default-image

কয়েকমাসের ব্যবধানে তিনজন পরিচিত মুখ হারিয়ে শোকে কাতর নিউইয়র্কের বাংলাদেশি কমিউনিটি। কয়েক মাস আগে করোনায় বাংলাদেশ সোসাইটির সভাপতি কামাল আহমেদ ও কার্যকরী সদস্য আজাদ বাকিরের মৃত্যু হয়। তাদের হারিয়ে অভিভাবক শূন্য বাংলাদেশ সোসাইটি এবার হারালো বাংলাদেশ সোসাইটি ইনকের সহসভাপতি আবদুল খালেককে (৬৫)। তিনি স্ত্রী, এক ছেলে ও দুই মেয়েসহ (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন) অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।

মহামারি করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়ে ৩ সপ্তাহ ধরে আবদুল খালেক হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। তিনি যুক্তরাষ্ট্র শাখা বিএনপির সাবেক সহসভাপতি, বৃহত্তর নোয়াখালী সোসাইটির উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য এবং বৃহত্তর বেগমগঞ্জ সোসাইটির প্রতিষ্ঠা সভাপতি ছাড়াও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সঙ্গে জড়িত ছিলেন।

আবদুল খালেকের মরদেহ ১০ নভেম্বর ওয়াশিংটন মেমোরিয়ালের মুসলিম কবরস্থানে তার মরদেহ দাফন করা হয়।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে ইতিপূর্বে বাংলাদেশ সোসাইটির সভাপতি কামাল আহমেদ ও কার্যকরী সদস্য আজাদ বাকিরসহ নিউইয়র্কসহ যুক্তরাষ্ট্রে ২৫০ জনের বেশি বাংলাদেশি মার্কিনের মৃত্যু হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

আবদুল খালেকের মৃত্যুতে গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করেছেন জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের কেন্দ্রীয় নেত্রী নাজমুন নাহার, বাংলাদেশ সোসাইটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবদুর রহীম হাওলাদার, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ রুহুল আমীন সিদ্দিকী, ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আজিজ, প্রধান নির্বাচন কমিশনার জামাল উদ্দিন, সোসাইটির নির্বাচনে সভাপতি পদপ্রার্থী কাজী আশরাফ হোসেন, কোষাধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলী, যুক্তরাষ্ট্র শাখা বিএনপির সাবেক সহসভাপতি সামসুল ইসলাম, সাবেক যুগ্ম সম্পাদক মোহাম্মদ আনোয়ারুল ইসলাম, জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন অব আমেরিকার সহসভাপতি আহবাব চৌধুরী, কোষাধ্যক্ষ মইনুল ইসলাম, জাসাস কেন্দ্রীয় কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ও যুক্তরাষ্ট্র শাখার সভাপতি আবু তাহের, জ্যামাইকা বাংলাদেশ ফ্রেন্ডস সোসাইটির সভাপতি ফখরুল ইসলাম, কমিউনিটি অ্যাকটিভিস্ট আবু নাসের, খান শওকত, ইফজাল আহমেদ চৌধুরী, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ফোরাম ইউএসএর সভাপতি নাছিম আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন প্রমুখ।

মন্তব্য পড়ুন 0