বিজ্ঞাপন

অনুষ্ঠানে সিডব্লিউএর ভাইস প্রেসিডেন্ট ডেনিস ট্রেনর বলেছেন, মহামারির সময় আমরা বহু পেশাজীবীকে হারিয়েছি। জীবনের স্বাভাবিক কোলাহল শুরুর জন্য এমন উদ্যোগ খুবই গুরুত্বের।

নিউইয়র্কের অভিবাসীবহুল এলাকা জ্যামাইকার বেসলি পন্ড পার্কের সবুজ চত্বর সেদিন জমে উঠেছিল নিউইয়র্ক পুলিশ ও ট্রাফিক বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে। বাংলাদেশি পুলিশ অফিসার ও ট্রাফিক এজেন্টদের পরিবারের সদস্যদেরও সাবলীল উপস্থিতিতে উদ্বোধনী দিনে মনে হয়েছে নগর স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার জন্য এ এক গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ।

ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা ও ট্রাফিক ইউনিয়ন নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন—নিউইয়র্ক পুলিশের চিফ অব ডিপার্টমেন্ট রুডনি কে হ্যারিসন, ক্যাপ্টেন খন্দকার আবদুল্লাহ, ক্যাপ্টেন আদিল রানা, সিডব্লিউএর আঞ্চলিক পরিচালক বিলি গিলাগার, সিডব্লিউএ লোকাল ১১৮১-এর প্রেসিডেন্ট রেবেকা গ্রিন, লোকাল ১১৮২-এর ভারপ্রাপ্ত প্রশাসক রিকি মরিসন, সিডব্লিউএ লোকাল ১১৮২-এর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা আলবার্টো সলো, পলোফোনি সুকুম্বি, সাইদ ইসলাম, মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন, মোহাম্মদ কামরুজ্জামান প্রমুখ।

এই টুর্নামেন্টে মোট ১২টি টিম অংশ নিচ্ছে। ম্যাচ শুরু হবে ১৩ জুন। উদ্বোধনী দিনের ম্যাচে বাপার সঙ্গে মুখোমুখি হয়েছে কুইন্স নর্থ ওয়ারিয়র্স। তিন উইকেটে নর্থ ওয়ারিয়র্স এ খেলায় জয়ী হয়েছে। খেলা শেষে স্কোর ছিল কুইন্স নর্থ ওয়ারিয়র্স ১২২ রান ও ৭ উইকেট, ১৯.২ ওভার এবং বাপা ২০ ওভারে ১২১ রান। ম্যান অব দ্য ম্যাচ হয়েছেন শাহীদ কিবরিয়া।

করোনায় ট্রাফিক এজেন্ট ও এনওয়াইপিডির সদস্যরা প্রাণ হারিয়েছেন। সেই সঙ্গে মারা গেছেন তাঁদের পরিবারের সদস্যরাও। এই আয়োজনে উৎসব মুখরতা থাকলেও, স্মরণে ছিলেন সেসব সম্মুখসারির যোদ্ধারা।

বাপার মিডিয়া লিয়াজোঁ কর্মকর্তা জামিল সরোয়ার বলেন, এই টুর্নামেন্টের মধ্য দিয়ে মূলত বহুজাতিক সমাজে ক্রিকেটকে আরও জনপ্রিয় করার চেষ্টা করছি আমরা। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশি গণমাধ্যমগুলোর ভূমিকাও গুরুত্বপূর্ণ। অতীতের মতো এখনো সহায়তা চাচ্ছি গণমাধ্যমের।

খেলার মাঠে ট্রাফিক সুপারভাইজার ইউনিয়নের নির্বাচিত নেতাদের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ডেনিস ট্রেনর। পরবর্তী তিন বছরের জন্য এ নতুন কমিটি নির্বাচিত হয়েছে।

নিউইয়র্ক থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন