default-image

জাতিসংঘের তিনটি সংস্থার সদস্য নির্বাচিত হয়েছে বাংলাদেশ। নিউইয়র্কে জাতিসংঘ সদর দপ্তরে ২০ এপ্রিল ইকোসকের ব্যবস্থাপনা সভায় সদস্য রাষ্ট্রগুলোর প্রত্যক্ষ ভোটে বাংলাদেশ মাদকদ্রব্য বিষয়ক কমিশনের (সিএনডি) সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে। একই দিন পৃথক ভোটে ইউনিসেফ ও ইউএন উইমেনের নির্বাহী বোর্ডের সদস্য হিসেবে পুনর্নির্বাচিত হয়েছে বাংলাদেশ।

আগামী তিন বছরের জন্য সিএনডির সদস্য থাকবে বাংলাদেশ। জাতিসংঘের অর্থনৈতিক ও সামাজিক পরিষদের (ইকোসক) সহযোগী সংস্থা সিএনডির এই নতুন পরিষদ আগামী ২০২২ সালের জানুয়ারিতে দায়িত্ব গ্রহণ করবে। বাংলাদেশ ছাড়াও সৌদি আরব, দক্ষিণ কোরিয়া, ইরান ও এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চল থেকে সংস্থাটির কার্যকরী পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হয়।

এ প্রসঙ্গে জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা বলেন, সিএনডির এই নির্বাচন ছিল অত্যন্ত প্রতিযোগিতাপূর্ণ। বাংলাদেশ এতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ভোট পেয়েছে (৪৩ ভোট)। এই বিজয় বহুপক্ষীয় ফোরামে বাংলাদেশের নেতৃত্বের ওপর আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের আস্থারই বহিঃপ্রকাশ। বিশ্বব্যাপী মাদক সমস্যার সব দিকে বাংলাদেশ সব সময়ই সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে আসছে। বাংলাদেশ জাতীয় পর্যায়ে অবৈধ মাদক ব্যবসা বন্ধে শক্তিশালী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে এবং এ বিষয়ে আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে সংশ্লিষ্ট পক্ষের সঙ্গে নিবিড়ভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

সিএনডি ৫৩ সদস্যের একটি সংস্থা। কমিশন বৈশ্বিক মাদকদ্রব্য পরিস্থিতি পর্যালোচনা ও বিশ্লেষণ, সরবরাহ ও চাহিদা হ্রাস বিবেচনা এবং প্রস্তাব ও সিদ্ধান্ত গ্রহণের মাধ্যমে সমস্যার সমাধানে পদক্ষেপ নিয়ে থাকে। এর সদর দপ্তর ভিয়েনায়।

এদিকে ইকোসক ব্যবস্থাপনা সভায় ইউনিসেফ ও ইউএন উইমেনের নির্বাহী বোর্ডের নির্বাচনও অনুষ্ঠিত হয়। এতে দুই বোর্ডেই বাংলাদেশ সদস্য হিসেবে পুনর্নির্বাচিত হয়েছে। নতুন এই বোর্ড দুটি ২০২২ সালের জানুয়ারি থেকে কার্যক্রম শুরু করবে।

বাংলাদেশ এখনো বোর্ড দুটির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছে। নির্বাহী বোর্ডই জাতিসংঘের গুরুত্বপূর্ণ এই সংস্থা দুটির মূল পরিচালনা পর্ষদ।

নিউইয়র্ক থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন