যুক্তরাষ্ট্রে ঘরে বসে আমাজনে ব্যবসার সুযোগ করে দিচ্ছেন বাংলাদেশি কয়েকজন তরুণ। স্বল্প পুঁজিতে অংশীদার হিসেবে এই ব্যবসায় সম্পৃক্ত হওয়ার সুযোগ রয়েছে। ব্যবসাকে লাভজনক করতে তাদের রয়েছে নিজস্ব বিক্রয় গবেষণা প্রতিষ্ঠান। যাতে বিনিয়োগকারী মূলধনের সঠিক ব্যবহার করে সঠিক পণ্য কেনাবেচা করে ব্যবসাকে লাভজনক করতে পারেন।

এক বছর ধরে প্রায় ১ মিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করে বেশ সাফল্য পেয়েছেন আবুভ (ABUV) নামের এই ব্যবসা প্রতিষ্ঠানটি। মূলত আমাজনের সঙ্গে তাদের ব্যবসা। পণ্য সংরক্ষণের জন্য লং আইল্যান্ডে স্থাপন করেছেন বিশাল আয়তনের ওয়্যার হাউস। পাইকারি প্রতিষ্ঠান থেকে কম মূল্যে পণ্য ক্রয় করে এই ওয়্যার হাউসে জমা রাখেন। একই সঙ্গে এসব পণ্যের ছবিসহ দাম আমাজনের ওয়েবসাইটে আপলোড করেন। এতেই বিক্রি হয়ে হয়ে যায় শত শত বক্স পণ্যসামগ্রী।

বিজ্ঞাপন

সাধারণ মানুষের জন্য সপ্তাহে দুই দিন করে ওয়্যার হাউস খোলা থাকে। যাতে করে খুচরা বাজার থেকে কম মূল্যে ভোক্তারা মালামাল কিনতে পারেন।

বিনিয়োগে আগ্রহীরা প্রতি শনিবার ব্যবসার প্রাথমিক ধারণা ও বিনিয়োগ করে কীভাবে লাভ করবে, সে বিষয়ে সেমিনার করা হয়। সেখান ব্যবসা সংক্রান্ত যেকোনো ধরনের প্রশ্নের উত্তর দেন কর্মকর্তারা।

ভবিষ্যতে যেকোনো ধরনের জটিলতা এড়াতে ব্যবসায় সংযুক্ত হওয়ার আগে উভয় পক্ষের সম্মতিতে আইনজীবীর মাধ্যমে চুক্তি সম্পাদন করা হয়। একই সঙ্গে ব্যবসায় বিনিয়োগ করার কয়েক কমাস পর বিনিয়োগকারী যদি আর ব্যবসা করতে না চায়, তাহলে তার মূলধন ও লাভসহ বের হয়ে যাওয়ার ব্যবস্থাও রয়েছে।

সরাসরি গ্রাহকদের সুবিধার্থে প্রতি শনিবার ওয়্যার হাউসে হোম, গ্রোসারি, ক্রোকারিজ, সেলফোন কাভার, টিশার্ট, হালাল ডিটারজেন্ট পাউডার, খাবার সস ও খেলনার সামগ্রীসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় নানা জিনিসপত্র বিক্রি করা হয়। সেখান থেকে পছন্দের পণ্য কম দামে কেনা যায়।

এই ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে বিভিন্ন পর্যায়ে প্রায় ৪০ জন মানুষ কাজ করছেন। দিনরাত নিরলস পরিশ্রমের মাধ্যমে সাফল্যও পাচ্ছেন তাঁরা। ব্যবসাকে আরও সম্প্রসারিত করতে নতুন কিছু উদ্যোক্তা যুক্ত করার উদ্যোগ নিয়েছেন তাঁরা।

আবুভের সিইও শফি আহমেদ বলেন, ‘ঘরে বসে আমাজনে ব্যবসা করার সুযোগ রয়েছে। আমাদের সঙ্গে যে কেউ বিনিয়োগ করে লাভবান হতে পারেন। আমাজনে যেকোনো পণ্য বিক্রি করে লাভবান হওয়া যায় না। তাই, আমরা কোনো পণ্য কেনার আগে পণ্য ও বাজার নিয়ে গবেষণা করি, যাতে নিশ্চিত লাভবান হওয়া যায়।’

বিজ্ঞাপন

কোম্পানির সহব্যবস্থাপক আলতাফ হোসেন বলেন, ‘যাদের অলস অর্থ পড়ে আছে কিংবা পুঁজি নিয়ে কী ধরনের ব্যবসা করবেন বুঝতে পারছেন না, তারা আমাদের কোম্পানিতে নিশ্চিন্তে বিনিয়োগ করতে পারেন। কারণ, আমাজন এখন সবচেয়ে বিশ্বস্ত ও লাভজনক প্রতিষ্ঠান। আবুভ কোম্পানির সঙ্গে ব্যবসা করতে চাইলে ওয়েবসাইটের মাধ্যমে যোগাযোগ করে আগ্রহী যে কেউ অ্যাপয়েন্টমেন্ট নিতে পারেন।

কোম্পানির অন্যতম বিনিয়োগকারী সমিউল আনাম চৌধুরী বলেন, এক সময় তাঁর পরিকল্পনা ছিল একটি বড় স্টোর খুলবেন। কিন্তু এতে অনেক পুঁজি, খাটাখাটনি ও বেশি লোকবল নিয়োগ করতে হয়। এ ছাড়া দোকান খোলা বন্ধ করার ঝামেলা তো রয়েছেই। কিন্তু আমাজনে ব্যবসা করলে ২৪ ঘণ্টা পণ্য ক্রয়–বিক্রয় করা যায়, পুঁজিও নিরাপদ থাকে, লাভও করা যায় অনায়াসে। আবুভের সঙ্গে ব্যবসা করতে চাইলে ওয়েবসাইটে (GO.ABUVTHEPAR.COM) যোগাযোগ করতে পারেন যে কেউ।

নিউইয়র্ক থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন