default-image

নিউইয়র্ক নগরে গত ১২ ঘণ্টায় পৃথক ১৪টি গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনায় গুলিবিদ্ধ হয়ে একজন নিহত ও অন্তত ১৪ জন আহত হয়েছেন। আহতদের কয়েকজনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

২৪ এপ্রিল রাতে নগরের ম্যানহাটন, কুইন্স, ব্রুকলিন ও ব্রঙ্কসে এসব গুলির ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনায় নিউইয়র্ক পুলিশের (এনওয়াইপিডি) সাবেক এক কর্মকর্তাও আহত হয়েছেন।

ব্রঙ্কসের উলিয়ামসবার্গ এলাকায় ২৪ এপ্রিল রাত ১১টার দিকে দুর্বৃত্তের গুলিতে জ্যামেইক বিশপ নামের ১৮ বছর বয়সী এক তরুণ নিহত হয়েছেন। শরীরের বিভিন্ন অংশে গুলিবিদ্ধ বিশপকে জ্যাকবি মেডিকেল সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহত বিশপ নানা অপরাধী চক্রের সঙ্গে জড়িত ছিলেন বলে পুলিশ জানিয়েছে।

প্রায় একই সময়ে ব্রুকলিনের ক্রাউন হাইটস এলাকায় আরেক ব্যক্তি গুলিবিদ্ধ হলে তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক। পরে ব্রুকলিনের ফ্লাটবুশ এলাকায় আরেক ব্যক্তি নিজের গাড়িতে বসেছিলেন। অন্য একজন পার্ক করা ওই গাড়ির কাছে এসে তাঁকে উদ্দেশ করে কয়েক রাউন্ড গুলি ছোড়ে। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ওই ব্যক্তিকেও হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

রাত সাড়ে ১১টার দিকে ব্রুকলিনের রেডউক এলাকায় এক জন্মদিনের অনুষ্ঠানে গুলির ঘটনায় অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়া এনওয়াইপিডির সাবেক একজন নারী কর্মকর্তা গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। তিনি এখন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। জন্মদিনের অনুষ্ঠানে ঢুকতে না দেওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে তিন ব্যক্তি গুলি ছুড়লে ওই নারী গুলিবিদ্ধ হন।

ব্রুকলিনের নস্ট্রান্ড অ্যাভিনিউ এলাকায় ২৪ এপ্রিল মধ্যরাতে এক ২১ বছর বয়সী এক তরুণ গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। পুলিশ জানিয়েছে, ওই তরুণ একটি গাড়ির পেছনের আসনে বসে ছিলেন। বাইরে থেকে কেউ একজন তাঁকে বেশ কয়েকটি গুলি করে পালিয়ে যায়। গুরুতর আহত ওই তরুণকে কিংস কাউন্টি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। তাঁর অবস্থা সংকটাপন্ন।

এসব ঘটনায় এখনো কাউকে গ্রেপ্তার করা যায়নি বলে জানিয়েছে নিউইয়র্ক পুলিশ। ২৪ এপ্রিল রাত ১০টা থেকে পরের ১২ ঘণ্টায় নগরীতে ১৪টি গুলির ঘটনা নাগরিকদের আতঙ্কিত করে তুলেছে। গত জানুয়ারি মাস থেকে ১৫ এপ্রিল সকাল পর্যন্ত নগরে ৩৭২টি গুলির ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনায় গুলিবিদ্ধ হয়ে হতাহত হয়েছে ৪১০ জন। গত বছরের একই সময়ে ২১০টি গুলির ঘটনা ঘটেছিল এবং ২১০ জন হতাহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছিল বলে জানিয়েছে এনওয়াইপিডি।

নিউইয়র্ক থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন