default-image

নিউইয়র্কের মেট্রোপলিটন ট্রানজিট অথোরিটির (এমটিএ) ১৮ নভেম্বর নতুন বাজেট প্রস্তাব করেছে, যা আগের বছরের তুলনায় কম। তাদের নতুন বাজেটের কারণে সপ্তাহের পাতাল রেল পরিষেবা অর্ধেকে নেমে আসতে পারে। শুধু তাই নয়, ৯ হাজার বেশি ট্রানজিটকর্মী চাকরি হারাতে পারেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

নতুন বাজেট প্রস্তাব নিয়ে আগামী ডিসেম্বরে এমটিএ বোর্ড ভোট দেবে বলে জানা গেছে। বিশেষজ্ঞরা আশঙ্কা করছেন, এতে পাতাল রেল ব্যবহারকারীরা বিরাট সমস্যায় পড়তে পারে। এমনিতে বাজেট ঘাটতি ও করোনা মহামারির কারণে নিউইয়র্কে পাতাল রেলের সেবা গত কয়েক মাসে বেশ ধীর গতিতে চলছে। বর্তমানের ন্যূনতম এই সেবা যদি আরও অর্ধেকে নেমে আসে, তাহলে ব্যাপক জনদুর্ভোগে শহর অচল হয়ে পড়তে পারে বলে বিশেষজ্ঞরা আশঙ্কা করছেন।

এমটিএর সিনিয়র উপদেষ্টা কেন লাভটেটের মতে, করোনার নতুন ত্রাণ প্যাকেজের অংশ হিসেবে এমটিএ যদি ফেডারেল সরকারের থেকে ১২ বিলিয়ন ডলার পায়, তাহলে এই শঙ্কাটা কিছুটা দূর হতে পারে। কিন্তু ট্রাম্প সরকার আগামী জানুয়ারি পর্যন্ত ক্ষমতায় আছে। তাই এর মধ্য ফেডারেল সরকারের কাছ থেকে এমটিএর অর্থ পাওয়ার সম্ভাবনা খুবই ক্ষীণ।

বিজ্ঞাপন

এমটিএর অভ্যন্তরীণ অ্যাডভোকেসি গোষ্ঠীর স্থায়ী নাগরিক কমিটির উপদেষ্টা লিসা ডাগলিয়ান নিউইর্য়ক পোস্টকে বলেন, ফেডারেল সরকার যদি কোনো সমাধান নিয়ে না আসে, তাহলে পাতাল রেল ব্যবহারকারীরা মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

লিসা আরও বলেন, আমাদের সহায়তা প্রয়োজন এবং এখনই আমাদের সহায়তা দরকার। নইলে এমটিএ সাবওয়ে ব্যবহারকারীরা ভীষণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে, এ ছাড়া সামনে আর কোনো পথ নেই।

নিউইয়র্কের পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের লোকাল ১০০–এর সভাপতি টনি উটানো কমিয়ে করা বাজেট প্রস্তাবের তীব্র নিন্দা জানিয়ে এমটিএকে নতুন পরিকল্পনা প্রণয়নের দাবি জানান। তিনি এক বিবৃতিতে বলেন, এমটিএর বাজেটের প্রস্তাবটি কাপুরুষোচিত আত্মসমর্পণ এবং প্রতিটি ট্রানজিট কর্মীর মুখে চড় দেওয়ার শামিল।

টনি এমটিএ বোর্ডকে উদ্দেশ্য করে আরও বলেন, নতুন করে সিদ্ধান্ত নেওয়ার চেষ্টা করুন এবং আসল সমাধান বের করার চেষ্টা করুন। হাজার হাজার শ্রমিককে রাস্তায় নামিয়ে দেওয়া ও পুরো সমাজকে পরিষেবা ছাড়াই ছেড়ে দেওয়া কোনো উত্তর হতে পারে না।

মন্তব্য পড়ুন 0