default-image

যুক্তরাষ্ট্রে একটি নৈতিক ও মানবিক অভিবাসন ব্যবস্থা গড়ে তোলা হবে। প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিবাসন নীতি থেকে ঘুরে দাঁড়াতে আরও তিনটি নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করেছেন। প্রেসিডেন্ট বাইডেন বলেছেন, অভিবাসন নিয়ে আগের প্রশাসনের লজ্জাজনক অবস্থান থেকে ঘুরে দাঁড়াতে চান তিনি।

গতকাল মঙ্গলবার (২ ফেব্রুয়ারি) নতুন তিনটি নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করে হোয়াইট হাউস থেকে দেওয়া বক্তৃতায় প্রেসিডেন্ট বাইডেন বলেছেন, অভিবাসন কড়াকড়ির নামে অভিবাসী শিশুদের তাদের মা–বাবার কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। কোনো পরিকল্পনা ছাড়াই বিচ্ছিন্ন হওয়া এসব শিশুকে তাদের মা–বাবার সঙ্গে মিলিত হওয়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

ক্ষমতায় আসার পর সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্দেশে ২০১৭ ও ২০১৮ সালে সীমান্ত পথে আসা ৫ হাজার ৫০০ অভিবাসী শিশুকে তাদের পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন করা হয়। এদের নানা আটক কেন্দ্রে অমানবিকভাবে রাখা হয় বলে মানবাধিকার ও অভিবাসী গ্রুপগুলো অভিযোগ করে আসছিল।

প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের নির্বাহী আদেশের ফলে সম্প্রতি চিহ্নিত করা পরিবার বিচ্ছিন্ন এমন ৬০০/৭০০ অভিবাসী শিশুকে পরিবারের সঙ্গে মিলিত হওয়ার পথ উন্মুক্ত হয়েছে। মেক্সিকো সীমান্ত দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে ঢোকা এসব শিশুকে একটি টাস্ক ফোর্সের মাধ্যমে তাদের মা–বাবার সঙ্গে মিলিত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সময় থেকেই মেক্সিকো-যুক্তরাষ্ট্র সীমান্ত পাড়ি দিয়ে আসা অভিবাসীদের বিচ্ছিন্ন করার ঘটনা ঘটেছে। সে সময় জো বাইডেন ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৬ সালে ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার পর অভিবাসন বিরোধী নানা কঠোর পদক্ষেপ নিতে শুরু করেন। মার্কিন অভিবাসী ও নাগরিক অধিকার গ্রুপগুলো সীমান্তে অভিবাসী শিশুদের বিচ্ছিন্ন করা নিয়ে রীতিমতো আন্দোলনে নামে।

প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন তাঁর নির্বাচনী প্রচারণার সময় বলেছিলেন, ক্ষমতা গ্রহণের ১০০ দিনের মধ্যে অভিবাসন নীতি সংস্কারের উদ্যোগ নেবেন। এ নিয়ে বেশ কয়েকটি নির্বাহী আদেশ তিনি জারি করেন। নথিপত্রহীন অভিবাসীদের যুক্তরাষ্ট্র থেকে বহিষ্কার ১০০ দিনের জন্য স্থগিত রেখেছেন। তাঁর এই আদেশ টেক্সাসের এক আদালত আবার স্থগিত করে দিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন আইন প্রণেতাদের দ্রুত সমন্বিত অভিভাসন সংস্কার আইন প্রণয়নের আহ্বান জানিয়েছেন। পৃথক আদেশে অপ্রাপ্ত বয়সে বাবা–মায়ের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রে আসা শিশুদেরে জন্য ওবামার জারি করা ‘ডাকা কর্মসূচি’ আবার চালু করেছেন বাইডেন।

বাইডেনে মঙ্গলবার স্বাক্ষর করা আরেক নির্বাহী আদেশে ট্রাম্প সময়ের অভিবাসন নীতি খতিয়ে দেখার জন্য টাস্কফোর্স গঠনের নির্দেশ দিয়েছেন। অভিবাসনের নানা বিষয়ে কড়াকড়ি আরোপ, অভিবাসন আবেদনের ধীরগতিসহ অভিবাসনের সূত্র ধরে বিভিন্ন দেশের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্ক ও সহযোগিতা কমিয়ে আনার বিষয়টি কীভাবে করা হয়েছে, তা নতুন টাস্কফোর্স পরীক্ষা–নিরীক্ষা করে দেখবে।

হোয়াইট হাউসে সংবাদ সম্মেলনে প্রেস সেক্রেটারি জেন সাকি বলেন, বাইডেন প্রশাসন নৈতিক ও মানবিক একটি অভিবাসন আইন চালু করবে। তা গ্রহণ না করা পর্যন্ত অভিবাসীদের জন্য যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ ভালো সময় নয়।

যুক্তরাষ্ট্রের ভেঙে পড়া অভিবাসন ব্যবস্থা নিয়ে ডেমোক্র্যাট ও রিপাবলিকানদের মধ্যে কোনো ঐকমত্য নেই। দলের মধ্যেই নানা মত। সাবেক প্রেসিডেন্ট জর্জ বুশ, সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা অভিবাসন সংস্কার নিয়ে সমন্বিত আইন প্রণয়নের চেষ্টা করেছেন। তবে দুজনের চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে।

সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নির্বাহী আদেশ ও নানা প্রশাসনিক কড়াকড়ি আরোপ করে অভিবাসন ব্যবস্থাকে নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করেছেন। তিনিও অভিবাসন সংস্কার নিয়ে কোনো আইন প্রণয়ন করতে পরেননি।

ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশগুলো এখন বাইডেনের নির্বাহী আদেশে বাতিল হচ্ছে। অভিবাসীদের মধ্যে এ নিয়ে স্বস্তি আসলেও সমন্বিত অভিবাসন আইন প্রণয়ন নিয়ে দ্রুতই সামাজিক ও রাজনৈতিক বিতর্ক চাঙা হয়ে উঠবে বলে মনে করা হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন