বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

যুক্তরাষ্ট্রে ২০২০ সালে রেকর্ডসংখ্যক ২১ হাজার ৫০০ জন খুন হয়েছে। গত ২৭ সেপ্টেম্বর এফবিআইয়ের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০২০ সালের খুনের ঘটনা ২০১৯ সালের তুলনায় প্রায় ৩০ শতাংশ বেশি।

অপরাধ বিশেষজ্ঞদের বক্তব্য, শুধু খুন নয়, যুক্তরাষ্ট্রে অস্ত্র কেনা-বেচার পরিমাণও আগের চেয়ে বেড়েছে। আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার করে খুনের সংখ্যা বেড়েছে বলে জানিয়েছে এফবিআই।

এফবিআই আরও জানিয়েছে, গত কয়েক বছরের তুলনায় ২০২০ সালে যুক্তরাষ্ট্রে খুনের সংখ্যা বাড়লেও তা ১৯৮০-৯০ সালের খুনের সংখ্যার ধারে কাছে নেই। সে সময় সংখ্যাটি কয়েকগুণ বেশি ছিল।

এফবিআইয়ের প্রতিবেদন বলছে, ৭৭ শতাংশ মানুষ খুন হয়েছে বন্দুকের গুলিতে। ২০১৯ সালে যা ৭৪ শতাংশ ছিল। সহিংস অপরাধের হার ২০১৯ সালের চেয়ে ৫ দশমিক ৬ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণাংশে অপরাধের প্রবণতা আগের চেয়ে বেড়েছে। টেক্সাসে অস্ত্র বিক্রির হার সবচেয়ে বেশি।

বিশেষজ্ঞদের মতে, করোনাকালে মানুষের হতাশা বেড়েছে। সে কারণেই অস্ত্র কেনা-বেচার পরিমাণ একদিকে যেমন বেড়েছে, তেমন বেড়েছে সহিংসতার হার। কিন্তু কীভাবে এ প্রবণতাকে বদলানো সম্ভব, তা নিয়ে কোনো স্পষ্ট অভিমতে পৌঁছাতে পারেননি বিশেষজ্ঞরা।

ভোটের প্রচারণার সময় প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছিলেন, অস্ত্র বিক্রি নিয়ে তাঁর প্রশাসন কড়া পদক্ষেপ নেবে।

তবে ক্ষমতায় আসার পর এখনো সে বিষয়ে বাইডেন প্রশাসনকে তেমন কোনো উদ্যোগ নিতে দেখা যায়নি। এফবিআইয়ের প্রতিবেদন সরকারকে ব্যবস্থা নিতে বাধ্য করে কিনা, সেটাই এখন দেখার বিষয়।

নিউইয়র্ক থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন