default-image

জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭৬তম অধিবেশন আয়োজন নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরে অবস্থিত জাতিসংঘের সদর দপ্তরে এই অধিবেশন ১৪ সেপ্টেম্বর শুরু হয়ে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলার কথা। বিশ্ব নেতাদের বৃহত্তম এই আয়োজনটি ভার্চ্যুয়াল নাকি সশরীরে অনুষ্ঠিত হবে—এ নিয়ে এখনো সংশয়ে আছে জাতিসংঘ কর্তৃপক্ষ।

জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনের প্রেসিডেন্ট কার্যালয়ের মুখপাত্র ব্রেনডেন ভার্মা এক ইমেইল বার্তায় এই প্রতিবেদকে জানান, ‘এখনো এ বিষয়ে সংশয় রয়েছে। কারণ আমরা জাতিসংঘের সদস্য রাষ্ট্রগুলো থেকে এই বিষয়ে এখনো স্পষ্ট কোনো ম্যান্ডেট পাইনি। আমাদের অফিস যথাসম্ভব আগামী এপ্রিল থেকে এ নিয়ে কাজ করবে। আশা করছি, তখন আমরা এ বিষয়ে সুনির্দিষ্ট সিদ্ধান্ত জানাতে পারব।’

সাধারণত প্রতিটি দেশের স্থায়ী মিশনকে জাতিসংঘ মার্চ-এপ্রিল মাসের মধ্যে সেই বছরের সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠেয় অধিবেশন সম্পর্কে লিখিতভাবে বিস্তারিত তথ্য জানিয়ে দেয়।

বিজ্ঞাপন

জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী মিশন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা হলে তাঁরা জানান, আগামী সাধারণ অধিবেশন নিয়ে জাতিসংঘের পক্ষ থেকে তারা এখনো হালনাগাদ কোনো তথ্য পাননি।

করোনা মহামারির কারণে জাতিসংঘের ৭৫তম অধিবেশনে সদস্য দেশের নেতারা সশরীরে অধিবেশনে যোগ দেননি। বিশ্ব সংস্থার ইতিহাসে গতবারই প্রথম কোনো রাষ্ট্র ও সরকার প্রধান অধিবেশনে সশরীরে আসেননি। সবাই ভার্চ্যুয়ালি সাধারণ পরিষদের অধিবেশন বক্তৃতা করেন। এবারও বিশ্বজুড়ে আবার করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির কারণে আগামী সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠেয় সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে বিশ্বনেতারা সরাসরি যোগ দেবেন কিনা, তা এখনো নিশ্চিত নয়।

নিউইয়র্ক থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন