মজলুম জননেতা মাওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর ৪৪তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা সাউথ এশিয়া ওয়াচের মহাসচিব, এশিয়ান আমেরিকান ডেমোক্রেটিক সোসাইটির কো-চেয়ারম্যান ও ডেমোক্রেটিক ন্যাশনাল কমিটির (ডিএনসি) সদস্য শাহীদুল ইসলাম তালুকদার এক বিবৃতির মাধ্যমে এই নেতার প্রতি শ্রদ্ধা জানান।

বিবৃতিতে শহীদুল ইসলাম বলেন, ‘মাওলানা ভাসানী আজীবন কৃষক, শ্রমিক ও মেহনতী মানুষের মুক্তির জন্য লড়াই করেছেন। তাঁর ৭০ বছরের রাজনৈতিক জীবনে ব্রিটিশদের বিরুদ্ধে, দেশীয় জমিদার ও জোতদারদের বিরুদ্ধে, পাকিস্তানি স্বৈরশাসকদের বিরুদ্ধে এবং বাংলাদেশের মানুষের গণতন্ত্র ও অর্থনৈতিক মুক্তির জন্য যত আন্দোলন হয়েছে, প্রতিটির পুরোভাগে তিনি ছিলেন। বিশেষ করে ১৯৪৮ সালে আওয়ামী লীগ গঠন, ১৯৫৪ সালে যুক্তফ্রন্ট নির্বাচন, ১৯৫৭ সালে কাগমারী সম্মেলন, ১৯৬৮-৬৯ সালে আইয়ুব বিরোধী আন্দোলন, ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা সংগ্রাম ও ১৯৭৬ সালের ফারাক্কা মিছিলে তাঁর নেতৃত্বের কথা এ দেশের মানুষ শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করবে।’

এতে আরও বলা হয়, ‘আজ মাওলানা ভাসানীকে সবাই ভুলতে বসেছে। নতুন প্রজন্ম মাওলানা ভাসানীর নামের সঙ্গে পরিচিত নয়। বর্তমান সরকারের উচিত স্কুলের পাঠ্যবইয়ে মাওলানা ভাসানীর জীবনী অন্তর্ভুক্ত করা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগে মাওলানার নামে একটি চেয়ার প্রতিষ্ঠিত করা উচিত।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0