default-image

নিউইয়র্ক সিটি ডিপার্টমেন্ট অব এডুকেশনের কমিউনিটি এডুকেশন কাউন্সিল (সিইসি) নির্বাচন ২০২১-এ মেম্বার পদে প্রার্থী হয়েছেন কুইন্সের মোহাম্মদ জাকির হোসেন। তিনি নগরের শিক্ষাব্যবস্থার উন্নয়নে কাজ করতে চান।

প্রথম আলো উত্তর আমেরিকার সঙ্গে আলাপচারিতায় মোহাম্মদ হোসেন তাঁর পরিকল্পনার কথা তুলে ধরেছেন।

মোহাম্মদ জাকির হোসেন বলেন, নিউইয়র্ক সিটির অন্যান্য নির্বাচন থেকে এডুকেশন কাউন্সিলের নির্বাচন একটু আলাদা। এই নির্বাচনের প্রচার করা হয় সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে। এ ক্ষেত্রে সাংবাদিকদের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এ ছাড়া শিক্ষা বিভাগের নিয়ম অনুযায়ী এ প্রচারে সর্বোচ্চ ৫০০ ডলার ব্যয় করা যাবে।

মোহাম্মদ জাকির হোসেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পলিটিক্যাল সায়েন্সে স্নাতকোত্তর করেছেন। বর্তমানে তিনি সিটি ইউনিভার্সিটি অব নিউইয়র্কের অধীনে লিডারশিপ ম্যানেজমেন্ট নিয়ে একটি কোর্স করছেন। পরিবার নিয়ে কুইন্সের উডসাইডে বাসা করা জাকির সিটি ডিপার্টমেন্ট অব এডুকেশনের সঙ্গে পাঁচ বছর ধরে সম্পৃক্ত। স্কুল লিডারশিপ টিমে তিনি নির্বাচিত প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছেন ২০১৯ থেকে।

জাকির হোসেন বলেন, নিউইয়র্কের বিভিন্ন পর্যায়ে বাঙালিরা বেশ সুনামের সঙ্গে দায়িত্ব পালন করছেন। স্কুলের লিডারশিপ পদে বাঙালিদের আরও সম্পৃক্ত হতে হবে। এই পদে কোনো বাংলাদেশি নির্বাচিত হতে পারলে তা হবে অনেক গৌরবের।

বিজ্ঞাপন

করোনাকালীন মহামারির মানুষের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রাখা মোহাম্মদ জাকির হোসেন বলেন, স্কুলের এই পদটি সম্পূর্ণ অবৈতনিক এবং সেবামূলক। সেবা করার মানসিকতা নিয়েই এখানে নিজেকে সম্পৃক্ত করার জন্য আমি তৈরি হচ্ছি। জয়ী হওয়া খুব সহজ নয়, কারণ প্রায় ৩৩ হাজারেরও বেশি ভোটার আছেন। বাংলাদেশি ভোটার এর মধ্যে প্রায় ১৫ থেকে ২০ ভাগ। এ কারণে প্রত্যেক অভিভাবককে ভোট দিতে হবে।

অভিভাবকদের উদ্দেশ করে তিনি বলেন, আপনার সবাই ভোট দেবেন। শিক্ষাব্যবস্থার উন্নয়নে আপনাদের সঙ্গে নিয়ে কাজ করতে চাই। ১ মে থেকে ১১ মে পর্যন্ত যেকোনো সময় অনলাইনে ভোট দেওয়া যাবে। স্কুলে যদি একাধিক সন্তান থাকে, সে ক্ষেত্রে প্রত্যেক সন্তানের জন্য আলাদাভাবে ভোট দেওয়া যাবে।

শিক্ষাব্যবস্থার উন্নয়নে পরিকল্পনা কী—এমন প্রশ্নের জবাবে মোহাম্মদ জাকির হোসেন বলেন, ‘স্কুল লিডারশিপ টিমে আমি সম্পৃক্ত। সিইসি ভোটে নির্বাচিত হতে পারলে বৃহৎ পরিসরে কাজ করার সুযোগ পাব। তবে আমার কাছে শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার বিষয়টি নিশ্চিত করা হবে প্রথম কাজ। আমি বিশ্বাস করি, গুণগত শিক্ষা শুধু সুযোগ নয়, এটা সবার অধিকার।’

নিউইয়র্ক থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন