বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দেশাত্মবোধক সংগীত দিয়ে শুরু হয় অনুষ্ঠানের। সমবেত সঙ্গীতে নেতৃত্ব দেন কণ্ঠশিল্পী রোজী আজাদ। পরিবেশিত হয় মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবাহী মার্কিন কবিতা। অ্যালেন গিন্সবার্গের ‘সেপ্টেম্বর অন যশোর রোড’। যুদ্ধ পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে লেখা কবিতাটি নভেম্বরে নিউইয়র্ক টাইমস-এ প্রকাশিত হলে ব্যাপক সাড়া পড়ে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের প্রতি মার্কিনি ও স্বদেশিদের সহানুভূতি রাতারাতি বৃদ্ধি পায়। অনুষ্ঠানে কবিতাটি আবৃত্তি করেন আখতার নাসিমা।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কবি হেলাল হাফিজের কবিতা পাঠ করা হয়। ‘কষ্ট’ কবিতাটি শোনান ‘মিস বাংলাদেশ’ শামসুন এলিট। এর সঙ্গে তিনি সংগীতও পরিবেশন করেন। সুবীর নন্দীর নিকটাত্মীয় আশিস দেব রায়ও গান শোনান। কবি সুলতানা ফেরদৌসী সালেম সুলেরীর উদ্বোধনী কবিতা পড়েন। আবৃত্তি শিল্পী গোপন সাহা শোনান দেশাত্মবোধক কবিতা মু. নূরুল হুদা’র ‘যত দূর বাংলা ভাষা ততোদূর বাংলাদেশ’। বাংলাদেশ কনভেনশনে তিন বাংলার পরিবেশনটি স্মৃতিময় হয়ে থাকল।

২০১৬ সালে নিউইয়র্কে শুরু হয় ‘বাংলাদেশ কনভেনশন’। এবার তৃতীয়বারের মতো তিনদিনের কনভেনশন হলো। ৩ সেপ্টেম্বর ছিল রিভার ক্রুজ পূর্ব উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। উদ্বোধক একাত্তরের কণ্ঠযোদ্ধা রথীন্দ্রনাথ রায়। ৪-৫ সেপ্টেম্বর মূল অনুষ্ঠানমালায় ছিল হোটেল ম্যারিয়ট মিলনায়তনে। ২০১৬-তে উদ্বোধনী কবিতা পড়েন কবি সালেম সুলেরী।

নিউইয়র্ক থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন