default-image

নিউইয়র্কে এশীয়-আমেরিকানদের ওপর বিদ্বেষমূলক হামলা রোধে কড়া নজরদারি শুরু করেছে নিউইয়র্ক পুলিশ। এ লক্ষ্যে ইতিমধ্যে অতিরিক্ত পুলিশও মোতায়েন করা হয়েছে।

নগরীর পুলিশ প্রধান ডারমট শিয়া বলেছেন, নগরীর সর্বত্র ছদ্মবেশী আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের উপস্থিতি এখন থেকে জোরদার থাকবে। সবার জন্য নগরী নিরাপদ রাখতে এ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

২৩ মার্চ পুলিশ কমিশনার ডারমট শিয়া বলেছেন, নগরীর চায়না টাউন ও ফ্লাশিং থেকে শুরু করে ব্রুকলিন এবং ম্যানহাটনের বিভিন্ন এলাকায় নিয়মিত টহল পুলিশের পাশাপাশি সাদা পোশাকের পুলিশও মোতায়েন করা হয়েছে। নগরীতে সবার সমান এবং ন্যায্য আচরণ নিশ্চিত করতে হবে।

সম্প্রতি নিউইয়র্কসহ যুক্তরাষ্ট্রের সর্বত্র এশীয় আমেরিকানদের ওপর বিদ্বেষমূলক হামলার ঘটনা বেড়ে গেছে। সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প করোনাভাইরাসকে ‘চায়না ভাইরাস’ বলে উল্লেখ করেছিলেন। এ কারণে এই করোনার জন্য চীন বা এশীয় আমেরিকানদের দায়ী করেন। গত ফেব্রুয়ারিতে দেশে এশীয় আমেরিকানদের ওপর ৩৮০০ হামলা হয়েছে বলে সংবাদমাধ্যমে প্রতিবেদন প্রকাশ হয়েছে। সম্প্রতি জর্জিয়ায় বন্ধুকধারীর হামলায় ছয়জন এশীয় আমেরিকানের মৃত্যু পরিস্থিতিকে আরও নাজুক করে দিয়েছে।

নিউইয়র্কের ফ্লাশিং, ব্রুকলিন ও ম্যানহাটনে বিপুলসংখ্যক এশীয় আমেরিকানের বাস। এখন অনেকেই ভয়ে একা চলাচল বন্ধ করে দিয়েছেন। এতে ব্যবসা-বাণিজ্য মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। নিউইয়র্কের নাগরিক সংগঠনগুলো এশীয় আমেরিকানদের ওপর বিদ্বেষমূলক হামলার প্রতিবাদ জানাচ্ছে। এ নিয়ে প্রায় প্রতিদিনই কোনো না কোনো এলাকায় সভা-সমাবেশ হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন
নিউইয়র্ক থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন