দাবি মিইয়ে গেছে। যদিও তিনি টিকার জন্য নিজের কৃতিত্ব দাবি করে আসছেন।

যুক্তরাষ্ট্রে এখন গড়ে প্রতিদিন ২০ লাখের বেশি মানুষকে কোভিড-১৯ টিকা দেওয়া হচ্ছে। সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোলের দেওয়া তথ্যমতে, এ পর্যন্ত প্রায় ১৮ শতাংশ জনগোষ্ঠীকে টিকা দেওয়া হয়ে গেছে। এ গ্রীষ্মের মধ্যে অধিকাংশ জনগোষ্ঠীকে টিকার আওতায় আনা সম্ভব হবে।

প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, মে মাসের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের প্রাপ্তবয়স্ক সব মানুষের জন্য পর্যাপ্ত টিকা সরবরাহ নিশ্চিত করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন