default-image

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ওপর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের নিষেধাজ্ঞা এখনো প্রকট। তা আরেকবার প্রমাণ করল জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক। সম্প্রতি ডোনাল্ড ট্রাম্পের ছেলে বউ লারা ট্রাম্প তাঁর পরিচালিত ‘দ্য রাইট ভিউ’-এর জন্য ট্রাম্পের একটি ভিডিও সাক্ষাৎকার গ্রহণ করেন। তিনি সেই ভিডিওটি পরে ফেসবুকে আপলোড করেন। কিন্তু সঙ্গে সঙ্গে ফেসবুক সেই ভিডিওটি সরিয়ে নেন।

এ নিয়ে ট্রাম্পের ছেলে এরিক ট্রাম্পের স্ত্রী লারা ট্রাম্পকে ফেসবুকের পক্ষ থেকে একটি ই-মেইল বার্তা পাঠানো হয়। সেই বার্তায় উল্লেখ করা হয়, সাবেক প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের কণ্ঠে তৈরি করা কোনো কিছুই তাদের প্ল্যাটফর্মগুলোতে অনুমোদিত নয়। ই-মেইলে আরও জানানো হয়, ‘আমরা ডোনাল্ড ট্রাম্পের ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে যে নিষেধাজ্ঞা বলবৎ করেছি, তার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে তাঁর কণ্ঠে পোস্ট করা কনটেন্টও সরিয়ে ফেলা হবে। প্রয়োজনে ওই সব আইডিতে অতিরিক্ত সীমাবদ্ধতা চালু করা হবে।’

গত ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটল হিলে হামলার পর ফেসবুক তৎকালীন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের আইডি অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করে দেয়। এরপর ইউটিউবসহ অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম অনির্দিষ্টকালের জন্য ট্রাম্পের অ্যাকাউন্ট স্থগিত করে। তা ছাড়া স্ন্যাপচ্যাট এবং টুইটার স্থায়ীভাবে ট্রাম্পকে নিষিদ্ধ করে।

বিজ্ঞাপন

ফেসবুকের মুখপাত্র অ্যান্ডি স্টোন ইউএসটুডেকে বলেন, ক্যাপিটাল হিলে দাঙ্গার পরে সাবেক প্রেসিডেন্টের অনির্দিষ্ট স্থগিতাদেশের কারণে ভিডিওটি ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রাম থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

ট্রাম্পের মুখপাত্র জেসন মিলার বলেন, সাবেক প্রেসিডেন্ট তার নিজের সামাজিক নেটওয়ার্ক দিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আবার ফিরে আসবেন। তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি, নিজস্ব সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম তৈরির মাধ্যমে আমরা ট্রাম্পকে আগামী দুই বা তিন মাসের মধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় ফিরে পাব।’

জেসন আরও বলেন, সবাই প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প কী করেন বা কীভাবে সোশ্যাল মিডিয়াতে ফিরে আসেন, তা দেখার অপেক্ষায় আছে। কারণ, এটি তাঁর নিজস্ব সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম হবে।’

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন