default-image

যুক্তরাষ্ট্রে অস্ত্র নিয়ন্ত্রণের বিপক্ষেই অবস্থান নিচ্ছে রিপাবলিকান দল। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণে আধা ডজন নির্বাহী আদেশ জারির দিনেই রিপাবলিকান নিয়ন্ত্রিত টেনেসি অঙ্গরাজ্যে বন্দুক আইন আরও সহজ করে সেটিই স্পষ্ট করল তারা। এই রাজ্যে ২১ বছর বা তার বেশি বয়সী মানুষ ‘হ্যান্ডগান’ বহন করতে পারবে। এর জন্য তাঁদের কোনো ব্যাকগ্রাউন্ড চেক করতে হবে না বা বন্দুক চালানোর কোনো প্রশিক্ষণেরও প্রয়োজন লাগবে না।

৮ এপ্রিল টেনেসি রাজ্যের রিপাবলিকান গভর্নর বিল লি অস্ত্র সংক্রান্ত আইনে স্বাক্ষর করেছেন। এরপরই এক টুইট বার্তায় তিনি বলেন, টেনেসি রাজ্যের আইন মেনে চলা নাগরিকদের জন্য দেশের সংবিধানের দ্বিতীয় সংশোধনীর অধিকার ভোগকে সহজতর করতে আইনটিতে তিনি স্বাক্ষর করেছেন।

মার্কিন সংবিধানের দ্বিতীয় সংশোধনীতে আগ্নেয়াস্ত্র রাখার জন্য নাগরিকদের দেওয়া অধিকার নিয়ে সামাজিক ও রাজনৈতিক বিতর্ক দীর্ঘদিন থেকে চলে আসছে। বন্দুক সহিংসতায় বছরে হাজার হাজার মানুষ মারা গেলেও বন্দুক নিয়ন্ত্রণে আইন প্রণয়ন করতে রাজনৈতিক পক্ষগুলো কখনো এক হতে পারছে না।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিটি রাজ্য ন্যাশনাল রাইফেল অ্যাসোসিয়েশন (এনআরএ) খুবই শক্তিশালী। তাদের সমর্থনে রাজ্যপর্যায়েও বন্দুক আইনগুলো পরিবর্তন–সংশোধন হয়। এনআরএ টেনেসি রাজ্যের ২১ বছরের বেশি বয়সীদের জন্য হ্যান্ডগান বহন সহজ করার জন্য দীর্ঘদিন ধরে চেষ্টা চালিয়ে আসছিল। এসব বন্দুক সংগ্রহে রাজ্য পর্যায়ে ব্যাকগ্রাউন্ড চেক ও বন্দুক চালনার প্রশিক্ষণের প্রয়োজন ছিল।

গত বছরেই টেনেসি রাজ্যের গভর্নর বিল লি এমন আইন প্রণয়নের উদ্যোগ নেন। রাজ্যের রিপাবলিকান নিয়ন্ত্রিত আইনসভা সহজেই গভর্নরের আইন প্রস্তাবে সম্মতি দিয়েছে। টেনেসির আইনটি আসছে ১ জুলাই থেকে কার্যকর হবে।

বিজ্ঞাপন
default-image

যুক্তরাষ্ট্রের অন্তত ৩০টি রাজ্যে এমন সহজ বন্দুক আইন রয়েছে, যেখানে বন্দুক বহনের জন্য স্থানীয় কর্তৃপক্ষের কোনো অনুমোদনের প্রয়োজন হয় না। ৮ এপ্রিল হোয়াইট হাউসের রোজ গার্ডেনে বসে যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুক নিয়ন্ত্রণ আইনের পরিবর্তন নিয়ে কথা বলেন প্রেসিডেন্ট বাইডেন। বন্দুক সহিংসতার সঙ্গে সংবিধানে প্রদত্ত অধিকারকে সম্পর্কিত করে তোলা বিতর্ক সম্পূর্ণ অমূলক বলে তিনি উল্লেখ করেন।

প্রেসিডেন্ট বাইডেন বলেন, সংবিধানের শুরু থেকেই দ্বিতীয় সংশোধনী ছিল। সব সময়েই সব ধরনের অস্ত্র সবার সংগ্রহে নেওয়ার সুযোগ ছিল না। যুক্তরাষ্ট্রের বন্দুক সহিংসতাকে মহামারির সঙ্গে তুলনা করে তিনি বলেন, বিষয়টি আন্তর্জাতিকভাবে যুক্তরাষ্ট্রের জন্য বিব্রতকর হয়ে উঠেছে।

ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিস ও অ্যাটর্নি জেনারেল মেরিক গারল্যান্ডকে সঙ্গে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের বন্দুক নিয়ন্ত্রণে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ছয়টি পদক্ষেপের কথা ঘোষণা করেছেন। এর মধ্যে তিনি বিচার বিভাগকে গোস্ট গান বা ভুতুড়ে বন্দুক (ঘরে তৈরি করা যায় এমন আগ্নেয়াস্ত্র) নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন।

বন্দুক নিয়ন্ত্রণে প্রেসিডেন্ট বাইডেন উদ্যোগ গ্রহণ করায় বন্দুক সহিংসতার বিপক্ষের মানুষ যারা দীর্ঘদিন ধরে লড়াই করছেন, তারা খুশি হয়েছেন। কংগ্রেসে রিপাবলিকান দলের নেতা কেভিন ম্যাকার্থি বলেন, জো বাইডেন অপরাধীদের বিরুদ্ধে শক্ত অবস্থান গ্রহণ করছেন না। এটি না করে নিরপরাধ আইন মেনে চলা নাগরিকদের সাংবিধানিক অধিকারে হস্তক্ষেপ করছেন তিনি।

রাজ্য পর্যায়ে বিধিনিষেধ শিথিল করার মধ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের রক্ষণশীল রাজ্যগুলো বন্দুক রাখার বিতর্ককে আরও উসকে দেওয়ার চেষ্টা করছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। মার্কিন শ্বেতাঙ্গ রক্ষণশীলরা মনে করে, অস্ত্র রাখার সাংবিধানিক অধিকারে হস্তক্ষেপের মাধ্যমে বাইডেন প্রশাসন তাদের মৌলিক অধিকারের ওপর হস্তক্ষেপ করছে।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন