default-image

রমজান মাসের চাঁদ দেখা সাপেক্ষে ১২ এপ্রিল সোমবার বা ১৩ এপ্রিল মঙ্গলবার দিবাগত রাতে যুক্তরাষ্ট্রে তারাবি নামাজ ও সাহ্‌রি খাওয়া শুরু হবে। এ নিয়ে বেশ আগ থেকেই প্রস্তুতি শুরু হয়ে গেছে। সপ্তাহের শুরুতে বাংলাদেশি ধর্মপ্রাণ মুসলিমদের ব্যাপক উপস্থিতি ছিল নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসে। গ্রোসারির দোকানগুলোতে ছিল

ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড়।

জ্যাকসন হাইটসের প্রতিটি দোকানের সামনে ও ভেতরে সাজিয়ে রাখা হয়েছে রমজানের প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রীসহ মৌসুমি ফল ও নানা রকম মসলা। নগরীতে করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়া সত্ত্বেও এপ্রিলের এমন উষ্ণ দিনে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে মনিহারি বাজার করতে এসেছেন বাংলাদেশি অভিবাসীরা।

বিজ্ঞাপন

দোকান মালিকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, প্রতিটি বাঙালি পরিবারে রমজান পালনের জন্য প্রস্তুতি নেওয়া একটি দেশীয় রেওয়াজ বলেই মনে হচ্ছে। তাই বাংলাদেশিদের পছন্দের ছোট বড় মাছসহ মুখরোচক ইফতারি সামগ্রী তৈরির জন্য প্রয়োজনীয় রেডিমেড মসলার প্যাকেট, ছোলা, ডাল সামগ্রীর মজুত রাখা হয়েছে দোকানে। এ সময় পেঁয়াজের চাহিদা বেড়ে যায় অনেক।

বাজার ঘুরে দেখা যায়, ক্রেতাদের মধ্যে করোনা ভীতি স্পষ্ট। অধিকাংশ ক্রেতাই মাস্ক ব্যবহার করছেন। কেনাকাটা শেষে দাম পরিশোধ করতে কাউন্টারে সবাই সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেই দাঁড়িয়েছেন। আসন্ন রমজান পালনের জন্য প্রত্যেক পরিবারের এ ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণের প্রচেষ্টাকে করোনার এই সময়ে বাংলাদেশি অভিবাসীদের ইতিবাচক মনোভাবের সহায়ক বলে মনে করছেন অনেকেই।

নিউইয়র্ক থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন