বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

১ সেপ্টেম্বর রাতের আকস্মিক বৃষ্টিপাত ও বন্যায় নিউইয়র্ক ও নিউজার্সিতে মোট ৫০ জনের মৃত্যু হয়েছে। ঘূর্ণিঝড় আইডার প্রভাবে আমেরিকার ইতিহাসে নজিরবিহীনভাবে নগরকেন্দ্রের সড়ক, রেলপথ এক ঘণ্টার তুমুল বৃষ্টিপাতে ডুবে গিয়েছিল। লোকজনের ঘরে পানি ঢুকেছে। বন্যার তোড়ে অসংখ্য গাড়ি সড়ক ভেসে গেছে।

শতাব্দীর এ ভয়াবহতম প্রাকৃতিক দুর্যোগের জন্য রাষ্ট্রনেতারা জলবায়ু পরিবর্তনকে দায়ী করছেন। গত টানা দুই দশকে ঘন ঘন বৃষ্টিপাত ও আকস্মিক বন্যায় শত বছরের নগরায়ণ এবং এর পরিকল্পনায় পরিবর্তন আনার তাগিদ সৃষ্টি হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের আটলান্টিক ঘেরা উত্তর-পূর্বাঞ্চলের দুটি রাজ্যের বন্যা উপদ্রুত এলাকা সরেজমিনে দেখার জন্য প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন নিউইয়র্ক ও নিউজার্সি সফর করেন। ৭ সেপ্টেম্বর সকালে জেএফকে বিমানবন্দরে তাঁকে স্বাগত জানান নিউজার্সির রাজ্য গভর্নর ফিল মারফি ও তাঁর স্ত্রী ট্যামি মারফি। ব্যস্ত দিনের শুরুতেই প্রেসিডেন্ট বাইডেন নিউজার্সির ম্যানভিল এলাকা পরিদর্শন করেন। হলুদ ফিতা দিয়ে আটকানো ব্যারিকেড সরিয়ে প্রেসিডেন্ট বাইডেন বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত লোকজনের সঙ্গে কথা বলেন। ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের খোঁজখবর নেন। এ সময় তাঁর সঙ্গে রাজ্য গভর্নরসহ ফেডারেল ইমার্জেন্সি ম্যানেজমেন্টের (ফেমা) কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

নিউজার্সিতে একদল ট্রাম্প সমর্থকদের প্রতিবাদের মুখেও পড়তে হয়েছে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে। আমেরিকান ফ্ল্যাগ হাতে নিয়ে ট্রাম্প সমর্থক একদল বিক্ষোভকারী প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের পদত্যাগ চেয়ে স্লোগান দেন।

নিউজার্সির ম্যানভিল থেকে নিউইয়র্কের কুইন্সে গিয়ে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন উষ্ণ আতিথেয়তা পেয়েছেন। অভিবাসীবহুল উডসাইড এলাকার বন্যা আক্রান্ত বাড়িগুলোর পাশ দিয়ে হেঁটে যান বাইডেন। পতাকা হাতে এক কিশোরকে জড়িয়ে ধরে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেন, প্রতিটি বিপর্যয়ের পর আমেরিকা আগের চেয়ে ভালোভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছে। এবারও এমন হবে। এটাই আমেরিকা। বহু জনারণ্যের দেশ বলেই আমেরিকা ঘুরে দাঁড়ানোর শক্তি রাখে।

প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, জলবায়ু সমস্যার জের ধরে প্রাকৃতিক দুর্যোগ হচ্ছে। এ সমস্যা এখন সবার সমস্যা। সবাই মিলেই এ সমস্যাকে মোকাবিলা করতে হবে।

নিউইয়র্ক ও নিউজার্সিকে বন্যা উপদ্রুত এলাকা ঘোষণা করা হয়েছে। বন্যা আক্রান্ত এলাকার লোকজনকে নাগরিক সহযোগিতা দেওয়ার বিষয়টি অনুমোদন করেছেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। এ নিয়ে ফেমা কাজে নেমে পড়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত লোকজনকে ফেমার ওয়েবসাইটে সহযোগিতার জন্য আবেদন করার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

নিউইয়র্ক থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন