default-image

ডেমোক্র্যাট কংগ্রেসওমেন আলেক্সান্দ্রিয়া ওকাসিও-কর্তেজ বলেছেন, ৩ নভেম্বরের নির্বাচনের মধ্য দিয়ে তৃণমূল মানুষের আন্দোলন শেষ হয়ে যাবে না। কারণ ওয়াশিংটনের কোনো রাজনীতিকই তৃণমূল মানুষের বন্ধু নয়। ওয়াশিংটনের ক্ষমতায় ডেমোক্রেটিক দলের অভিষেক ঘটলেও, জনগণের দাবি অপূর্ণ থেকে যাবে। জনগণকে জাগ্রত থাকতে হবে। ক্রমাগত লড়াই করেই অধিকার আদায় করে নিতে হবে।

২৭ অক্টোবর সন্ধ্যায় এক ভার্চ্যুয়াল টাউন হল সভায় আলেক্সান্দ্রিয়া ওকাসিও-কর্তেজ এসব কথা বলেন। সভায় উদারনৈতিক ডেমোক্র্যাট সিনেটর বার্নি স্যান্ডার্স ও সিনেটর রবার্ট পিটার্স বক্তব্য রাখেন।

সভায় জানানো হয়, ৩ নভেম্বরের নির্বাচনের জন্য সুইং স্টেটগুলোতে পাঁচ লাখ ভোটারকে আগামী এক সপ্তাহে ফোন কল করা হবে। পিপলস অ্যাকশন নামের তৃণমূল সংগঠনের উদ্যোগে এ প্রচারণার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

আলেক্সান্দ্রিয়া ওকাসিও-কর্তেজ বলেন, সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্যসেবা থেকে শুরু করে মৌলিক সব দাবির জন্য ডেমোক্রেটিক দলের নির্বাচনে জয়ের ওপর ভরসা করে থাকলেই হবে না। নির্বাচনে ডেমোক্রেটিক দল হোয়াইট হাউস, সিনেট এবং প্রতিনিধি পরিষদে জয় লাভ করলেও থেমে থাকা চলবে না। ৩ নভেম্বরের পরও তৃণমূলের লোকজনকে দাবি আদায়ে সংগ্রাম চালিয়ে নেওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে।

ওকাসিও-কর্তেজ দিনভর নিউইয়র্কের বিভিন্ন এলাকায় জনসংযোগ করছেন। ২৭ অক্টোবর বিকেলে তিনি বাংলাদেশি অধ্যুষিত জ্যাকসন হাইটসের করোনা পার্ক এলাকায় খাবার বিতরণ কর্মসূচিতে অংশ নেন। এর ফাঁকে তিনি প্রথম আলো উত্তর আমেরিকার প্রতিনিধিদের সঙ্গে কথা বলেন।

প্রথম আলো উত্তর আমেরিকার পক্ষে আবাসিক সম্পাদক ইব্রাহীম চৌধুরী, সাংবাদিক রহমান মাহবুব, শেলী জামান খান ও মনজুরুল হক এ সময় আলেক্সান্দ্রিয়া ওকাসিওর সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন। জনগণকে ভোট দানে উৎসাহিত করা এবং নির্বাচনী সংবাদ নিয়ে প্রথম আলো উত্তর আমেরিকার প্রয়াসের কথা তাঁকে জানানো হয়। এ জন্য ওকাসিও-কর্তেজ প্রথম আলো উত্তর আমেরিকাকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।

মন্তব্য পড়ুন 0