বিজ্ঞাপন

এর মধ্যেই থলের বিড়াল বেরিয়েছে। গভর্নর অ্যান্ড্রু কুমোর একজন সহকারীর বক্তব্যে জানা গেছে, গত মার্চ মাসে থেকে নিউইয়র্কের নার্সিং হোমে প্রকাশিত তথ্যের চেয়ে অনেক বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। নিউইয়র্কে যখন প্রতিদিন হাজারো মানুষের মৃত্যু হয়েছে, তখন মরদেহ রাখার স্থান সংকুলান হচ্ছিল না। করোনায় মৃত অনেকের মরদেহ বেওয়ারিশ অবস্থায় গণকবর দেওয়া হয়েছে।

১৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত পাওয়া হিসেবে দেখা গেছে, নিউইয়র্কের নার্সিং হোমে করোনায় প্রায় ১৩ হাজার ৫০০ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। আগে এই সংখ্যাটি প্রায় অর্ধেক দেখানো হয়েছে। ট্রাম্প প্রশাসন বিরূপ হতে পারে বা করোনা নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থতা ঢাকার জন্য এমন করা হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

জনগণের কাছে তথ্য গোপন করা, বহু মৃত মানুষের স্বজনদের খোঁজ না করে মরদেহ সমাহিত করাসহ নানা বিষয়ে এখন তোপের মুখে পড়েছেন গভর্নর অ্যান্ড্রু কুমো। নিউইয়র্ক পোস্ট ১৭ ফেব্রুয়ারি এ সংক্রান্ত এক প্রতিবেদনে বলেছে, এফবিআইসহ নানা সংস্থা এ নিয়ে এখন তদন্তে নেমেছে। বেশ কয়েকজন রাজ্য আইন প্রণেতা গভর্নর অ্যান্ড্রু কুমোর পদত্যাগ দাবি করেছেন। এমনকি তাঁকে অভিশংসন করার দাবিও উঠেছে।

নিউইয়র্ক থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন