default-image

পাঁচ বছরের কৃষ্ণাঙ্গ শিক্ষার্থীকে টয়লেট থেকে তার মল পরিষ্কার করতে বাধ্য করায় আরকানসাসের লিটল রকের শিক্ষককে প্রশাসনিক ছুটিতে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত সপ্তাহে। এ নিয়ে শিক্ষার্থীর মাসহ প্রতিবেশীদের মধ্যে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে।

শিক্ষার্থীর মা অ্যাশলে মারি অভিযোগ করেন, ঘটনার পর তার ছেলে অ্যাশটন স্নায়ুরোগে ভুগছে।

ক্রিস্টাল হিল এলিমেন্টারি স্কুলের একজন সাদা কিন্ডারগার্টেন শিক্ষক বিরক্তিকরভাবে আ্যাশটনকে টয়লেটে নিজের মল পরিষ্কার করতে বাধ্য করার পর অ্যাশটনের মাসহ সাধারণ মানুষ ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে। ৫ মার্চের ওই ঘটনার পর একটি ‘গো-ফান্ডমি’ অ্যাকাউন্ট চালু করে তারা।

এ ব্যাপারে কেএটিবিকে অ্যাশলে বলেন, ‘সে আমার কাছে এসে শুধু বলছিল, মা! সে আমাকে হাত দিয়ে টয়লেট থেকে মল তুলতে বলছিল। আমি জানি, আমার ছেলে কখনো মিথ্যা বলে না।’

অ্যাশলে অভিযোগ করেন, ‘এটি একটি শিশুর জন্য ভয়ংকর ঘটনা। আমি মনে করি না, কোনো সন্তানকে এর মধ্য দিয়ে যেতে হবে। শিক্ষক টয়লেটে থেকে আমার ছেলের মল ও ময়লা টিস্যু বের করে আনতে বাধ্য করেছিল।’

অ্যাশলের ছেলে বিষয়টি তাকে জানালে তিনি দ্রুত আইনি পদক্ষেপ নেন। স্থানীয় কমিউনিটি এ ঘটনার প্রতিবাদে সমাবেশ করেছে। অনেকেই একজন শিক্ষকের এরকম দুঃখজনক কর্মকাণ্ড দেখে হতবাক।

বিজ্ঞাপন

ঘটনার পর পুলাসকি কাউন্টি স্পেশাল স্কুল ডিস্ট্রিক্ট তদন্ত শুরু করেছে। তবে অ্যাশলে মনে করেন, স্কুল প্রশাসনের পদক্ষেপ যথেষ্ট নয়।

শিক্ষকের প্রতি ক্ষুব্ধ অ্যাশলে টিএইচভি ওয়ানকে বলেন, ‘শিক্ষককে এমনভাবে শাস্তি দিতে হবে যেন কোনো স্কুলে তাঁকে বাচ্চাদের পড়াতে দেওয়া না হয়। তার লাইসেন্সও নিয়ে নেওয়া হয়।’

অ্যাশলে জানান, ঘটনার পর শিক্ষক তাঁকে ফোনকলে ভুল হয়েছে বলে স্বীকার করেছেন। তিনি শিক্ষককে বলেছিলেন, ‘এটি আমার পক্ষে যথেষ্ট ভালো কাজ বলে মনে হয়নি।’ অ্যাশলে বলেন, তার লড়াই শুধু নিজ সন্তানের জন্য নয়, বরং অন্য শিশুরাও যেন এমন বিব্রত ও লজ্জাকর অভিজ্ঞতার শিকার না হয়, সেটাই উদ্দেশ্য। তিনি বলেন, ‘আমি চাই না আর কোনো সন্তানের সঙ্গে এমন ঘটনা ঘটুক।’

পুলাস্কি কাউন্টি স্পেশাল স্কুল ডিস্ট্রিক্ট এক বিবৃতিতে বলেছে, তারা এই অভিযোগ সক্রিয়ভাবে তদন্ত করছে।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন