বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ফিরোজ আহমেদ তাঁর প্রার্থিতা নিয়ে ইতিমধ্যেই শুভাকাঙ্ক্ষীদের মধ্যে পরামর্শ শুরু করেছেন। এর বাইরেও সভাপতি পদে লড়তে পারেন মাওলানা কালাম ও নূরুল আমিন।

বর্তমান সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দীন বলেন, এবারে সরাসরি নির্বাচন হবে কিনা তা নির্ভর করবে উপদেষ্টা কমিটির ওপর। নির্বাচন কমিশন গঠনের পর উপদেষ্টা কমিটি তাঁদের সঙ্গে বসবেন। যদি উপদেষ্টা কমিটি মনে করেন তাহলে এবার মনোনয়নের মাধ্যমে কমিটি হবে। তবে তাঁরা বর্তমান কমিটিকে মনোনীত করার জন্য নির্বাচন কমিশনকে পরামর্শ দেবেন। এ ক্ষেত্রে আরও দুই বছর পর সদস্যদের সরাসরি ভোটে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এটাই সন্দ্বীপ সোসাইটির গঠনতন্ত্রের নিয়ম। আর যদি উপদেষ্টা কমিটি মনে করেন, এবারই সরাসরি ভোটে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে তবে নির্বাচন কমিশন নির্বাচনের যাবতীয় আয়োজন সম্পন্ন করবে।

বিষয়টি পুরোপুরি নির্ভর করছে ৩১ সদস্য বিশিষ্ট উপদেষ্টা কমিটির ওপর। নির্বাচন হলে প্রার্থী হবেন কিনা জানতে চাইলে আলাউদ্দীন বলেন, অবশ্যই আগ্রহ আছে। আমাদের নীতি নির্ধারক ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের সঙ্গে আলোচনা করে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেব। তবে মনে রাখতে হবে, ২০২০ সালে আমরা দায়িত্ব নিলেও করোনার কারণে আমরা ঠিকমতো কাজ করতে পারিনি। সন্দ্বীপের জন্য আরও কিছু ভালো কাজ করতে চাই।

সম্ভাব্য সভাপতি প্রার্থী ফিরোজ আহমেদ বলেন, নির্বাচনে প্রার্থিতা নিয়ে সবার সঙ্গে মতবিনিময় করছি। আমার রানিংমেট কে হবেন তা এখনো চূড়ান্ত হয়নি। তবে নির্বাচন নিয়ে নানা ধরনের কথা কানে আসছে। করোনার দোহাই দিয়ে বর্তমান কমিটিকে আরও দুই বছর রাখার গুঞ্জন রয়েছে। তবে সন্দ্বীপের মানুষ নির্বাচনের জন্য মুখিয়ে আছে। নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতেই সন্দ্বীপবাসী ৩০ ডলার চাঁদা দিয়ে সদস্য হয়েছেন বা সদস্যপদ নবায়ন করেছেন। তাঁরা উৎসবমুখর পরিবেশে একটি নির্বাচন দেখতে ও অংশগ্রহণ করতে চান।

নিউইয়র্ক থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন