বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দ্বিতীয় সেমিফাইনালে যুব সংঘ (এ) ব্রঙ্কস ইউনাইটেডের মুখোমুখি হয়। খেলার প্রথমার্ধের ৪ মিনিটের সময় ব্রঙ্কসের সিদ্দিক প্রথম গোল করে দলকে (১-০) ব্যবধানে এগিয়ে নেন। পরে ১৬ মিনিটের সময় যুব সংঘের খালেদ গোল করে খেলায় সমতা ফিরিয়ে আনেন। এর পর খেলার ৪৫ মিনিটের সময় যুব সংঘের সোহেল গোল করে দলকে আবার এগিয়ে নেন। আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত এই খেলায় আর কোনো গোল না হওয়ায় যুব সংঘ পূর্ণ পয়েন্ট নিয়ে ফাইনালে ওঠে। এই খেলায় অখেলোয়াড়সুলভ আচরণের জন্য যুব সংঘের আবিদকে লাল কার্ড দেখানো হয়।

খেলায় রেফারির দায়িত্ব পালন করেন নিউইয়র্কের নিবন্ধিত রেফারি অস্কার, আকেডিও ও পেন্ড্রো। বিপুলসংখ্যক প্রবাসী সেমিফাইনাল খেলা দুটি উপভোগ করেন। বিশিষ্ট ব্যক্তিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন স্পোর্টস কাউন্সিলের উপদেষ্টা মনজুর আহমেদ চৌধুরী, এনাম, আবদুর রহীম, ছদরুন নূর ও আবদুর নূর বড় ভূঁইয়া, আনোয়ার হোসেন, জুলফিকার আলী ও ফখরুল ইসলাম। স্পোর্টস কাউন্সিলের কর্মকর্তাদের মধ্যে সভাপতি মিসবা আবদীন, সিনিয়র সহসভাপতি ওয়াহিদ কাজী ও সাধারণ সম্পাদক রশিদ রানা, আবদুল কাদির, মখন মিয়া, সুহেল আহমেদ, জামিল আহমেদ, সাবুল উদ্দিন, জয়নাল হাসান, বাবলা চৌধুরী, রাজিব আহমেদ, মইনুল উদ্দিন, খালেদ হোসেন, সাব্বির আহমেদ, মামুন আহমেদ প্রমুখ মাঠে উপস্থিত ছিলেন।

নিউইয়র্ক থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন