অনুষ্ঠানে প্রেসক্লাবের সদস্য ও অতিথিরা
অনুষ্ঠানে প্রেসক্লাবের সদস্য ও অতিথিরা

আমেরিকা-বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের দুই বছর মেয়াদি (২০২০-২০২২) সালের জন্য ৭ সদস্যবিশিষ্ট নতুন কার্যকরী কমিটি নির্বাচিত হয়েছে। ৩০ আগস্ট নিউইয়র্কের লং আইল্যান্ডের টাপেন বিচ পার্কে অনুষ্ঠিত সংগঠনের বার্ষিক সাধারণ সভায় সদস্যদের ভোটে সভাপতি পদে ‘সাপ্তাহিক প্রবাস’ সম্পাদক মোহাম্মদ সাঈদ ও প্রথম আলো উত্তর আমেরিকার চিফ রিপোর্টার মনজুরুল হক সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত হয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের বাংলাভাষী সংবাদপত্র ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকদের সমন্বয়ে ২০০৮ সালে আমেরিকা-বাংলাদেশ প্রেসক্লাব গঠিত হয়। নতুন কমিটিতে কোষাধ্যক্ষ হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন মশিউর রহমান (খবর ডট কম)। কার্যকরী পরিষদের সদস্যরা হলেন—বিদায়ী কমিটির সভাপতি দর্পণ কবীর ও সাধারণ সম্পাদক শাহাব উদ্দিন (সাগর), সহসাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল লিটন ও আবু বকর সিদ্দিক।

সংগঠনের সভাপতি দর্পণ কবীরের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক শাহাব উদ্দিনের পরিচালনায় সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও ‘পরিচয়’ সম্পাদক নাজমুল আহসান, ‘সাপ্তাহিক আজকাল’–এর সম্পাদক জাকারিয়া মাসুদ জিকো, ব্যবস্থাপনা সম্পাদক মিলা হোসেন, কণ্ঠশিল্পী বেবী নাজনীন প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন

সাধারণ সভায় জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী বেবী নাজনীনকে প্রেসক্লাবের বিশেষ সম্মাননা সদস্য পদ দেওয়া হয়। বিশেষ সম্মানিত সদস্য আইডি বেবী নাজনীনের হাতে তুলে দেন ক্লাবের সাবেক সভাপতি নাজমুল আহসান। নতুন কমিটির নাম ঘোষণার পর নবনির্বাচিত সভাপতি মোহাম্মদ সাঈদ ও সাধারণ সম্পাদক মনজুরুল হক শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন। তারা প্রেসক্লাবের সদস্যদের মধ্যে ভ্রাতৃত্ব ও সৌহার্দ্য বজায় রাখার অঙ্গীকার করেন।

শুভেচ্ছা বক্তব্যে নাজমুল আহসান বলেন, আমেরিকা-বাংলাদেশ প্রেসক্লাব গঠিত হয়েছিল ২০০৮ সালে। ক্লাবে সাংবাদিকদের পেশাগত সম্পর্কে সম্প্রীতি এবং পারিবারিক বন্ধন দৃঢ় করার লক্ষ্যে সবাই কাজ করেছেন। আজ তাই আমরা করোনাকালেও খোলা আকাশের নিচে সাধারণ সভা করতে পারছি।

শুভেচ্ছা বক্তব্যে আজকাল পত্রিকার সম্পাদক জাকারিয়া মাসুদ বলেন, আমেরিকা-বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সঙ্গে আজকাল পরিবারের বন্ধন অটুট। পেশায় পেশাদারি বজায় রাখতে সবাইকে সচেষ্ট হতে হবে। নবনির্বাচিত কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ সাঈদ বলেন, নানা চড়াই-উতরাই পেরিয়ে আজকে আমরা একত্রিত হয়েছি। দায়িত্ব পাওয়া থেকে দায়িত্ব পালন করা কঠিন কাজ। এই ক্লাবের প্রতিটি সদস্যকে আমরা নিজেদের পরিবারের সদস্য বলে মনে করি। আমরা সবার সহযোগিতা নিয়ে ক্লাবের ভাবমূর্তি আরও বাড়াতে কাজ করব।

default-image

নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক মনজুরুল হক বলেন, ভবিষ্যতে ক্লাবের যে সব কর্মপরিকল্পনা থাকবে, তা আপনাদের সবার সহযোগিতায় আমরা বাস্তবায়নের চেষ্টা করব। তাই সব সময় সবার সহযোগিতা প্রত্যাশা করছি।

এদিন সাধারণ সভায় ক্লাব সদস্যরা পরিবার-পরিজন নিয়ে উপস্থিত ছিলেন। সদস্যদের মধ্যে সাধারণ সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন বেলাল আহমেদ (সহসভাপতি), সামসুন্নাহান্নার, শামসুল আলম (ইসি মেম্বার), তাপস সাহা (কোষাধ্যক্ষ), সীমা সুস্মিতা, মল্লিকা খান মুনা (ইসি মেম্বার), আবু বকর সিদ্দিক (ইসি মেম্বার),সাবেক সাধারণ সম্পাদক শওকত ওসমান, মশিউর রহমান মজুমদার, সহসাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল লিটন, মনজুরুল হক, শামীম আল আমিন, পাপিয়া বেগম ও মোহাম্মদ হামিদ।

বিদায়ী সাধারণ সম্পাদক শাহাব উদ্দিন বলেন, আমরা ক্লাবকে সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার সাধ্যমতো চেষ্টা করেছি। করোনার কারণে সংগঠনের কিছু কার্যক্রম ব্যাহত হয়েছে। পেছনের দিকে না তাকিয়ে আমরা সামনের দিকে পথ চলব।

বিজ্ঞাপন

সাবেক সভাপতি দর্পণ কবীর বলেন, আমেরিকা-বাংলাদেশ প্রেসক্লাব আমাদের প্রাণের ক্লাব। সভাপতি হিসেবে কী দায়িত্ব পালন করেছি, সেটা বড় কথা নয়। ক্লাবের সার্বিক কল্যাণে অতীতেও সময় দিয়েছি, ভবিষ্যতেও সময় দেব। এজন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বান জানাচ্ছি।

সর্বশেষ র‌্যাফেল ড্র অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রথম পুরস্কার পান শওকত ওসমান। তাকে পুরস্কার তুলে দেন মডেল ও অভিনেত্রী মিলা হোসেন। দ্বিতীয় পুরস্কার পান সামসুন্নাহার। তাঁর হাতে পুরস্কার তুলে দেন কণ্ঠশিল্পী বেবী নাজনীন। তৃতীয় পুরস্কার লাভ করেন মল্লিকা খান। তাকে পুরস্কার তুলে দেন ক্লাব সদস্য সীমা সুস্মিতা।

এদিন সাধারণ সভায় ক্লাবের ইসি সদস্য আলোকচিত্রী সাংবাদিক স্বপন হাইয়ের মৃত্যুর ঘটনায় শোকপ্রস্তাব করা হয়। এক মিনিট দাঁড়িয়ে নীরবতা পালনের মধ্যে দিয়ে তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়।

নিউইয়র্ক থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন