default-image

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিবাসননীতির কট্টর দুই সমালোচককে হোমল্যান্ড সিকিউরিটি বিভাগের গুরুত্বপূর্ণ পদে নিয়োগ দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণের সীমান্ত দিয়ে সম্প্রতি ব্যাপক অভিবাসীর প্রবেশ নিয়ে বাইডেন প্রশাসন এখন তোপের মুখে। এরই মধ্যে ১২ এপ্রিল গুরুত্বপূর্ণ দুটি পদে নিয়োগ ঘোষণা করা হয়েছে। আশা করা হচ্ছে, অভিবাসন বিভাগের নানা অব্যবস্থাপনা দূর করে বাইডেন প্রশাসনের নীতিমালাকে কার্যকর করতে এই নিয়োগ উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে।

অ্যারিজোনা অঙ্গরাজ্যের টাকসন নগরের পুলিশ প্রধান ক্রিস ম্যাগনাসকে কাস্টমস অ্যান্ড বর্ডার প্রোটেকশন বিভাগের কমিশনার হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। মার্কিন অভিবাসননীতি বিষয়ক বিশেষজ্ঞ ইউর মেন্ডজা জাড্ডু নিয়োগ পেয়েছেন সিটিজেন অ্যান্ড ইমিগ্রেশন সার্ভিসেস বিভাগের পরিচালক হিসেবে।

সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আমলে কড়া অভিবাসন নীতির বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছিলেন ক্রিস ম্যাগনাস। তাঁর বক্তব্য ছিল, অভিবাসীদের সঙ্গে নির্দয় আচরণের ফলে পুলিশের সঙ্গে অভিবাসী কমিউনিটির বৈরী সম্পর্ক তৈরি হবে।

অ্যারিজোনার টাকসন অভিবাসীবান্ধব নগরী হিসেবে দীর্ঘদিন ধরে পরিচিত। এই নগরীতে বিপুল সংখ্যক হিস্পানিক অভিবাসীর বসবাস। নগরীর পুলিশের প্রধান হিসেবে ট্রাম্প প্রশাসনের সময় বর্ডার পেট্রল ইউনিয়নের সঙ্গে ম্যাগনাসের প্রকাশ্য বাগ্‌যুদ্ধ হয়েছে। নগরীর পুলিশকে নথিপত্রহীন অভিবাসীদের ধরপাকড়ে ক্ষমতা নিয়ন্ত্রিত করে দিয়েছিলেন তিনি। এ নিয়ে অ্যারিজোনা রাজ্যসভার আইনপ্রণেতাদেরও সমালোচনার মুখে তাঁকে পড়তে হয়েছিল।

ডোনাল্ড ট্রাম্পের সময় হিস্পানিক যুবক ইংগ্রাম লোপেজ পুলিশ হেফাজতে মারা যান। নথিপত্রহীন এই অভিবাসীর মৃত্যুর দীর্ঘ সময় পরও তা জনগণকে জানানো হয়নি। এ ঘটনার দায় কাঁধে নিয়ে নগরীর পুলিশ প্রধান থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছিলেন ক্রিস ম্যাগনাস। ঘটনার সঙ্গে দায়ী পুলিশ কর্মকর্তাদের চাকরিচ্যুত করা উচিত বলেও তিনি তখন বলেছিলেন। নগরীর মেয়র রেজিনা রোমেরো সব সময় পুলিশ প্রধান ক্রিস ম্যাগনাসকে সমর্থন করে আসছিলেন।

বিজ্ঞাপন
default-image
সিটিজেন অ্যান্ড ইমিগ্রেশন সার্ভিসেস বিভাগের পরিচালক হিসেবে জাড্ডু নিয়োগ পাওয়ার পর এ বিভাগটি পরিচালনায় গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন আসবে বলে মনে করা হচ্ছে

ক্রিস ম্যাগনাসকে কাস্টমস অ্যান্ড বর্ডার প্রোটেকশন বিভাগের কমিশনার হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার পর ডেমোক্র্যাট মেয়র রেজিনা রোমেরো তাঁকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। রোমেরো বলেছেন, ক্রিস ম্যাগনাস তার কর্মজীবনে কমিউনিটির সঙ্গে পুলিশের সুসম্পর্ক তৈরির জন্য একান্ত একটি নিয়ম চালু করে জাতীয়ভাবে সমাদৃত হয়েছেন।

সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সময়ে কাস্টমস অ্যান্ড বর্ডার প্রোটেকশন বিভাগের দায়িত্ব পালন করেছেন গিল কেরলিকাওয়েস্কি। তিনি ক্রিস ম্যাগনাসকে একজন শান্ত ও শক্তিশালী মানুষ হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, বিভাগের ৬০ হাজার পেশাজীবীর নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য এমন লোকই এখন প্রয়োজন। টুইটার টুইট করে আর ফক্স নিউজে কথা বলে গুরুত্বপূর্ণ এই বিভাগের নেতৃত্ব দেওয়া যায় না বলে তিনি উল্লেখ করেন।

ক্রিস ম্যাগনাস কর্মজীবনে রিচমন্ড, ক্যালিফোর্নিয়া ও নর্থ ডাকোটায় পুলিশ প্রধান হিসেবে কাজ করেছেন। একজন শ্বেতাঙ্গ ও সমকামী পুলিশ কর্মকর্তা ক্রিস ম্যাগনাস। ২০১৪ সালে রিচমন্ড নগরীতে ‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’ আন্দোলনের পোস্টার হাতে এক প্রতিবাদ সমাবেশে দাঁড়ানোর ছবি সে সময় রীতিমতো ভাইরাল হয়ে উঠেছিল।

অন্য নিয়োগপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইউর মেন্ডজা জাড্ডু ‘ডিপার্টমেন্ট অব হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ওয়াচ’ নামের একটি সংস্থার পরিচালক হিসেবে কাজ করছিলেন। সংস্থাটি ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিবাসন নীতির কড়া সমালোচনা করে আসছিল। সিটিজেন অ্যান্ড ইমিগ্রেশন সার্ভিসেস বিভাগের পরিচালক হিসেবে জাড্ডু নিয়োগ পাওয়ার পর এ বিভাগটি পরিচালনায় গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন আসবে বলে মনে করা হচ্ছে। সিটিজেন অ্যান্ড ইমিগ্রেশন সার্ভিসেস বিভাগ যুক্তরাষ্ট্রের বৈধ ও অবৈধ অভিবাসনের সব বিষয়েই দেখভাল করে।

হোমল্যান্ড সিকিউরিটি বিভাগের এই পদগুলোর নিয়োগ সিনেটে শুনানির মধ্য দিয়ে নিশ্চিত করতে হয়। সিনেটে নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত তাঁদের ভারপ্রাপ্ত হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে হবে। সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তার মেয়াদে পদ দুটি ভারপ্রাপ্ত হিসেবেই পরিচালিত করেছেন। তার নিয়োগ দেওয়া লোকজনকে সিনেট শুনানির মাধ্যমে নিশ্চিত করতে পারেননি।

২০ জানুয়ারি প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন শপথ গ্রহণের পরই যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণের সীমান্ত দিয়ে নথিপত্রহীন অভিবাসীদের স্রোত শুরু হয়েছে। ট্রাম্প প্রশাসনের সময় অভিবাসীদের সঙ্গে আসা শিশুদের বাবা-মায়ের কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হতো। বাইডেন প্রশাসন শিশুদের প্রতি এমন অমানবিক আচরণ না করার নির্বাহী আদেশ জারি করেন। শুধু মার্চেই প্রায় ২০ হাজার শিশুর আগমন ঘটেছে। এদের সঙ্গে বাবা-মাকে এক সঙ্গে রাখার পর্যাপ্ত স্থাপনা নেই। বাইডেন প্রশাসন বাধ্য হয়ে হোটেল ভাড়া করে এদের রাখতে হচ্ছে।

সীমান্তপথে আদম পাচারকারীরা সক্রিয় হয়ে উঠেছে। এরা শিশু ভাড়া করে নথিপত্রহীন অভিবাসীদের ঠেলে দিচ্ছে সীমান্তে। এসব মানুষের ডিএনএ পরীক্ষায় শিশুর সঙ্গে আসা অনেকেরই ডিএনএ মিলছে না।

কোভিড-১৯ সংক্রমণ থেকে যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণের দেশগুলো বেরিয়ে আসছে। লোকজনের চলাচল শুরু হয়েছে। আবহাওয়া উষ্ণ হয়ে ওঠা এবং দক্ষিণ ও মধ্য আমেরিকার দেশগুলোর চরম অর্থনৈতিক মন্দা অবস্থাকেও সীমান্ত দিয়ে অভিবাসীদের বেপরোয়া আগমনের কারণ বলে মনে করা হচ্ছে।

সীমান্ত পরিস্থিতি সামাল দিতে প্রেসিডেন্ট বাইডেন ব্যর্থ হয়েছেন বলে সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও রিপাবলিকান দল এখন কট্টর সমালোচনায় ব্যস্ত। ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, শুধু এই ব্যর্থতার কারণেই আসছে মধ্যবর্তী নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট দলকে হারিয়ে কংগ্রেসে রিপাবলিকান দল সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে।

ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসকে সীমান্ত পরিস্থিতি নয়ে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। যুক্তরাষ্ট্রে একটি মানবিক অভিবাসন ব্যবস্থা গড়ে তুলতে আইন প্রণয়ের জন্য কংগ্রেসের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন
যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন